আরজু মুক্তা

লিখতে ভালো লাগেনা,তাও মনের জানালায় বসে কথা বলি।ছবি তুলতেও ভালো লাগে!বাকিটা অজানা থাক!

  • নিবন্ধন করেছেনঃ ৪ মাস ২ দিন আগে
  • পোস্ট লিখেছেনঃ ৩২টি
  • মন্তব্য করেছেনঃ ৮৩২টি
  • মন্তব্য পেয়েছেনঃ ৭১৩টি

নদীবিলাস

আরজু মুক্তা ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১১:৫১:০৬অপরাহ্ন কবিতা ২২ মন্তব্য
আমাকে ছুঁয়ে দিলেই নীলিমা হয়ে যাই!! বাষ্পকণাগুলো দ্রুত কালো মেঘে ভূমণ্ডল ছেয়ে যায়; কিন্তু আমি কাঁদিনা! ঐ যে বহতা নদী শান্ত, ভোরের মতো তার বুকেও জাগে চর! চরের দুঃখ আমাতে মিলায়! চরগুলো একেকটা পাড়া নৈঃশব্দ,করুণ বিরহমালা গাঁথে! শ্রাবণে আকুল উন্মাদ কার্তিকে নির্বাক,মহাশশ্মান, রৌদ্র ওখানে করতালি দেয়! যদি জন্মান্তরে একবার ছুঁয়ে দাও আমি নদী হয়ে জন্মাবো! [ বিস্তারিত ]

মাথা ও ভাগ্য

আরজু মুক্তা ১৭ জুন ২০১৯, সোমবার, ০৬:৪৯:৪৫অপরাহ্ন গল্প ২৫ মন্তব্য
যারা গ্রামে থাকে তারা কখনো মেইন পথ ধরে চলেনা! শর্ট কাট রাস্তা বের করে ফেলে।।আমরাও বন্ধুরা মিলে যাওয়ার অনেকগুলো রাস্তা বের করে ফেলেছি।।কোনটা দিয়ে কখন যে যাই।।এটার মজাই আলাদা!! ঢং ঢং ঢং…. .ঘণ্টা পরতেই,,, কার বাসায় কুকুরছানা হলো,না বিড়াল ছানা এলো,কার নতুন ফল ধরেছে,ঐ গাছে দুটা ঢিল,,,কার বাসায় নতুন মেহমান এলো!সব খবর নিয়ে বাড়ি ফিরতে [ বিস্তারিত ]

মেঘ ছুঁয়ে যায়

আরজু মুক্তা ১০ জুন ২০১৯, সোমবার, ০৫:৪৫:৪২অপরাহ্ন ভ্রমণ ২৪ মন্তব্য
“দেখিতে গিয়াছি পর্বতমালা দেখিতে গিয়াছি সিন্ধু দেখা হয় নাইকো চক্ষু মেলিয়া একটি ধানের উপর একটু শিশির বিন্দু!” তাই বন্ধুরা মিলে জনা ৫ ঠিক হলো সাজেক যাব। এটা রাঙ্গামাটিতে অবস্থিত। সমুদ্র পৃষ্ঠ থেকে ১৮০০  ফুট উচ্চতায় এই সাজেক। আমরা চট্টগ্রাম থেকে সকাল ৬টায় রওনা হলাম। সেদিন আবার বৃষ্টিও শুরু। আমার সাহেব ক্ষ্যাপা। মরার জন্য নাকি যাচ্ছি! [ বিস্তারিত ]

নদী ও নারী

আরজু মুক্তা ৬ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১১:০৭:৩৪পূর্বাহ্ন কবিতা ২০ মন্তব্য
নদী,তুমি কখনো উদ্বেল জলে কখনোবা বালিয়াড়ি ভরে কখনো তোমার জল নিয়ে যায় গাঁয়ের বধু! কখনো শোকাহত প্রেমিকার মতো হৃদয়ে জাগে তোমার হাহাকার!! নদী তো নারীর মতো সোহাগের ফেনা ছড়ায় তার স্তব্ধতা অবাধ অতল রহস্যাবৃত!! জলগুলো ঢেউ দিয়ে আঁকে না বলা কথার ছবি! তোমার প্রেমের মতো অনির্বচনীয়!!

অনুপস্থিতি

আরজু মুক্তা ৪ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:৫৬:১৭পূর্বাহ্ন কবিতা ১৬ মন্তব্য
তোমার অনুপস্থিতি সৃষ্টি করে তীব্র শূন্যতা দিন বেয়ে মাস মাস বেয়ে বছর!! ক্ষুধা মন্দা, অরুচি মাথার ভেতর কতো কথা চোখের সামনে তুমি!! ভেবেছিলাম মৃত্যুই শ্রেয়! আবেগে অন্ধ হলাম বোবা হলাম,বধির হলাম ভয়ংকর অবিশ্বাস জমা হলো!! আলোরা টেনে তুললো টেইলর সুইফটের গান শুনি কিটস এর কবিতা পড়ি নীলগিরি যাই মেঘ ছুঁতে!! তুমি চলে গেছো বলে আর [ বিস্তারিত ]

একাকীত্ব

আরজু মুক্তা ২ জুন ২০১৯, রবিবার, ১১:০৭:৩৬পূর্বাহ্ন কবিতা ১৯ মন্তব্য
গোধূলীর সঙ্গী কাক সন্ধ্যার একাকীত্বে ডুব দিলো আলো পুকুরে ফুটলো শাপলা চাঁদকে হাসাবে বলে! জোনাকি জ্বলে আঁধারের স্পর্শে ঝিঁ ঝিঁরা চাইলো অবসর মেঘগুলো খেয়া ভাসালো আকাশে! সবাই সখ্যতা খোঁজে পুনরাবৃত্তি হয়——- আমার ও ইচ্ছে হয় কিন্তু প্রতিধ্বনি ফিরে আসে ফেরারী আত্মা হয়ে!!
গা ঘেঁষে দাঁড়াবেন না!! কথাটা কি অযৌক্তিক?রাস্তায় বের হলে বোঝা যায়।পুরুষ নামক কতোগুলো লোক কতটুকু ফাঁক রেখে দাঁড়ায়! অনেক আগের কাহিনী বলি।আমার বাসা থেকে কলেজের দূরত্ব ছিলো ৫০ কিলো।বাসভাড়া ছিলো ২০টাকা।আব্বা বলতো, ভাড়া কম!তুমি মেয়েদের সিটে না বসে,টু সিট ভাড়া নিবে।আমার মেয়েদের সিটে বসলে মাথা ঘুরায়!ওদিকে একসিটের টাকা বাঁচালে মাসে একটা জামাও নেয়া যায়। কি [ বিস্তারিত ]

ভালোবাসি তাই

আরজু মুক্তা ২৯ মে ২০১৯, বুধবার, ১১:২৫:৩১পূর্বাহ্ন কবিতা ১৬ মন্তব্য
সুনীল গাঙুলি পাহাড় কিনতে চেয়েছিলেন তুমি কিন্তু সমুদ্রই কিনবে!! একটা ছোট ঘর,ঝাউবাগান সুশীতল জলরাশি,সবুজ মাঠ আশেপাশে থাকবে! নীলরং দারুণ পছন্দ আমার সাথে নীল সমুদ্র, নীলাকাশ! আমি নীল শাড়ি পড়ে হাঁটবো নীল জোসনায়! বুনো ফুলের সুবাসের সাথে থাকবে ভাষাহীন নীরবতা! তুমি ভালোলাগায় ভালোবাসায় একবার ডুবাবে একবার ভাসাবে!!

বিংশ শতাব্দীর প্রেম

আরজু মুক্তা ২৮ মে ২০১৯, মঙ্গলবার, ১০:৩৩:৫৪পূর্বাহ্ন গল্প ১৯ মন্তব্য
ঘুম থেকে উঠেই ব্রাশ নিয়ে মুখে দিতেই মনে হলো, কার যে ব্রাশ !! আব্বা একটা ঝামেলা করেন সবসময়।আমাদের চার ভাইবোনদের জন্য একই রকম ব্রাশ কিনেন।আমরা নামের প্রথম অক্ষর ব্রাশে লিখে রাখি।কিন্তু আজ দেখার সময় নাই! থিসিস পেপার কাল জমা দিতে হবে।। মা, আসি ——!বলেই দৌড়।রিকশাও পেয়ে গেলাম লাইব্রেরি যাবো।। আপা হুড তুলমু? না,থাক!! বিকেলের সোনালি রোদ [ বিস্তারিত ]

স্টেথিস্কোপ

আরজু মুক্তা ২৫ মে ২০১৯, শনিবার, ১১:২০:২৩পূর্বাহ্ন কবিতা ২১ মন্তব্য
ডাক্তার যেদিন ওপেন হার্ট সার্জারি করতে গিয়ে খুঁজে পেয়েছিলো আমার মুখ : তার বহুকাল আগে——– ফোন কলে এসে স্টেথিস্কোপ দিয়ে হার্টবিট না মেপে শুনেছিলো হৃদয়ের বারতা!! তারও আগে হাত কেটেছিলাম বলে স্যাভলন না দিয়ে গাঁদাফুলের পাতা ঘষে দিয়েছিলো এ্যান্টিবায়োটিক হিসেবে!! নবীন ডাক্তার আজ প্রবীণ হয়েছে !!  

স্বপ্নিল পৃথিবী

আরজু মুক্তা ১৩ মে ২০১৯, সোমবার, ০৭:৩১:২৪অপরাহ্ন কবিতা ২৮ মন্তব্য
আমাদের পৃথিবীতে শুধু আমরা দুজন বিনা মেঘে বজ্রপাতের মতনই হঠাৎ ছিটকে যাই! চোখের সামনে থেকে হারিয়ে যাও তুমি সবকিছু ধোঁয়াটে ! আধোফোটা হাস্নাহেনার পাপড়িতে ঢুলে পরেছে যে চাঁদ সে থাকতে চায় প্রবল উন্মাদনায় মায়ায় জড়াতে চায় নীলাভ পৃথিবী দেখে ! সে পৃথিবী দেখছে আর আমি অপেক্ষা করছি তোমার———– ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় চৌচির! ক্রমশঃ তুমি কাছে আসলে, [ বিস্তারিত ]

এক দুপুরে (ম্যাগাজিন)

আরজু মুক্তা ৮ মে ২০১৯, বুধবার, ১০:১৪:৫৬অপরাহ্ন গল্প ২৫ মন্তব্য
আম্মা , ও আম্মা! দেইখ্যা যান। বাদলেরে কে জানি উপরে টাইন্যা নিয়ে যাচ্ছে!! সবাই তখন ভাত ঘুম দিচ্ছিলাম ! এমন চিৎকারে শুনে, মা বলছে,”পা ধরে থাক!আমরা আসছি!” এসে দেখি ,সত্যিই তো বাদল বিছানা থেকে একটু উপরে উঠে আছে,আর নুরি পা ধরে আছে। মা বলছে,জ্বীন/পরি মনে হয়।আম্মা দৌড়ে ওযু করে কোরআন শরীফ নিয়ে জ্বীন সূরা পড়া [ বিস্তারিত ]
আফগানরা যখন এদেশে আখরোট,খেজুর,কিসমিস বিক্রি করতে আসতো!সেই সময় গাছে কাঁঠাল ঝুলতে দেখে অবাক হয়েছিলো!এক বাঙালীকে জিজ্ঞেস করলো, “এটা কি?”বাঙাল বললো এটা আমাদের জাতীয় ফল,খুবই সুমিষ্ট !সেই সাথে শয়তানি বুদ্ধিও মাথায় আসলো!কেমনে ওর দাড়িতে কাঁঠালের আঠা মাখায় দেয়া যায়!আফগান খেতে চাওয়াতে ওর সুবিধাই হলো। বললো,খেয়ে দেখো!কিন্তু শিখালো না কীভাবে আঠা ছড়িয়ে খেতে হয়!আফগান কাঁঠালের মজা পেয়ে [ বিস্তারিত ]

আকুলতা ( ম্যাগাজিন )

আরজু মুক্তা ৬ মে ২০১৯, সোমবার, ০১:৪৭:৩৫পূর্বাহ্ন কবিতা ২০ মন্তব্য
দশটি আঙ্গুল ছুঁয়ে থাক দশটি দিগন্তকে! কনিষ্ঠায় থাকুক আলো আর একটাতে থাক অন্ধকার! অনামিকায় থাক চঞ্চলতা আর একটাতে থাক নীরবতা! মধ্যমায় থাক ব্যস্ততা আর একটাতে থাক অপেক্ষা! তর্জনীতে থাক অব্যক্ত কথা আর অন্যটাতে শোনার অধীরতা! বৃদ্ধাঙ্গুলে থাক পাশে থাকার আকাঙ্খা আর অন্যটাতে হারাবার ভয়! এভাবে জীবন চলুক প্রতিটি প্রহর ধরে দশটি দিগন্তকে ছুঁয়ে!!

কৌতুক (ম্যাগাজিন)

আরজু মুক্তা ৩০ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার, ০১:২৩:৪২অপরাহ্ন রম্য ২৯ মন্তব্য
কৌতুক ১ঃ একলোক মহা ধুমধাম করে বিয়ে করলো!যেহেতু রাতে অনুষ্ঠান।শেষ হতে অনেক দেরি হয়ে গেলো।চোর ব্যাটা মহা আনন্দে খাটের তলায় লুকিয়ে থাকলো। মনে মনে বললো,বর বৌ ঘুমালেই হয়!আমাকে আর পায় কে!সোনা গহনা নিয়ে ভোর হবার আগেই চম্পট দিবো! যাই হোক বর বৌ চলে আসলো !দরজাও বন্ধ হলো!বর তো ঘোমটা খুলে দেখে,বৌ তো নয় অপ্সরী!কোন বিশেষণ [ বিস্তারিত ]

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য