বিভাগ: মুক্তিযুদ্ধ

সব ক’টা জানালা খুলে দাও না আমি গাইবো গাইবো বিজয়ের-ই গান….সব ক’কটা জানালা খুলে দাও না। খুলে গেছে পৃথবীর সকল দরজা জানালা তবুও তাকে আর ফিরে পাওয়া যাবে না।তিনি আসলেন,মানুষের মন জয় করলেন অতপর চলে গেলেন।২২ জানুয়ারী ২০১৯ ভোর ৪টার দিকে রাজধানীর বাড্ডায় নিজ বাসায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।(ইন্নালিল্লাহি … রাজিউন)। বীর মুক্তিযুদ্ধা প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক [ বিস্তারিত ]

স্বাধীনতাকে কি ভুলে গেছো?

ইঞ্জা ২১ জানুয়ারী ২০১৯, সোমবার, ১০:৪৩:৪০পূর্বাহ্ন মুক্তিযুদ্ধ ১০ মন্তব্য
  স্বাধীনতা সে কি ইতিহাস, নাকি পতাকার মাঝে জ্বলজ্বলে রক্ত পিন্ড ভুলে গেছো কি সেইসব দিন রাত, পথে ঘাটে হতো রক্তপাত খাবলে খাবলে খেতো শকুনে বক্ষ পিঞ্জর, ঠা ঠা করে হাসতো হায়েনার দল ভুলে গেছো কি মা বোনদের রক্তাক্ত ধর্ষিত যত্রতত্র পড়ে থাকা লাশ, রাজাকার পাক হায়েনাদের রক্ত উল্লাস, স্বাধীনতা সে কি ইতিহাস তোমরাই ছিলে, [ বিস্তারিত ]
সমর স্বপ্নাকে ছাড়াই হাজির হলেন সূর্যদের বাসায়।সূর্য্যের মা রোজী আজ মহা খুশি।সারা জীবনের প্রার্থনা স্রষ্টা মুখ তুলে তাকিয়েছেন।ছেলের ঘরে নাতী হলে সে এক জন খেলার সাথী পাবেন।আজ রাতের খাবারটা কোন এক ভাল রেষ্টুরেন্টে খাবেন বলে মা আর মামীকে ঘরে রেখে ওরা মানে সূর্য-নন্দিনী,সমর আর অভি বেরিয়ে পড়লেন। -স্বপ্না আসেনি কেন?সমরকে সূর্যের জিজ্ঞাসা। -ওর শরিরটা ভাল [ বিস্তারিত ]
বলতে পারেন পৃথিবীতে সব চেয়ে দামী  কে?শুধুই পৃথিবীতে!এই জগৎ যিনি সৃষ্টি করেছেন তার কাছেও সবচেয়ে ব্যাক্তি তিনি হলেন মা।মা হচ্ছে পৃথিবীর সেই প্রানী যার সাথে অন্য কোন কিছুর তুলনা চলে না।এর ব্যাখ্যা আমার চেয়ে আপনার আরো বেশী জানা আছে।আর আছে উপরে সাত আসমান নীচে পায়ের তলায় মাটি ও মানুষ।যে কোন দেশের কথা বলতে পারি না [ বিস্তারিত ]
আজ ১৬ ডিসেম্বর, মহান বিজয় দিবস। আব্বা মারা যাবার পর থেকেই প্রতিবছর এ দিনে আমি আমাদের থানার উপজেলা মাঠে যাই। সেখানে মুক্তিযোদ্ধাদের এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের সম্মাননা দেয়া হয়। হোকনা একদিনের সম্মান তাতে কি? তবুওতো দেয়। এই একদিনের জন্যেতো সবাই মনে রাখে মুক্তিযোদ্ধাদের!! আব্বু জীবিত নেই বলে আমিই যাই। অনেক মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে দেখা সাক্ষাত হয়, [ বিস্তারিত ]
বিশ্বে দেশমার্তৃকার তরে যতগুলো যুদ্ধ হয়েছে সবগুলো যুদ্ধ বা সংগ্রামে ছিল দুটি পক্ষ।এক শাষক এবং শোষিত।আমাদের বেলায়ও তাই হয়েছিল নাপাকিস্থান ছিলো শাসক আর আমরা পূর্ব পাকিস্থান ছিলাম শোষিত জনতা।আপনি বা নতুন প্রজন্ম যারা জানেন না পূর্ব বাংলায় নাপাকিদের শোষনের মাত্রা কেমন ছিলো কেনই বা একটি ভূ-খন্ডের  জনগণ জীবন মরন বাজী রেখে একটি স্বাধীন সার্বোভৌমত্ব রাষ্ট্রের [ বিস্তারিত ]
বিশ্বের বহু দেশের মতন আমাদের বাংলাদেশটিকেও যুদ্ধ করেই স্বাধীন করতে হয়েছিলো তবে স্বাধীন করার প্রেক্ষাপট ছিল ভিন্ন।স্বাধীন হওয়া বিশ্বের অন্য যে কোন দেশের চেয়ে ভয়ংকর,মর্মস্পর্শী ও বেদনাদায়।মাত্র নয় মাসেই ত্রিশ লক্ষ জনতাকে হত্যা,লক্ষ লক্ষ মায়ের সম্ভ্রম কেরে নেয়া,অসংখ্য ঘর বাড়ী জ্বালাও পোড়াও বিশ্ব অবাক হয়ে গিয়েছিল।যার কারনে সে সময় বহু ভিন দেশী জনদরদী মানবতা মানুষগুলো [ বিস্তারিত ]
দেশের সরকারী বেসরকারী হাসপাতালগুলোতে গেলে বুঝা যায় রোগীরা এক শ্রেণী অসাধু নামদারী ডাক্তার আর দালালদের নিকট জিম্মি।অসহায় রোগীর স্বজনরা অসহায়ের মতন চাতক পাখির মতন চেয়ে থাকেন কখন নির্দেশ আসে এ টেষ্ট করো ঐ টেষ্ট করো এখানে করো ঐখানে করো যেন এক প্রকার বাধ্য হয়েই ডাক্তাদের পরামর্শ মত রোগীর সকল টেষ্ট পরীক্ষাগুলো করাতে হয়।আর এর জন্য [ বিস্তারিত ]
কোটা বাতিল নিয়ে দেশব্যাপী অনেক তুলকালাম হলো! সব ধরণের কোটা বাতিল করে গতকাল পরিপত্রও জারী হলো। এতে করে মুক্তিযোদ্ধা কোটার পাশাপাশি আদিবাসী কোটা, প্রতিবন্ধী কোটাও বাতিল হলো। আর নারী কোটা না হয় এখনকার জেনারেশন দরকারই মনে করে না। যাহোক, অনেককিছুই হয়েছে, হবে কিন্তু দেশকে মুক্তিযুদ্ধের আলোকেই এগিয়ে নিতে হবে। আর দেশকে মুক্তিযুদ্ধের আলোকে নেতৃত্ব দিয়ে [ বিস্তারিত ]
যুদ্ধের ভয়াবহতা সর্বোত্র শুরু হয়ে গেল।যুদ্ধে গেরিলা বাহিনী নাপাকিদের ঢাকা ও নারায়ণগঞ্জ এর বিভিন্ন স্থাপনায় অতর্কিত আক্রমন করে নাপাকি সামরিক জান্তাকে ব্যাতি ব্যাস্ত করে তুলেন।বিদ্যুত কেন্দ্র,রেডিও টেলিভিশন অফিস,বড় বড় হোটেল,রেল ষ্ট্যাসন,বিপণী কেন্দ্র ইত্যাদি স্থাপনাতে গেরিলারা একের পর এক হামলা করতে থাকে তারই ধারাবাহিকতায় সিদ্ধিরগঞ্জ বিদ্যুত কেন্দ্রেও গেরিলা হামলার প্লান করেন গেরিলা মুক্তিযোদ্ধারা। নিউজ নারায়ণগঞ্জ বরাতে [ বিস্তারিত ]
বন্দর রেল লাইন অপারেসন: ডিসেম্ভর মাস বিজয় আসন্ন।মুক্তিযুদ্ধে বাংলার দামাল ছেলেদের সাথে পুরোপুরি যোগ দিলেন মিত্র বাহিনী ভারতের সেন বাহিনীরা।১৫ই ডিসেম্বর সকাল ১০ টায় এম.পি সিং এর নেতৃত্বে ৪টি গ্রুপ করে চার দিকে রেকি করতে বের হয়।প্রথম গ্রুপে নেতৃত্বে ছিলেন গিয়াস উদ্দিন বীর প্রতীকে,দ্বিতীয় গ্রুপে সাহাবুদ্দিন খান সবুজ ও এন.পি. সিংহের নেতৃত্বে, তৃতীয় গ্রুপে নেতৃত্বে ছিলেন- জি.কে [ বিস্তারিত ]
জন্ম ভুমি নিয়ে লিখছি বলে জন্মভুমির সৃষ্টির রহস্যটা লেখায় একটু না আনলে কি হয়।১৯৭১ সাল দীর্ঘ নয়টি মাসের সংগ্রামে রক্তে ভেজাঁ লাল সবুজের পতাকাটি বিশ্ব মানচিত্রে স্থান পায় যার নেতৃত্বে তিনি ছিলেন বঙ্গ বন্ধু শেখ মজিবর রহমান।ত্রিশ লক্ষ তাজাঁ প্রানের বিনিয়ে প্রায় দশ লক্ষাধিক মা বোনদের ইজ্জত বিলিয়ে আসে কাঙ্খিত বিজয়।খুব সম্ভবত বিশ্বে সম্ভ্রমহানীর এমন [ বিস্তারিত ]
প্রায় ৪ বছর ১০ মাস আগে প্রিয় সোনেলায় যখন আমার হ-য-ব-র-ল লেখা লিখতে শুরু করি তখন এই সোনেলার ভুমিহীন জমিদার আইডির মানুষটি Sm Wali Ullahসহ বেশ কয়েকজন প্রিয় মুখ আমার লেখার ধরণ,বানান ইত্যাদি সঠিক ভাবে প্রয়োগে অনেক সহযোগিতা করেছেন সে জন্য আমি কৃতজ্ঞ।সম্ভবত তার দু’এক বছর পর সোনেলার কোন এক আড্ডায় “ভুমিহীন জমিদার”আইডির এই সরল [ বিস্তারিত ]
রাজাকারদের প্রধান বিরুদ্ধ ঘটনা মুক্তিযুদ্ধ। তাদের ইচ্ছের প্রধান বাঁধা মুক্তিযুদ্ধ। মুক্তিযোদ্ধার বিপরিত শব্দই রাজাকার। ৭১ সনে এই মুক্তিযোদ্ধাদের হাতেই প্যাঁদান খেয়েছে রাজাকাররা। স্বাধীনতার পরে যে অপমান আর নিগ্রহের মাঝে দিন যাপন করেছে রাজাকাররা তা বর্ণনার অতীত। প্রবল প্রতাপশালী রাজাকার গং ৭১ এর ডিসেম্বর হতে ৭৫ এর মধ্য আগস্ট পর্যন্ত উরাশ এর মত জীবন যাপন করেছে। [ বিস্তারিত ]
“বাংলাদেশ” একটি নাম যার চার পাশেই তাজাঁ রক্তের বাউন্ডারী।পৃথিবীর ইতিহাসে এক মাত্র এ দেশেই হয়েছিল রক্তক্ষয়ী মাতৃ ভাষা আন্দোলন হয়েছে গণহত্যা আর ধর্ষণের সীমাহীন অত্যাচার।সেই অশুভ ছোবলের যুদ্ধ শিশু নন্দিনী একজন।জটিল অসুখটি ধীরে ধীরে শুভ লক্ষণের দিকে।সেই দিনের শাহবাগের সেই ধর্ষনের আন্দোলন চলছে তার সাথীরা সেখানে ছিলো।পাশা পাশি খুব শ্লোতে চলছিলো সরকারী চাকুরীর কোটা সংস্কার।হঠাৎ [ বিস্তারিত ]

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ