উদাসী দুপুর

সাবিনা ইয়াসমিন ২১ জানুয়ারী ২০২০, মঙ্গলবার, ০৪:১৮:৩৮অপরাহ্ন গল্প ১৫ মন্তব্য

– কি নাম তোর?

= নুরনাহার বেগম

– এ্যাহ! এত্ত বড়ো নাম! এই নাম ধরে যতক্ষণ ধরে ডাকবো, ততোক্ষণে আমার কাজ আমিই করে ফেলবো। শোন, আজ থেকে তোর নাম নুড়ি। মনে থাকবে?

প্রায় এক সপ্তাহ হলো এই নতুন বাসায় কাজ নিয়েছে নুড়ি। প্রথম যেদিন কাজ করতে এসেছিলো সেদিনই তার বাপ-মায়ের দেয়া নাম বদলে ফেলা হলো। সে কিছুটা কষ্ট পেয়েছিলো, কিন্তু কিছু বলতে পারেনি।

গরীব মানুষের নাম নিয়ে অতো আবেগী হলে চলে না, এটা তাকে পরিচিত অন্য বাড়ির আরেক গৃহ-পরিচারিকা বলেছিলো। তার নাম ফাতেমা, তাকে নাকি ঐ বাড়ির সবাই ফাতু নামে ডাকে।

এভাবেই পাঁচ/ছয়দিন কেটে গেলো। বাসায় শুধু ম্যাডাম থাকে। তার হাজব্যান্ডকে মাত্র একদিন রাতে বাড়িতে আসতে দেখেছিলো। এছাড়া কোনো মেহমান অতিথি কেউ আসে না এ বাসায়। ফাতুর কাছে শুনেছে, ম্যাডাম নাকি তার আগের সন্তান-সংসার ফেলে এই বিয়ে করেছে। স্যারেরও আরেকটা ফ্যামিলি আছে।

ম্যাডাম আজ দুপুরেও নুড়িকে অনেক খাবার খেতে দিয়েছে। ম্যাডাম রোজ অনেক রান্না করে। স্যার প্রতিদিন ফোন করে জানায় সে দুপুরে খেতে আসবেন। কিন্তু সে আর আসে না। ম্যাডাম অনেক শখের রান্না করা খাবার গুলো তাকে দিয়ে দেয়। আর মুখে বলে এগুলো তুই নিয়ে যা, আমি খাবো না। আজ মনটা উদাস হয়ে আছে। আজকের দুপুরটা উদাসী দুপুর। তারপর বারান্দায় গিয়ে গুনগুন করে গান গাইতে থাকে।

নুড়ি এসব কথা বুঝতে পারে না। সে ক্ষুধার্ত হাতে গরম ভাতের সাথে নুন-তরকারী মেখে খাওয়া শুরু করে। খেতে খেতে ভাবে,

– দুপুর আবার উদাসী হয় নাকি! উদাস হয় মানুষের মন। তাও পেটের জ্বালায় । পেট ভরে খেয়ে একটু ঘুম দিলেই তো মনটা এক নিমিষেই ভালো হয়ে যায়…

২৬৭জন ১২৫জন
41 Shares

১৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য