দেশের দু-একজন পীর সাহেবদের বার্ষিক ওয়াজ মাহফিলে অথবা বড় বড় নামকরা মাওলানা সাহেবদের উপস্থিতিতে ওয়াজ মাহফিলে কিছু ভক্ত হাজির থাকেন। ওয়াজ শুনতে শুনতে তাঁরা আল্লাহর প্রেমে এতই ‘ ইশকে দিওয়ানা ” হয়ে পড়েন যে , কেউ বাঁশ ধরে ঘুড়তে ঘুড়তে চিৎকার দিয়ে ওঠেন , আবার দু-একজন নিজ স্থানে দাঁড়িয়ে চিৎকার দিয়ে ওঠেন। মাহফিলে আগত অন্যান্য ধর্মপ্রাণ মানুষজন এতে পুলক এবং শোকরিয়া আদায় করেন, এই ভেবে যে- তাঁদের উপস্থিতি সার্থক এবং মাওলানা সাহেব অত্যন্ত বুজুর্গ।

এই ইশকে দিওয়ানা গন গ্রামের মানুষ। তাঁরা বিভিন্ন পীরের মুরিদ হিসেবে পরিচিতি লাভ করেন। প্রায়ই তাঁরা হঠাৎ এমন ইশকে দিওয়ানা হয়ে নারকেল , আম , জাম , লিচু গাছে উঠে পরেন। ‘ জজবা হালতে ‘ থাকেন তখন তাঁরা ।

এনারা কিন্তু কখনোই কাঁটাযুক্ত গাছে ওঠেন না। প্রশ্নটা এখানেই, কেনো তাঁরা ইশকে দিওয়ানা হয়ে খেজুর গাছে ওঠেননা ? বা মান্দার গাছে ওঠেন না ? তাঁদের তখন যে অবস্থা তা তো বেহুঁশ অবস্থা, দৌড় দিয়ে কাটা হীন গাছ খুঁজে নেয়ার মত হুশ তো তাঁদের তখন থাকে না।

আসল কারন হচ্ছে, এরা ভাড়াটে লোক। বেশী বুজুর্গ প্রমাণের জন্য পীর সাহেবরা এদের দিয়ে ইশকে দিওয়ানার অভিনয় করান। খেজুর গাছ বা মান্দার গাছ একারনেই তারা এড়িয়ে চলে।

সবার জন্য শুভ কামনা।

৩৪০জন ১৭৮জন
0 Shares

২৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য