ছাইরাছ হেলাল

লেখালেখি আমার কম্ম নয় - সে আমি বুঝেছি জেনেশুনে বেশ আগে এবং ভালভাবেই, তবে পাঠক হওয়ার অদম্যতা দমনে অপারগ আমি বরাবরই......

  • নিবন্ধন করেছেনঃ ৬ বছর ১১ মাস ১১ দিন আগে
  • পোস্ট লিখেছেনঃ ৪৮২টি
  • মন্তব্য করেছেনঃ ১৩০৮৮টি
  • মন্তব্য পেয়েছেনঃ ১৫৪৩৮টি

মিলন-যুদ্ধের পুষ্প বিলাস

ছাইরাছ হেলাল ১৬ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার, ১০:১১:৫১পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৯ মন্তব্য
  নির্ঘুমের প্রত্যাশায় জেগে আছি আজ-ও, বলেছিলে আসবে, এই হেমন্তে; শতবর্ষের ক্লান্তি নবায়ন করে করে প্রত্যাশার তাঁত বুনে বুনে অদৃষ্টের নিকুচি করে, জয়-পরাজয়ের বনেদি হিসাব পাশে ফেলে, নকশা-তোলা হাতের তালুতে ভাঁজ খোলা কবিতা-স্পর্শ-পল্লব দেখব বলে; নিঃশব্দে মিলিয়ে যাবে একাকীর একাকীত্ব কবিতার নিগূঢ়-নিয়ম নিঃশ্বাসে, স্পর্শ কাতর মধুচন্দ্রিমার-মৌমাছি-গুঞ্জনে, বিষাক্ত হুলের আলোর ঝলকানিতে, ভয়-শূন্যের ব-দ্বীপে; যোজন যোজন দূর [ বিস্তারিত ]

নির্বাণ প্রত্যাশা

ছাইরাছ হেলাল ১৪ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১১:২৪:৩৭পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৬ মন্তব্য
  অ-ঘুমের স্থূল শরীরী নিশীথ-স্বচ্ছ-স্বপ্ন হৃদয়ান্তরালে কানাকানি করে, ছুটে আসে ছায়া-কায়াহীন ভাবে দলে দলে; সঞ্চারিত হয় না অতীন্দ্রিয় চক্ষু চেতন অবচেতনে, নির্বাণ প্রত্যাশায়, স্মৃতি-বিস্মৃতির পাতালে। হেমন্ত হাওয়ার আমন্ত্রণে দাঁড়িয়ে আছি নির্লিপ্ত প্রাঙ্গণে অনাত্মীয়তার দায় নিয়ে, অনুর্বর পরাভবে; হে সত্য, আলোকিত কর আমার তীব্র অনুজ্জ্বলতা জোনাক-জ্বলা রাত্রিতে জোনাকির ভালোবাসায়।

হেমন্তের শিশির

ছাইরাছ হেলাল ১১ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার, ০২:৫০:৪৮অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৬ মন্তব্য
  শিশির-বেলা দিঘলতর সোনা-ফসলের ক্ষেত জুড়ে, ঢেউ বয়ে যায়, মুহূর্ত-উৎসবের অবিস্মৃতিপ্রবণ মশগুলতায়; পরীদের সাথে, এ যেন প্রতীতি হেমন্তের উত্তরাধিকার। সংশয়ী স্বাপ্নিক মগ্নতার সন্তাপহীন আনন্দ-স্রোত অনবরত ছুঁয়ে যায় কৃষকের সোনালী শয়ান, অপারঙ্গমতার আত্ম পরিচয় ভুলে একান্নবর্তী হেমন্তের-কৃষক পরিবারে আজ বিজেতার সচ্ছলতা। নূতন ধানের গন্ধ-মেঘে সেজেছে সে প্রণয়ীর বেশে অন্তরে বেঁধেছে বাসা ভালবাসার, ভালবাসিবার তরে দূর থেকে [ বিস্তারিত ]
  হেমন্তের উঁকি দেয়া কৃষক মেলায় এ-সময়ে এই অসময়ে, এই অবেলায় কী চাই! কী চাও! বুলবুল! শ্মশান যাত্রীর বেশে লৌহ-হুঙ্কার এঁকে পেঁজা মেঘের নীল আকাশ জুড়ে, কৃষ্ণ-মেঘের ডানা মেলে, বুকে আঁকা মৃত্যুর-তাণ্ডবে ডাকিনীর সেজে/বেশে বর্তিকা-বিদ্যুতের আস্ফালনে; কৃষক-শিশুর ভেসে আসা আর্তনাদ মুহুর্মুহু রুপালী-তীরের ফলক হয়ে তোমার ঐ কঠিন বুক ভেদ করে না? ফিরে যাও হে খামখেয়ালি [ বিস্তারিত ]

পরীদের ধানসিঁড়িতে

ছাইরাছ হেলাল ২ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার, ০৩:৪১:৪৪অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩০ মন্তব্য
  হঠাৎ খুলে যাওয়া স্বর্গদ্বার থেকে হেমন্ত-পরীরা বেড়িয়ে আসছে,দলবেঁধে, বিলম্বিত লয়ে নূপুর-তালের আলতো পায়ে, আনন্দ-শিহরণের ধানসিঁড়িটির তীরে; কুয়াশা-প্রতিম শব্দ-শূন্যের এই সিক্ত প্রভাতে পুষ্পক রথ হেলায় ঠেলে ফেলে; মিলন-যুদ্ধ নয়, প্রাণের মিলন-মেলা, অপলক নেত্রে শুধুই তাকিয়ে থাকা/চেয়ে থাকা, ভাষাতীত আকস্মিক উন্মাতাল অনুভবে; উধাও আচানক শহুরে কাব্যিক মায়াজাল অভিবাসী চোখ শুমারি ভুলে সশব্দ-স্থবিরতায় স্মৃতির-সূচকে কবিতায় শুধুই ভাবে, [ বিস্তারিত ]

হেমন্তের উৎকণ্ঠা

ছাইরাছ হেলাল ৩১ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৫:১৪:১৩অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৬ মন্তব্য
  “বৃষ্টির জলের দাগ মুছে গেছে একদিন সকালের রোদে।” রুদ্র। চকিতে দেখতে পাবে/শুনতে ও পাবে নিস্তব্ধতার তীব্র দীর্ঘ নিঃশ্বাস, প্রখর রৌদ্র-চঞ্চলতার শেষহীন ব্যাকুলতা অচঞ্চল ফসলের মাঠ জুড়ে, মৌন হৃদপিণ্ডের শেষ আক্ষেপে; ইঁদুর এখন নিয়ে যাচ্ছে/নিয়ে নিচ্ছে বুক জুড়ে মুড়ে রাখা/থাকা সোনা সোনা ফসল; ছিল না এখানে কোন উদ্ধত যমদূত, নীরবে নিরবধি কাল বয়ে যাওয়া বাঁক-হীন [ বিস্তারিত ]

একটি দুপুর ও তার গল্প-নামা

ছাইরাছ হেলাল ৩০ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, ০৫:১৩:২৪অপরাহ্ন গল্প ২০ মন্তব্য
  রিক্সা থেকে নেমে একটু হোঁচট মত খেলাম,খুব সাধারণ হোটেল জেনে-ই এসেছি,তা-ও,বন্ধুর (ছোট ভাইয়ের মত)সাথে। চো চো পেটে, দুপুরে। খুব-ই অপরিসর তবে পরিচ্ছন্ন, সাকুল্যে দু’টি প্লাস্টিকের টেবিলে মোট আট-টি চেয়ার নিয়ে এই ভাতের হোটেল। প্রায় মানবহীন গলিতে। অনেকটা হিন্দুস্তানি ধাবা স্টাইল। একটি টেবিল খালি হতেই দ্রুত জায়গা নিলাম, কিউ আছে যেহেতু। আমি, বন্ধুটি, আমাদের রিকশাওয়ালা [ বিস্তারিত ]

সোনা-ধানের মাঠে

ছাইরাছ হেলাল ২৭ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, ১০:০০:৫৬অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩১ মন্তব্য
  এই যে চকিতের অজস্র বৃষ্টিতে ডুবে গেল, হোঁচট খেল, কত শত জলের-বাড়ি, অবোধ মনের অজ্ঞাতসারে; দুলতে থাকা ম্লান কাশফুলের দীর্ঘশ্বাসে শব্দহীন স্তব্ধতা নেমে আসে, নিঃসঙ্গতার অন্ধকারে, নিঃশব্দতার সরব মুহূর্তের অবিরাম পদক্ষেপে; স্বপ্ন-আঁকা স্তিমিত অলস চোখ চেয়ে থাকে নির্ঘুম প্রতীক্ষায়, উর্বর রক্তিম ঠোঁটের নির্ভীক আভাসে; ক্লান্ত-অতৃপ্ত-রাত্রি বিষণ্ণ মুখে শিশির ভেজা সকাল খোঁজে প্রাণপণে, কাঁচা-সোনা রোদে [ বিস্তারিত ]

হেমন্তর বিরহী ক্রন্দন

ছাইরাছ হেলাল ২৬ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার, ০৯:২৪:৩৭অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৫ মন্তব্য
  হেমন্তের আনন্দ-দেহে এ কোন্‌ বিরহ ক্রন্দন! নিমেষে-নিমেষে ক্ষণে-ক্ষণে কেঁদে যাওয়া,কাঁদাকাটা; ব্যথা-লজ্জার অপঘাত অভিঘাতে দুর্বোধ্য বেদনার স্ফুটনে আবেশে ডুবেছো ডুবায়েছো নিদ্রাহীন ছায়া পথের মায়া বিভ্রমে; হিরণ্ময় প্রেম-অমৃত-অভিলাষী হেমন্ত, নিত্য সুন্দরের বার্তা নিয়ে নবান্নের কানে কানে কী বল? পৃথিবীর ঐ শেষ সীমায় রূপকথার রাতে,হঠাৎ-ব্যথায়, ভালোবাসি ভালোবাসি? আদিম রাতের বেণীর-ফাঁদে? নিঃসঙ্গতার ভাঁজ-ভাঁজ ছদ্মবেশে? চাঁদের প্রেত-রাতে? কবিতার উন্মুখ [ বিস্তারিত ]

বর্ষা-বিষণ্ণ হেমন্ত

ছাইরাছ হেলাল ২৫ অক্টোবর ২০১৯, শুক্রবার, ০৭:০২:১৫অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩২ মন্তব্য
  হেমন্ত! এ কোন্ ক্রমাগত ঝরে পড়া,অক্লান্ত বিষণ্ণতা,এ-বেলায়,ও-বেলায়,অবেলায়! অহেতুক আটকে পড়া, আটকে যাওয়া, দিনান্তে-ও;হৃদয়ে কাঁপন জাগে হিম-বাতাসে, সান্নিপাতি বা ওলাওঠা না হোক, সামান্য গা-গরম তো হতেই পারে, বুকে নিমুউনিয়ার ডাক না হয় বাদ-ই দিলাম! এ-কী!দিনান্তে একটু তাড়িয়ে/নাড়িয়ে মজা দেখা/মজা নেয়া! দেখ্ এবার,কত বড় ‘ক’! নাকি গভীর কোন ষড়যন্ত্র! ফেলে রাখা ফেলে যাওয়া, কাঁচাপাকা ফসলের মাঠে, [ বিস্তারিত ]

নবান্ন এসেছে দ্বারে

ছাইরাছ হেলাল ২৩ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, ১২:২৫:১৯অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩০ মন্তব্য
  কাঁচা-পাকা অরণ্য-ধানের ঘ্রাণে দগ্ধ-রৌদ্রের ডানা মেলে ছুটে আসে পতঙ্গকুল, মৌ-গুঞ্জনে; নিরাল রাতের স্বপ্ন-জোনাকি নিভু নিভু করে জ্বলে, এই হেমন্তে, কাঁপাকাঁপা হৃদয়ের মসৃণ-ধ্বনি প্রতিধ্বনি তোলে, বিষণ্ণ-হৃদয়ের দীর্ঘ-দেয়াল জুড়ে; ছোট্ট বুনো-মৌমাছির নীল-গুঞ্জন নিরন্তর শুনি, উদাসী দুপুরের প্রাণের নিখিলে; দোল খাওয়া সোনা-ধানের বনে আগুনের শিখা হাওয়ায় ভাসে, এক ফোঁটা মেঘ একটু ঝুম বৃষ্টির ঝলকে ফিরে আসবে উজ্জ্বল [ বিস্তারিত ]

এসো হেমন্ত এই নবান্নে

ছাইরাছ হেলাল ২০ অক্টোবর ২০১৯, রবিবার, ০৬:৩৩:১৭অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৭ মন্তব্য
  প্রবল প্রত্যুষে হেমন্তের সোমত্ত-সোনালী-চাঁদ পশ্চিম আকাশ জুড়ে ম্লান আলো ফেলে রেখে জানলা জুড়ে এসে দাঁড়ায়! নবান্ন যে এসে গেল দোর গোঁড়ায় সোনালী ধানে ছেয়ে যাচ্ছে সারা প্রান্তর; শিশিরের ঘ্রাণে, উৎসবের আহ্বানে, উঠবে আঁটি আঁটি সোনা সোনা ধান, সুস্বাদু অন্ধকার এড়িয়ে এসে দাঁড়াবে এ সোনালী আঙ্গিনায় চোখে চোখ ঘসে; হে আজন্ম কৃষক, এসো এ নবান্ন-প্রাণের-উৎসবে। [ বিস্তারিত ]

হেমন্ত! এলে তাহলে!

ছাইরাছ হেলাল ১৬ অক্টোবর ২০১৯, বুধবার, ০৫:২৪:৩৭অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৮ মন্তব্য
  রজনীগন্ধার আড়াল নিয়ে কোন এক চেনা/অচেনা সৌরভে ভেসে ভেসে এলে! স্তব্ধের গভীরতায় গভীর হেমন্ত সকালে; শিশিরে শিশিরে আগলে রেখে, ঘাস ফুল আর মৌ-গুঞ্জনে; এ কোন্ নিঃশ্বাস-বিবশ সকাল! এ কোন্‌ সোনা-রোদ-ঝলক! চকিত মুহূর্তের নিস্তব্ধতায় এঁকে দিলে এ কোন্‌ উদ্ধত নরম শব্দহীন রক্তাক্ত-স্নান! এক জলজ্যান্ত ক্লান্ত-সুখ-স্বপ্ন, মহুয়া-গন্ধে ঘুমহীনের জীর্ণ অন্ধকার-রাত শেষে;

অবসন্ন শরৎ

ছাইরাছ হেলাল ১৫ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ০৫:২১:১৪অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৮ মন্তব্য
  স্বাদ আসা দেহ-প্রাণ এখন নুইয়ে পড়েছে পাড়াগাঁয়ের পথে পথে, শহরে শহরে-ও শ্রান্ত-ক্ষান্ত উৎসব শেষে; আবার আসবে সে উৎসব এলে জোয়ারের উঠোন পেলে ঝরে পড়া রূপ নিয়ে; উৎসব আজ বিকলাঙ্গ প্রায় দুরন্ত সিঁদুরের ফলন্ত শরীরী ঘ্রাণে আহ্লাদ হাসে না, বিবস্ত্র অবসাদে ঢেকে ফেলেছে সাধের ভাঁড়ার ঘর। হে নক্ষত্র রাত ফিরে এসো আবার আনকোরা অনাকার হেমন্ত-হাওয়ার [ বিস্তারিত ]

শরৎ যন্ত্রণা

ছাইরাছ হেলাল ১২ অক্টোবর ২০১৯, শনিবার, ০৯:৩৫:২১অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩০ মন্তব্য
  ঘুম-চোখ চেয়ে আছে কত রাত অব্দি! চেয়ে-চেয়ে দ্যাখে, নক্ষত্র রাত, নক্ষত্রের রাত, ঐ দূর পানে, যদি খসে পড়ে দু’একটি তারা; টের পাই রাত-পাখির-ডানা; ঘুমিয়ে থাকি চোখ মেলে, অবশ-বিবশ-ঘুম-চোখে। মনে পড়ে, মনে পড়ে; এই তো সেদিন, সেদিন; সুস্থ-সবল হৃদয়ে ঘুমেরা নোঙর ফ্যালে, নোঙর ফেলে রাখে, দিনে, রাতে, স্নিগ্ধ রূপসী স্বাদে, মিহি হিমের জাঁকালো কাশফুল শরতে, [ বিস্তারিত ]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য