রূপোলী দেয়াল

সুরাইয়া পারভীন ৬ মে ২০২০, বুধবার, ০৫:৩৭:০৪অপরাহ্ন চিঠি ২৫ মন্তব্য

প্রিয় সমুদ্র,

পথের শেষ প্রান্তরে রূপোলী যে দেয়ালটা তুমি আমার নামে করে দিয়েছিলে সেই দেয়ালটায় আমার ভালোবাসার ক্যানভাস ছিল। আমার স্বপ্ন আঁকার ক্যানভাস ছিল। কত রঙ বেরঙের স্বপ্নরা যে জায়গায় পেয়েছিল সেই ক্যানভাসে। সুযোগ বুঝে আমিও তখন মনের মাধুরী মিশিয়ে অজস্র রোমাঞ্চকর স্বপ্ন-ছবি এঁকে রেখেছিলাম। ভাগ্যিস রেখেছিলাম!

জানো, রূপোলী ক্যানভাসে আঁকা সেই ছবি গুলো আজ জীবন্ত হয়ে সারাক্ষণ আমার সাথে কথা বলে। ছবি গুলো এতটায় জীবন্ত যে আমাকে একটা বারের জন্যও অনুভব করতে দেয় না তোমার অনুপস্থিতি। বুঝতেই দেয় না কখনও তোমার শূন্যতা। এই যে তুমি নেই তবুও মনে হয় তুমি আছো। কতদিন কথা হয়নি তবুও মনে হয় চব্বিশ ঘন্টায় কথা হয়/হচ্ছে/হবে। তাহলে তোমার কাছে আসা না আসা, কথা বলা না বলায় কী এমন যাবে আসবে বলো?

জানো তোমাকে নিয়ে আঁকা স্বপ্ন-ছবি গুলো রঙিন প্রজাপতির মতো ছুটে বেড়ায় এদিক সেদিক, সারাক্ষণ মাতিয়ে রাখে আমাকে। তাই তো তোমাকে হারিয়ে ফেলার দুঃস্বপ্নরা কিছুতেই কাঁদাতে পারে না আমায়। তোমার জন্য হৃদয়ের বাম অলিন্দে সযত্নে সাজিয়ে রেখেছিলাম যে ভালোবাসা, সেই ভালোবাসায় আজ পরম আদরে জড়িয়ে রেখেছে আমায়। তাহলে তোমার ভালোবাসা পাওয়া না পাওয়ার কী এমন যন্ত্রণা দেবে বলো?

তোমার প্রতি একটু একটু করে মনের কোণে অভিমান জমে যে বিশাল পর্বত আকার ধারণ করেছিল, সেই অভিমান গুলো আজ আমার প্রিয় হয়েছে। শুধু প্রিয় নয় ভীষণ প্রিয় হয়ে মিশে গেছে আমার পুরো অস্তিত্বে। তাই তো অভিমানী অশ্রুরা কপোল ছুঁয়ে গড়ায় না আর যখন তখন। তোমার জন্য ঝরে না আর অকারণ। তাহলে তোমার দূরে থাকা না থাকায় কী এমন  পোড়াবে বলো?

পথের শেষ প্রান্তরে রূপোলী যে দেয়ালটা তুমি আমার নামে করে দিয়েছিলে চাইলে তা ফিরিয়ে নিতে পারো।  আমার নামে করে দিয়েছিলে বটে তবে তা রেজিস্ট্রেশন করে নয়। তাই অনায়াসে ওটার দখল নিতে পারো। আর যাকে খুশি দান করে দিতে পারো। ভালো থেকো।

ইতি,

রূপোলী দেয়ালের অস্থায়ী কেয়ারটেকার।

৪৭৪জন ২৩০জন
60 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য