সবাই যদি অপেক্ষায় থাকি তবে এ জীবনেও আর
ব্লগার্স-প্রোফাইল লেখার যে উদ্যোগ নিয়েছেন ব্লগ কতৃপক্ষ সেটা সফল হবে বলে মনে হয় না।  তাই লেখা শুরু করা উচিত মনে করে লিখতে বসলাম। কাউকে না কাউকে তো এগিয়ে আসতেই হবে।

-ব্লগার্স-প্রোফাইল! তুমি লিখবে?
~হ্যাঁ লিখবো।
-সত্যিই!
~তো কি মিথ্যে বলছি?
-বাপ্রে! পারবে?
~ দেখিই না চেষ্টা করে।
-বেশ তো। কাকে নিয়ে লিখবে?
(নিজের সাথে নিজের কথোপকথন)

ব্লগার্স-প্রোফাইল লিখতে বসেছি।  কিন্তু কাকে নিয়ে লিখবো তা ভাবতে ভাবতেই হঠাৎ করে যে নাম চোখের সামনে ভেসে এলো তা দেখে আমি নিজেই চমকে উঠলাম, বাব্বাহ সাহস তো কম নয়! একি শুধুই সাহস! ভয়াবহ দুঃসাহস বলতে এক মূহূর্ত বিলম্বিত হলো না। দুঃসাহস হোক বা ভয়াবহ দুঃসাহস, আমি লিখবো তাঁকেই নিয়ে যাঁর কবিতার পাঠ উদ্ধার করতে গিয়ে নাকানিচুবানি খেতে হয়। কয়েক বার পাঠ করতে হয় এবং খুঁটিয়ে খুঁটিয়ে প্রতিটি শব্দ মস্তিষ্কে গেঁথে নেওয়ার চেষ্টায় থাকি।  কোনো রকমে একবার তাঁর কবিতার পাঠ উদ্ধার করতে পারলে যা তৃপ্তি পাই তা আর বলে বোঝানো যাবে না। তাঁর লেখা আমার কাছে যতোই কংক্রিটের মতো শক্ত মনে হোক না কেনো তবুও তা চম্বুকের মতো আকৃষ্ট করে আমাকে। বার বার পড়তে ইচ্ছে করে। আর মন্তব্য করতেও। তাই অনেক সময় না বুঝেও বোকার মতো মন্তব্য করে বসি। আর সেই বোকা বোকা মন্তব্যের যখন প্রসংশা পাই তখন কি যে আনন্দিত হই। একজন লেখকের স্বার্থকতা তখনই হয় যখন তা কোনো পাঠককে চুম্বুকের মতো আকৃষ্ট করে। সে হিসেবে উনি অবশ্যই একজন স্বার্থক লেখক

এতোক্ষণে হয়তো সবাই বুঝে গেছেন কোন ব্লগারের কথা বলছি। হ্যাঁ ঠিক ধরেছেন। শতসহস্র শব্দ ভাণ্ডার যাঁর দখলে, ইস্পাতের মতো শক্ত শব্দ যাঁর কাছে পানির মতো সহজ, কথায় কথায় যিনি কবিতা লিখতে পারেন, যাঁর লেখা পড়তে বাংলা অভিধানও অনেকে সাথে রাখেন, যিনি কবি’র রাজা নামে সুপরিচিত সমস্ত ব্লগারদের কাছে তিনি আমাদের কবিতার রাজা ব্লগার ছাইরাছ হেলাল । আর উনি হলেন ব্লগের মহারাজ” এ উপাধি সোনেলা ব্লগ দিয়েছেন তাঁকে।

এবার আসি তাঁর প্রফোইলে। শুরুতেই তিনি লিখে রেখেছেন
‘লেখালেখি আমার কম্ম নয় – সে আমি বুঝেছি জেনেশুনে বেশ আগে এবং ভালভাবেই, তবে পাঠক হওয়ার অদম্যতা দমনে অপারগ আমি বরাবরই।’

এখন অব্দি ব্লগে তিনি ৭২১ টা লেখা লিখেছেন। কি জানি আরও কতো কতো কবিতা রয়েছে তাঁর তার ডায়রীতে, নোট প্যাডে, মস্তিষ্কে! অথচ তিনিই লিখে রেখেছেন লেখালেখি তাঁর কম্ম নয়- এতেই বোঝা যায় তিনি কতো বড় মাপের কবি/লেখক।

তিনি কেবল দুর্দান্ত লিখেন তাই নয়, সবসময় চমৎকার মন্তব্য দানে আরও আরও বেশি উৎসাহিত করেন আমাদের মতো ক্ষুদ্র ব্লগারদের। আমরা সবসময়ই উনার থেকে উৎসাহিত মন্তব্যে পেয়ে একটু একটু করে সাহস পাই লেখার। আমি যখনই কোনো পোস্ট করি তখনই উনার মন্তব্যের জন্য অপেক্ষা করি। কারণ তাঁর মন্তব্য পেলে তবেই যেনো মনে হয় লেখাটা লেখা হয়েছে। উনি সবার পোস্টেই মন্তব্য করেন। ইতোমধ্যে ২১৪১৫ মন্তব্য করেছেন। একজন লেখক এবং লেখক তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছেন তিনি। সাহিত্য চর্চাতে ব্লগের  কয়েকজন ব্লগারকে আমার আদর্শ মানি। তার মধ্যে উনার অবস্থান সবার উপরে। আমাকে যদি কেউ বলে কার মতো লেখতে চান? আমি একবাক্যে বলে দেয় ব্লগার ছাইরাছ হেলালের মতো লিখতে চাই। এমন অনেক মন্তব্যের প্রতি-মন্তব্যে লিখেছি আমার তখনই নিজেকে লেখক মনে হবে যখন তাঁর লেখা গটগট করে পাঠ উদ্ধার করতে পারবো আর এমন করে লিখতে পারবো। উনার কবিতা পড়ে বুঝতে পেরেছি সহজ সাবলীল কবিতা পাঠে যতোটা আনন্দিত হয় মন, তার চেয়ে কয়েকশ গুন বেশি আনন্দ হয়/পাই কঠিন কঠিন শব্দের জালে জড়ানো কবিতা বুঝে।

উনার মতো একজন লেখকের সান্নিধ্য পাওয়াকে আমার জীবনের পরম পাওয়া মনে করি সবসময়। উনার সাথে কথা বলার, অনেক সুন্দর সুন্দর কথা শোনা, একসাথে খাবার খাওয়ার সৌভাগ্য হয়েছে কেবল সোনেলাতে এসেই। এজন্য অবশ্যই কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা রইলো আমার সোনেলার জন্য❤️❤️

এমন একজন লেখকের লেখা সম্পর্কে যথার্থ যোগ্য শব্দ আমার জানা নেই তবুও তাঁর ব্লগার্স-প্রোফাইল সম্পর্কে লেখার যে ধৃষ্টতা দেখিয়েছি তা সত্যিই দুঃসাহসের বটে। যদি কোন ভুল হয়ে থাকে তা অনাকাঙ্ক্ষিত। আর এই অনাকাঙ্ক্ষিত ভুলভ্রান্তির  জন্য ক্ষমা প্রার্থী🙏🙏

৩১২জন ১০১জন
0 Shares

৩১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ