খাসিয়া জৈন্তা পাহাড়ের পাদদেশে অবস্থিত সিলেটের জাফলং  সারাদেশে এক নামে পরিচিত । পিয়াইন নদীর তীরে এর অবস্থান ।  সীমান্তের ওপারের পাহাড় টিলা, ডাউকি পাহাড় থেকে অবিরাম ধারায় প্রবাহমান জলপ্রপাত, ডাউকি ব্রীজ, পিয়াইন নদীর স্বচ্ছ  পানি, পাহাড়ে ঘন সবুজ গাছ , সব কছু মিলিয়ে এলাকাটি পর্যটকদের কাছে বেশ প্রিয় একটি স্থান।

সিলেট থেকে  বাস , মাইক্রোবাস , সিএনজি চালিত অটোরিক্সায় যাওয়া যায়  জাফলং । ৬২ কি:মি: দূরত্বে দেখতে পাওয়া যাবে  সড়কের  দুপাশের নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য । সময় লাগবে ১ ঘন্টা হতে ১.৩০ ঘন্টা।

ভাড়াঃ বাস -জনপ্রতি ৫৫ টাকা , মাইক্রোবাস- ১৭০০-২০০০/-টাকা , সি এন জি চালিত অটো রিক্স্রাঃ ৭০০/ টাকা। আমি গিয়েছিলাম একটি প্রাইভেট কারে , ভাড়া নিয়েছিল ১৬০০ টাকা , সারাদিন। মাঝে গোয়াইন ঘাট থেমেছিলাম চার ঘণ্টার জন্য – গিয়েছিলাম লালাখাল।

সবার জন্য থাকার তেমন ভালো ব্যবস্থা ওখানে নেই। জেলা পরিষদের একটি ডাকবাংলো আছে- আগে থেকে অনুমতি নিতে হয় । তাই সিলেটে থাকাই সবচেয়ে ভালো।

কিছুদিন আগে খুব স্বল্প সময়ের জন্য গিয়েছিলাম জাফলং । লালা খাল এ সময় কাটিয়েছি বেশী।

জাফলং এর কয়েকটি ছবি

জাফলং এর পথে তামাবিল এর ঠিক আগেই এই পাহাড়ি ঝর্না দেখা যাবে

 

চিকচিক করা নদীর পানি এবং সবকিছুতেই শুধু মুগ্ধতা

 

ভারত থেকে পাহাড়ি পানিতে ভেসে আসা পাথর , সারা বছরই জমে থাকে এই নদীতে । মুলত এই পাথর উত্তোলন ও বিক্রিকে কেন্দ্র করেই এই স্থানটি সবার নজরে আসে।

 

সৌন্দর্যের লীলাভূমি

 

পাথরের জন্য অপেক্ষমাণ সারিসারি নৌকা

 

ইচ্ছে করলে আপনি নদী পার হয়ে ওপারেও যেতে পারেন , ঘুরতে পারেন ইঙ্গিন চালিত নৌকায়

৫৯৪জন ৫৯৪জন
0 Shares

১৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য