একটু ভেবে দেখবেন কি?

তৌহিদ ১০ জুলাই ২০২০, শুক্রবার, ০৮:৫১:৫৮অপরাহ্ন সমসাময়িক ২৩ মন্তব্য

দুর্নীতি প্রতিরোধ নিয়ে বর্তমানে প্রশাসন এবং অনলাইন এক্টিভিস্টদের নড়নচড়ন চোখে পড়ার মত। আমি বিশ্বাসকরি এটা চালু থাকলে নিকট ভবিষ্যতে দুর্নীতিবাজ লুটেরাদের দিন ঘনিয়ে আসছে নিশ্চিত। তবে অনলাইনে অনেকে দেশকে নিয়ে বিরুপ মন্তব্যও করছেন। দেশ নিয়ে আজেবাজে কথা শুনতে আমার ভালো লাগেনা। আমি বুঝিনা তারা কি ইচ্ছেকৃত দেশকে হেয় প্রতিপন্ন করে নাকি না বুঝেই এসব করে?

দেশ থেকে দুর্নীতি একদিনেই প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। যুগে যুগে দুর্নীতির যে বীজ বপন হয়েছে তার শেকড়সহ গাছটিকে উপড়ে ফেলা অনেক কষ্টসাধ্য ব্যাপার। তবে সম্ভব তখনই যখন আমরা একটা নির্দিষ্ট ছকে এগোবো। হাম্বিতাম্বি করে কিছুই হয়না। আজ একজন ধরা পড়লো সবাই চিল্লাফাল্লা করলাম, দু’দিন পরে সবাই চুপ মেরে গেলেন আবার, আসলে এভাবে হবেনা। ফলে যারা স্বার্থবাজ সুযোগসন্ধানী তারা সুযোগ পেয়ে যায় বাঁকা কথা বলার।

যারা এসব নেতিবাচক কথা বলেন তাদের উদ্দেশ্যে কিছু প্রশ্ন-

১. এদেশে দুর্নীতি বিরোধী টাস্কফোর্স আছে? – উত্তর হলো আছে।

২. এদেশে দূর্নীতিবাজরা সবসময়ই দলীয় পরিচয়েই দুর্নীতি করে এটা প্রমাণিত মানেন?- হ্যা মানি।

৩. যেকোন দুর্নীতিবাজ ধরা পড়ার আগ পর্যন্ত দলীয় নেতা, দেশের সাংবাদিক, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গোয়েন্দা সেল সহ সংশ্লিষ্ট সকলেই সব জেনেও কি এক অজানা কারনে নিশ্চুপ থাকেন। দুর্নীতিবাজদের পরিচয় জনসম্মুখে এলে তখন সকলেই সরব হয়ে ওঠেন কেন? – উত্তর নেই, জবাব চাওয়ার এবং জবাব দেয়ার এখতিয়ার আমার আপনার কারোরেই নেই। তাই আমরা নিশ্চুপ।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- দূর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স। তবে দেশ থেকে দুর্নীতি দূর করা খুব সহজ নয়। তিনি ঠিকই বলেছেন। আসলেও সহজ নয়, কারন হচ্ছে ৩ নম্বর পয়েন্ট। এর উত্তর পাবার জন্য প্রধানমন্ত্রী নিজেও দীর্ঘদিন অপেক্ষায় আছেন।

এখন বুঝতে পারছেন সমস্যাটা কোথায়? তাই নিজের আয়ত্বে থাকা নির্দিষ্ট জনবলকে আগে কলুষমুক্ত করার বিকল্প নেই। তবেই দুর্নীতিবাজদের জড় উপড়ে ফেলা সম্ভব। আমরা গলাটিপে ধরবো আর একদল এসে তাকে বাঁচানোর জন্য মুখে পানি তুলে দেবে তাতো হতে পারেনা।

এসব একটু ভেবে দেখবেন কি?

১৭৪জন ১৫জন
0 Shares

২৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ