সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

একদিন সব ঠিক হয়ে যাবে। পৃথিবীর অসুখ সেরে যাবে।সবুজ সমারোহে ভরে উঠবে প্রকৃতি। বিষাদিত বসন্ত বিষন্নতার সুর ছেড়ে আবার মেতে উঠবে কোকিলের মিষ্টি মধুর কহুতানে। হঠাৎ বুড়িয়ে যাওয়া বসন্ত আবার ফুলে ফুলে সেজে সেজে হয়ে উঠবে পূর্ণ যৌবনা। বৈশাখের আগমনে আম্রকাননে আবার শুরু হবে ভোমরের গুঞ্জরণ। পাকা ফলের মিষ্টি ঘ্রাণে আবার মৌ মৌ করবে মধুমাস।

ডাকপিয়নের পাতায় বুনো-ঋদ্ধি সিরিজে লেখা হবে না আর কোনো বিরহের চিঠি। বিরহী বুনো বিরহ ছেড়ে হয়ে উঠবে প্রিয়সী, লিখবে প্রেমের চিঠি। বুনোর অজস্র রোমাঞ্চকর শব্দে লেখা চিঠি পড়ে রোমাঞ্চিত হবে ঋদ্ধি। নতুন করে শুরু হবে বুনো ঋদ্ধির পথ চলা। অন্তহীন এ পথ চলায় ক্লান্তি আসবে না কোনোদিন।

শশীর আলোয় আলোকিত হবে আধাঁরে ঢেকে যাওয়া আকাশ। শশী পিয়াসী আকাশ ফিরে পাবে তার প্রাণের প্রিয় শশীকে। শশী ফিরে পাবে আর আকাশকে। ম্রিয়মাণ আকাশ হয়ে উঠবে প্রাণবন্ত। শুধু অন্ধকারে চাপা পড়ে রবে, অন্ধকারে জন্ম নেওয়া তমসাকন্যার করুণ আর্তনাদ। ক্ষণিক আলোর ছটায় তমসার চোখ ধাঁধিয়ে দেয় বটে তবে তা আলোকিত করে না তমসার জীবন।  তমসার জীবনে যে আলো আসতে নেই।

৫৪৫জন ৩৬৬জন
47 Shares

২৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য