প্রিয় গহীন অরন্য

উর্বশী ১২ আগস্ট ২০২০, বুধবার, ১২:৫৬:৫৪পূর্বাহ্ন চিঠি ৩০ মন্তব্য

প্রিয়  গহীন অরন্য,

স্বপ্ন ভরা ছিল রঙিন, আমি দেখেছি সেদিন ভালোবাসার তৃষ্ণা। দ্বাদশীর রাতে খুঁজেছিলাম তাকে সারাক্ষণ। মনের ভেতর যে জলছবি আঁকা, মুক্ত বিহংগের মত ডানা মেলে দূর আকাশে উড়ে।

ঘুমের মাঝেও কে যেন ডাকে বারে বারে, দূরে আরও বহুদূরে।সাত সমুদ্র পেরিয়ে  মেঘের দেশে উড়ে যাই মেঘবালিকাদের ভীরে। আচ্ছা ধরো! স্বপ্নগুলো যদি সত্যি হয়ে যায়?  হুম, নিরিবিলি প্রহর খুঁজি  তোমায় এসব গল্প শোনাবো বলে। কি আর করা, উদাস নয়নে ফিরে আসি সাগর তীরে।

আলো ঝলমল প্রান্তে দাঁড়িয়ে দেখেছি শিশিরের বন বীথি। গোধূলির ডাকে আকাশ আল্পনা ছড়ায় বাতাসে ভরা তার গীতি। প্রিয় আজ কি লিখবো শব্দমালা।। বুভুক্ষু  প্রেম অন্তরে স্বপ্ন দেখায়। মধুকুঞ্জে  অলি ধায়, ফুল ফুটে ঝরে যায়। কত আলো চারিদিকে ভূবন ভরায় মুগ্ধ নয়ন দৃষ্টিতে, জীবন তৃষ্ণা  মিটবে শিশির সিক্ত হয়ে বৃষ্টিতে। আলো– আঁধারী ছুঁয়ে ছুঁয়ে  অবশেষে একদিন পৌঁছে তেপান্তরের দিগন্ত জোড়া সীমানায়। আত্মজার কিণ্ণরী কন্ঠে  রাগ ভৈরবী শুনে শুনে  চলে যাব আমি ধীরে ধীরে। নিঃসংগ,নিঃশব্দে যাত্রা  সব অদৃশ্য মায়াজালে। স্বপ্নের শেষটুকু দেখা হবেনা আর।অতপর, জীবনের  অশান্ত সাগরে উঠবে ঝর, প্রবল হাওয়ার তোড়ে  ভেসে যাব আমি।

সেদিন জীবনের সেলফে ধূলো জমে থাকবে। অনন্ত  শূন্যতায়  হবো  অন্তর্লীন।  শেষ হয়ে যাবে আমার কষ্টের/ গল্পের  পত্রকাব্য লেখা,  কাব্য অঞ্জলীর লহরী তুলে তুমি  এসো দোলা দিয়ে কুঞ্জ বীথি ফোটা ফুলের মনের মাধুকরি নিয়ে। শত শত শব্দ কুড়িয়ে নিয়ে, শব্দ দিয়ে গাঁথা মালা  সুনিপুণ ছন্দময়ে।

তোমার ঝরাপাতা।

 

 

৩৫২জন ৭৮জন
0 Shares

৩০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য