সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

ঠিক কখন থেকে কবি নজরুলের প্রেমে পড়েছিলাম জানিনা। হয়তো সে ভোর হলো দোর খোলো থেকে যাত্রা শুরু। অথবা দুখু মিয়ার গল্প পড়েই, দুঃখবোধ থেকে তার প্রেমে পড়া।

একে একে কত কবিতা পড়া- খুকি ও কাঠবিড়ালী, লিচু চোর, খাদু দাদু। এতো ছোটদের কবিতা। হয়তো ছোটদের কবিতা পড়তে পড়তেই নজরুলের প্রেমে পড়া। নজরুলের লেখা নারী,সাম্যবাদী, মানুষ, তার প্রতিটি কবিতা যেন হৃদয় ছুঁয়ে যায়। তাঁর বিদ্রোহী কবিতায় এখনো রক্তে কম্পন ধরায়। কবি নজরুল শোষণের বিরুদ্ধে, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেছেন। তিনি মানবতার কথা বলেছেন। তেমনি বাজিয়েছেন প্রেমের বীনা। “মোর প্রিয়া হবে এসো রানী দেব খোঁপায় তারার ফুল”। এমন আহবানে কে না প্রেমে পড়বে।

মানুষকে তিনি বসিয়েছেন সম্মানের সর্বোচ্চ শিখরে। তাইতো তিনি বলেছেন “আমার আমি যে কত অতল অসীম- আমিই কি জানি। কে জানে কে আছে আমাতে  মহামহিম”।

মানব প্রেমের এক অসাধারণ মহিমা ছড়িয়ে দিয়েছিলেন তাঁর কবিতায়। নজরুলের গল্প উপন্যাস গুলো আমার কাছে জটিল ও দুর্বোধ্য মনে হয়। তার ব্যথার দান বেদনায় রাঙিয়ে দিয়ে গেলও বুঝা হলো না আজো। তাঁর আনন্দময়ীর আগমন দু’একটি পংক্তি ছাড়া আজও বুঝে উঠতে পারিনি। তবু কেন জানি কবি নজরুল কাছে টানে।

আবৃত্তি করা শখ। কিন্তু কবি নজরুলের কবিতা আবৃত্তি করার সাহস হয় না। অনেকদিনের স্বপ্ন বিদ্রোহী কবিতা আবৃত্তি করার। এ যে বলে না প্রেমে পড়লে যা হয় আর কি! আমার এক বান্ধবী বলেছিল জানিস “নজরুল বেঁচে থাকলে আমি তাঁর প্রেমে পড়ে যেতাম”। ওকে বলিনি আমিতো প্রেমে পড়েই আছি।

বিদ্রোহী কবি নজরুল। মানবতার কবি নজরুল। লেটোর দলে গান গাওয়া নজরুল। আসানসোলের চুরুলিয়ায় রুটির দোকানে কাজ করা নজরুল। প্রিয়তম ছেলের লাশ বাড়িতে রেখে, অর্থের জন্য সম্পাদকের কাছে লেখা জমা দেয়া নজরুল। এমন কবির প্রেমে পড়াটাই স্বাভাবিক। জানিনা এলোমেলোভাবে কী লিখলাম। কবি নজরুলকে ভালোবাসি, ভীষণ রকম ভালোবাসি।

তাই হয়তো কবি বলে গেছেন–যেদিন আমি হারিয়ে যাব, বুঝবে সেদিন বুঝবে, অস্তাপারের সন্ধ্যাতারায় আমার খবর পুছবে। বুঝবে সেদিন বুঝবে।

২৩৭জন ৬৭জন
0 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ