ইচ্ছে

জিসান শা ইকরাম ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫, শনিবার, ১০:৫০:৪২অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৫৭ মন্তব্য

1268321_159114264292991_1806514659_o
আকাশ দেখতে মানা।
আকাশে একটি লাল বাতির সিগনাল টানিয়ে দিলেই কি সবাই চোখ বুজে আকাশ দেখা বন্ধ করে দিবে? আমার ইচ্ছে আমি এখন আকাশ দেখবো। তোমার লাল বাতি যত ইচ্ছে জ্বালায়। আমার ইচ্ছেকে তুমি আটকাবে কিভাবে?
কেউ কি কখনো পেড়েছে মনে দেয়াল দিতে? উঁচু সীমানা প্রাচীর তার উপর কাঁটাতারের বেড়া, উচ্চ ভোল্টের বিদ্যুতের বিদ্যুতায়িত তার। যত ধরনের সিকিউরিটি কার্যকর করা সম্ভব, পারবে কি কেউ ইচ্ছেকে দেয়াল দিয়ে আটকে রাখতে?
আমার ইচ্ছে একান্তই আমার, একে একমাত্র আমিই নিয়ন্ত্রণ করতে পাড়ি। অন্য কেউ এর সামান্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারেনা, আমি যদি না চাই।

ইচ্ছে পাখিরা ডানা ঝাপটায়ঃ
কেউ প্রকাশ করে কেউ করেনা। আমাদের কত ইচ্ছে হত্যা করি আমরা, তার হিসেব কে রাখে? ইচ্ছেরা প্রকাশিত হতে শুরু করে সঠিক স্থান এবং সঠিক সময়ে। ব্যক্তির কাছে এই ইচ্ছে প্রকাশের প্রধান শর্ত হচ্ছে আস্থা এবং গোপনীয়তা। কার উপর আস্থা স্থাপন করবেন, কে আপনার গোপন ইচ্ছে গুলো তার মাঝে গোপন করতে পারবেন, তা আপনি বুঝে যাবেন, যদি আপনার বোঝার মত মন থাকে।

উপযুক্ত পরিবেশের অভাবে আমাদের অনেক সুকুমার ইচ্ছে গুলো মরে যায়। বাধ্য হই আমরা তাকে হত্যা করতে। আপনার আগ্রহ কবিতায়, গানে, নৃত্যে, গল্পে, ছবি তোলায়, ভ্রমণে, জোছনা রাতে ছাদে উঠে জোছনায় ভেজা, বারান্দায় দাঁড়িয়ে গুন গুন করে রবীন্দ্র সঙ্গীত গাওয়া, বৃষ্টিতে -পাগলা হাওয়ার বাদল দিনে………… এসব ইচ্ছের অনেকগুলোকেই হত্যা করতে হবে আপনার সঙ্গী / সঙ্গিনী যদি এসব পছন্দ না করেন, উৎসাহ না দেন, বাঁধা হয়ে দাঁড়ান।

নিষিদ্ধ ইচ্ছেঃ
ইচ্ছেদের মধ্যে এটি খুব শক্তিশালি। এর উদ্ভব মানব সৃষ্টির সাথে জন্ম। আদম হাওয়াকে বলে দেয়া হয়েছিলো- গন্ধম ফল খাওয়া যাবেনা। নিষিদ্ধ ইচ্ছের কারণে আল্লাহ্‌র আদেশ পর্যন্ত উপেক্ষা করেছেন আমাদের প্রথম মানব মানবি। ফলাফল- পৃথিবীতে নির্বাসন। নিষিদ্ধ ইচ্ছেরা আমাদের মাঝে এসেছে আদম হাওয়ার উত্তরাধিকার হিসেবেই।
আমার মনে একটি নিষিদ্ধ ইচ্ছের জন্ম হয়েছে। কেউ তা জানছে না। অন্য কারো যেহেতু আমার ইচ্ছেকে নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা নেই, এটিকে আমি বাস্তব রূপ দিতেই পাড়ি। এই ইচ্ছে প্রকাশিত না হওয়া পর্যন্ত চরম অশান্তির মাঝে থাকতে হয়। অন্য সব কিছু দেখা বা চিন্তা করারও সময় থাকবেনা। চিন্তার এ নম্বর স্থান দখল করে নেবে এটি। এটি প্রকাশের উপযুক্ত সুযোগ কিন্তু মন জেনে যায়, এবং প্রকাশও করে ফেলি আমি আমরা।
সব নিষিদ্ধ ইচ্ছের প্রকাশ বা বাস্তবায়ন উচিৎ না। এতে বিভিন্ন জটিলতার সৃষ্টি হতে পারে। এমন কিছু নিষিদ্ধ ইচ্ছের যদি বাস্তবায়ন করা উচিৎ হত- তবে আমার স্ত্রী থাকতো অনেক, প্রেমিকা শত শত, খুন হয়ে যেত আমার হাতে হাজার হাজার।
তবে বাস্তবায়ন হোক বা না হোক, ইচ্ছের যেহেতু জন্ম হয়েছে, তা আমাদের মনের চাহিদার প্রেক্ষিতেই হয়েছে। অন্য কেউ না জানুক আমি নিজে তো জানি, আমার মাঝে এই ইচ্ছেটা হয়েছে। ইচ্ছেকে হত্যা করি বা না করি, তার অস্তিত্ব ছিল বা আছে। কার একটি লেখায় পড়েছিলাম কোথাও ” বাস্তবে না হলেও আমি একজন ধর্ষক/বহুগামী/বহু-গামিনি। ইচ্ছেরা জন সম্মুখে প্রকাশিত হলেই বুঝা যেত কে কতটা সাধু/সন্ন্যাসিনী ” ।

ইচ্ছে ধারণ করায় আমরা স্বাধীন। কারো কোন হস্তক্ষেপে এই স্বাধীনতা পরাধীনতার শৃঙ্খলে আবদ্ধ হয়না।
আমার একটি স্লোগান ছিল ” স্বপ্নকে বাস্তব রূপ দিন ” , এই শ্লোগান এখনো আছে , কু-স্বপ্নকে দূরে রাখুন।

পোষ্ট লেখার সময় হঠাৎ মনে প্রশ্ন আসলো ‘এই মূহুর্তে আমার ইচ্ছে কি ?’
এখন সবার প্রতিই প্রশ্নঃ এই মুহূর্তে আপনার ইচ্ছে কি?

# ফটোটি শুন্য শুন্যালয়ের তোলা। অনেক পূর্বেই তার কাছ হতে অনুমতি নিয়ে রেখেছিলাম, ফটোটি আমি নেবো। তখন অবশ্য এই লেখায় এই ফটো দেবো, তা ভাবিনি।

৫৫৫জন ৫৫৪জন
0 Shares

৫৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ