বিভাগ: উপন্যাস

আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৭২,শেষ পর্ব) আঙ্কেল প্রিয়া অসুস্থ এটা আমরা গত তিনদিনে সবাই বুঝতে পারছি।প্রিয়াকে একজন ভালো সাইকোলজিস্ট দেখনো উচিত বলে আমি মনে করি।তোমরা সবাই কি বলো, আরাফ তুই কি বলিস বলেই আরমান ফিরল।ভাইয়া আমি অনেকদিন জাপানে ছিলাম এখানে তেমন কাউকে চিনি না তোমার পরিচিত কেউ থাকলে কথা বলো।মিরা আন্টি আপনি কি বলেন বলেই রিতা [ বিস্তারিত ]
আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৭১) তুমি নামাজ পড়তে যাও আমি আসছি, শ্রেয়া চলে গেল।ততক্ষনে আজাদ,মিরা নামাজ পড়ে ফিরল।আরাফ যাও ভোর রাত ৪.৪০মিনিট নামাজ পড়ে একটু ঘুমিয়ে নেও শরীরটা বিশ্রাম পাবে।না আঙ্কেল! পিচ্চি প্রিয়ার ঘুম ভেঙ্গে যাবে বলে আরাফ শুয়া থাকে এক চুলও সরল না।বাবা তুমি যাও আমরা প্রিয়ার কাছে আছি বলে মিরা জুতা ছেড়ে বিছানায় ওঠে [ বিস্তারিত ]
আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৭০) আরাফ মুচকি হাসল জ্বী স্যার একটা গুড নিউজ আছে। ডাক্তার সুপর্ণা ফাল্গুনী শ্রেয়াদের পারিবারির ডাক্তার তিনি বিষয়টা কিছুটা জানতেন তিনিও হাসলেন।স্যার আমি শ্রেয়া কয়েকদিন পরেই বিয়ে করতে চলেছি সেই উপলক্ষে সবাইকে মিষ্টি মুখ করাতে চাই। আরাফের কথা শোনে সবাই হাত তালি দিয়ে অভিনন্দন জানালেন আলহামদুলিল্লাহ্। ডাক্তার এম ইঞ্জা বললেন ডাক্তার মনির [ বিস্তারিত ]

আমি তোমার জন্য এসেছি (পর্ব-৬৯)

সুরাইয়া নার্গিস ৩০ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ০৯:১৯:৫৮পূর্বাহ্ন উপন্যাস ২৯ মন্তব্য
আমি তোমার জন্য এসেছি -(পর্ব-৬৯) ১৭ নাম্বার কেবিনের রোগীর লোক কারা একটু এদিকে আসুন।রিহান ওনি মনে হয় শ্রেয়ার কথা বলবেন চল যাই,হ্যাঁ চল দোস্ত।আরাফ এগিয়ে গেল আপনি কি ডাক্তার মোঃ মজিবুর রহমান ?জ্বী আমি। ও স্যার বলুন, আমরা ১৭ নাম্বার কেবিন শ্রেয়ার লোক।পাশ থেকে ডাক্তার পর্তুলিকা বললেন রোগীর সাথে আপনারা দেখা করতে পারবেন।রিহান,রাইসা শ্রেয়ার সাথে [ বিস্তারিত ]
“আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৬৮) ডাক্তার এম ইঞ্জা রুম থেকে বিদায় নিয়ে আরাফ বাইরে আসল। সামনেই রিহান, শ্রেয়ার ভাবীকে নিয়ে হাসপাতালে প্রবেশ করছে।দোস্ত বলেই রিহানকে আরাফ জড়িয়ে ধরল, আরাফে আমার বোন কেমন আছে? কিভাবে এমন হলো। দোস্ত সব ঠিক ছিলো মিটিং শেষে পিয়ন বাইরে খাবার আনতে গেল। তারপর খাবারের জন্য শ্রেয়াকে খোঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না পরে [ বিস্তারিত ]
আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৬৭) রিহানের মুখামুখি হলো, ভাইয়া আমি বিয়ে করতে চাই।রিহান হাসতে হাসতে বললো ওরে বাবা রাইসা শোনছো আমাদের শ্রেয়া বিয়ে করবে।আচ্ছা আমি তোমার বিয়ের জন্য ভালো ছেলে দেখবো।নাহ্ ভাইয়া ছেলে আমি পছন্দ করে রেখেছি।তাই নাকি!সেই সৌভাগ্যবান পুরুষটা কে শুনি। তোমার বন্ধু আরিয়ার চৌধুরী আরাফ’কে আমি ভালোবাসি, বিয়ে করতে চাই তুমি তাঁর সাথে কথা [ বিস্তারিত ]
“আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৬৬)   পিচ্চি প্রিয়া শান্ত হও ওনারা মেহমান চিৎকার করলে, ওনারা বলবেন মেয়েটা দুষ্টু! তুমি তো লক্ষী মেয়ে।আরাফের কথা শুনে প্রিয়া লজ্জিত ভাবে বললো সত্যি আমি লক্ষি মেয়ে! তাহলে তোমরা সবাই জোরে জোরে কথা বলো।-গুন্ডা ছেলে!- বলো পিচ্চি প্রিয়া।-আমি গল্প শোনব, তুমি গল্প বলো বলেই প্রিয়া চোখ বন্ধ করলো,- শ্রেয়া আরাফকে ইশারা [ বিস্তারিত ]
“আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৬৫)   সবাই মিলে মজা করে খাবার খাচ্ছে সব খাবার দারুন মজার হয়েছে, সবাই চেটেপুটে খাচ্ছে।শেখর সাহেব বললেন আজাদ শুরু করো কাতল মাছের তরকারিটা বেশ মজার হইছে। আজাদ সামনে ভাত নিয়ে বসে থাকতে হয় না, আরাফ কাতল মাছের মাথাটা আজাদের প্লেটে তুলে দেও বললো আরমান। আঙ্কেল ইলিশ মাছ আপনার খুব প্রিয় বলেই [ বিস্তারিত ]

আমি তোমার জন্য এসেছি (পর্ব-৬৪)

সুরাইয়া নার্গিস ২৩ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ০৮:২৪:৪৫অপরাহ্ন উপন্যাস ১৭ মন্তব্য
আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৬৪)   প্রিয়া ওদের পিচু নিল।আরাফ আজাদকে নিয়ে লিফ্ট বেয়ে তিন-তলা ওঠে সোজা সদর দরজায় সামনে গিয়ে কলিংবেল চাপল। পিচনে ফিরে দেখল ততক্ষনে প্রিয়া,মিরা, শ্রেয়া,অমি, শেখর সাহেব,বেগম শেখর সবাই হাজির।রহিমা দরজা খোলেই সালাম দিল সবাই সালামের জবাব দিয়ে রুমে প্রবেশ করল।আজাদ দ্বীর্ঘশ্বাস ফেলল দেয়ালে টানানো সাদা কালো ছবিটা দেখে আজাদ নিজের অজান্তে [ বিস্তারিত ]
আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৬৩)   আমরা তো রাতেই বাসায় ফিরতাম।তোমরা কেউ কল রিসিভ করছো না তাই বাধ্য হয়েই আসতে হলো বলতে বলতে, বেগম শেখর ঢুকলেন।পাশে রোহান,ফরিদ সাহেব শ্রেয়ার সাথে অমিও হাসপাতালে আসলো।আরাফ উঠে দাঁড়াল, শ্রেয়া মাকে বাসায় একা রেখে তুমি আসতে গেলে কেন!শ্রেয়া মাথা নিচু করে বললো আমি আসতে চাইনি মা পাঠালেন। মায়ের কথা শোনে [ বিস্তারিত ]
আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৬২)   -পিচ্চি প্রিয়া আমাদের জীবনে কখনো কখনো এমন কিছু সময় বা মুহূর্ত আসে যার জন্য আমরা প্রস্তুত থাকি না। -হুম বলে প্রিয়া মাথা নাড়ে। -জন্ম,মৃত্যু,বিয়ে এই তিনটা জিনিস উপরওয়ালা মানুষ সৃষ্টির আরো বহু বছর আগে নির্দিষ্ট করে রেখেছেন।এগুলোতে মানুষের হাত নেই “তগদীরে না থাকলে তদবীর করে লাভ নেই এটা যেমন সত্যি [ বিস্তারিত ]
  “আমি তোমার জন্য এসেছি -(পর্ব-৬০) পাপা মিষ্টি আন্টি চলে যাচ্ছে ওনাকে এগিয়ে দিচ্ছি।ওরে বাবা আমার ছেলেটা দেখি বেশ দায়িত্ববান হয়ে গেছে বলেই আরাফ হা হা হা হা করে হেসে দিল।তারপর শ্রেয়ার দিকে ফিরে হাঁটা শুরু করলো, প্রিয়া পিচন ফিরল চিনতে পারল না।তবে আরাফের পিচনের মাথার কুঁকড়ানো কাঁধে পড়ে থাকা চুল গুলো বলে দেয় এটা [ বিস্তারিত ]
আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৫৯)   ফরিদ সাহেব তার স্ত্রী কাছে আসলেন বেগম তোমাকে খুব ভালোবাসি তুমি আমার শেষ জীবনের অবলম্বন।শেখর সাহেব আড় চোখে মিতুর মাকে দেখে নিল আজ হয়ত রাতের খাবার ভাগ্যে জুটবে না।জিসানের মা দয়াকরে এবার চল নাকি রাতের খাবারটা বেয়াই বাড়িতে শেষ করবে?শেখর সাহেবের কথায় বেগম শেখর হাসতে শুরু করলেন আরে নাহ্! জিসানের [ বিস্তারিত ]

আমি তোমার জন্য এসেছি (পর্ব-৫৮)

সুরাইয়া নার্গিস ১৭ জুলাই ২০২০, শুক্রবার, ১২:৫২:২৩পূর্বাহ্ন উপন্যাস ২৬ মন্তব্য
“আমি তোমার জন্য এসেছি-(পর্ব-৫৮)   এটাই জগৎ এর নিয়ম, প্রিয়া সবাইকে বুঝিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করছে। এ বাড়িতে মিতু ভালোই থাকবে তাই কস্ট পাবার কিছুই নেই। বড় মামী তুমিও বড় মামার মতো পাগল হলে নাকি! তোমরা তো রোহানের বাবা মাকে দেখলে ওনারা কত ভালো মানুষ।রোহান ছেলে হিসাবে ভালো, তাছাড়া আমাদের মিতুও খুব লক্ষী মেয়ে দেখবে গুছিয়ে [ বিস্তারিত ]

আমি তোমার জন্য এসেছি (পর্ব-৫৭)

সুরাইয়া নার্গিস ১৬ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১২:৩৯:৪৩পূর্বাহ্ন উপন্যাস ২১ মন্তব্য
আমি তোমার জন্য এসেছি- (পর্ব-৫৭)   মা আপনার মিতুকে নিয়ে খেতে চলেন বলেই রুমে ঢুকলেন ফরিদ সাহেব।বড় মামী প্রিয়ার মতামত জানতে চাইলেন, আঙ্কেল আপনি কেন কষ্ট করছেন। আমি রোহানকে  বলে দিয়েছে টেবিল খালি হলে আমরা সব মেয়েরা একসাথে যাব। আঙ্কেল দুটো টেবিল লাগবে আমাদের জন্য মহিলা ২৫-৩০জন হবে বলেই হাসল প্রিয়া।প্রিয়ার কথায় সবাই খুশি হলো, [ বিস্তারিত ]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ