হা-হাপিত্যেশের এই গরমে একটু খানি
সজল বৃষ্টি মেঘের স্বর্গ-সুখ, সে আমার চাই-ই,
দূর সীমান্তে দেখা যায় কী যায় না
একটুকরো সিঁদুর মেঘ, কুমারী শুদ্ধতায়,
আমাকে শাসিয়ে লাভ নেই,
অপেক্ষাটুকুর রিসোর্ট, সে আমার চাই-ই।
সীমিত মানবিক হলেও;

 

পড়ার সময় পড়া-পড়া খেলা
খেলার সময় খেলা-খেলা পড়া!!

হোক বা না-হোক আহ্লাদিপনা-বৃষ্টি,
ভেজা-ভেজা ভেজা বৃষ্টির জলকেলিটুকু,
সে আমার চাই-ই।

হেঁড়ে গলায় লাল লাল রক্ত চক্ষুতে
গলার সার রগ ফুলিয়ে-দুলিয়ে
যতই ভয় ভীতি দেখাক
আগুন-আগুন পোড়া পুড়িতে,
সে আমাদের শাসায়-কাঁদায়-নাচায়
গৌরিসেনর টাকায়।

সোনারগাঁ থেকে সবুজ রাস্তার
ভেজা বৃষ্টির চাকভুম চাকভুম চটপটি টুকু,
সে আমার চাই-ই।

স্পর্শের সবটুকু সুতো গুটিয়ে গুটিয়ে
মুখোমুখি বসে দু’ঠোটে তুলে নেব
ধোয়া-ওঠা চায়ের পেয়ালা;

মেঘ ফুড়ে বৃষ্টিতে-বৃষ্টিতে বজ্র-বিদ্যুতে-বিদ্যুতে
আহামরি সে সুখটুকু, সে আমার চাই-ই।
কাঁহাতক আর ভালোলাগে অপেক্ষার অপেক্ষা অপেক্ষা খেলা!
ছুঁড়ে/ছিঁড়ে ফেলি ঐ সব, সব ডায়েরি,
আহামরি তেতুল সুখের বেগানা বৃষ্টিটুকু, সে আমার চাই ই।
স্বর্গমর্ত্য পুল সিরাত মেঘ গর্জনে-ও।

সাচ্চা দিলের নর্দমা-কীট, নরাকার!!

ছবি নেটের।

১৬২জন ৪৯জন
15 Shares

১৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ