আনন্দপুরে ভূতের কাণ্ড

আরজু মুক্তা ১১ জুলাই ২০২১, রবিবার, ০৪:১৩:৩৩অপরাহ্ন বুক রিভিউ ২২ মন্তব্য

ঠাকুরমার মুখে ভূতের গল্প শুনে রাঘবের ভুত ধরার নেশা ছোটবেলা থেকে। সেজন্য অনেক ভূতের গল্প পড়ে মগজও পাকিয়েছে। দুই বন্ধু পি এইচ ডি করার আশায় আনন্দপুর গ্রামে গেলো কারণ গ্রামটিতে বড় বড় দালান আর বেশ পুরানো আমলের গাছে গাছে চলে ভূতুড়ে সব কাণ্ড। বিনুর উদ্দীপনা নেই কিন্তু আতঙ্ক আছে। বিনু ভাবে ঘুমালেই ভূত গলা চেপে ধরবে। আর ওদিকে রাঘব রাত তিনটায় বারান্দায় বসে থাকে ভূত ধরবে বলে। আমার তো গা ছম ছম করছে। আপনাদের কী অবস্থা? একবার তো বিনু তেঁতুল গাছে প্রস্রাব করে , দিলো কাণ্ড বাধিয়ে। চুপি চুপি বলি, ভূত কিন্তু তেঁতুল গাছে বেশি থাকে। হা হা।

ভূত কি আদৌ আছে? যারা বিশ্বাস করে, তাদের মনের ভূতই খায়। তাহলে ভৌতিক গল্প তৈরি হয় কেমনে? হিন্দুরা ভূত পূজো করে। আর মুসলিমরা  ঝাড়ফুঁক দেয় মৌলভী ডেকে।

এদিকে বাগান বাড়িতে কালো বিড়ালের উপস্থিতি নতুন করে রহস্যের জাল বোনে। আবার শোনা যায়, আফ্রিকান ভূতের স্বর্গরাজ্য এই আনন্দপুর। ওখানে ভূতের মাথাও পাওয়া যায়।

আমার কথা বিশ্বাস না হলে ; ব্লগার প্রদীপ চক্রবর্তীর ” আনন্দপুরে ভূতের কাণ্ড ” বইটিতে চোখ বুলিয়ে আসতে পারেন। এক নিঃশ্বাসে পড়ার মতো বই এবং ছোটদের উপযোগি করে লিখে, লেখক কারিশমা দেখিয়েছেন চমৎকারভাবে। বইটি সংগ্রহে রাখার মতো। তার লেখনির একটা বড় গুণ হলো দৃশ্যপটের পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ণনা। মনে হবে, আপনি আনন্দপুরেই আছেন। আর নামকরণও যথার্থ হয়েছে। ভৌতিক ভৌতিক গন্ধ।

রাঘব আর বিনু কি সত্যিই ভূতের দেখা পেলো?  এটা জানতে বইটি পড়ে রহস্য উদঘাটন করতে হবে।

★★ ভৌতিক গল্প : আনন্দপুরে ভূতের কাণ্ড

লেখক : ব্লগার প্রদীপ চক্রবর্তী

প্রথম প্রকাশ : বইমেলা ২০২১

প্রকাশনী : মাছরাঙা প্রকাশন

প্রচ্ছদ : সজীব সেন

মূল্য : ১৫০ টাকা

অনলাইন প্রাপ্তি : রকমারি ডট কম।

সোনেলা ব্লগের পক্ষ থেকে আমি তার সাফল্য কামনা করছি। তার কলম চলুক দুর্বার গতিতে। আর তিনি আলো ছড়িয়ে যাক সাহিত্যের পাতায় আপন গতিতে।

৩১৬জন ১১১জন
0 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ