সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

অভিমানী

প্রদীপ চক্রবর্তী ৩০ জুলাই ২০২১, শুক্রবার, ০৮:৩৭:৩২অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৮ মন্তব্য

কে তুমি?
চাইছো কি, এ পথ প্রান্তরের গভীর শালবনে।
কি চাইছো তুমি,
নাকি শরতের শিউলি ঝরা সকাল?

জানো না তুমি,
শরৎ আসতে যে এখনো ঢের দেরি।
বড্ড অভিমান করে আছো, তাই না বুঝি ?

সকাল থেকে অঝোর ধারায় ঝরছে শ্রাবণের বৃষ্টি।
নিমের কচি পাতা মাথা নুয়ে আছে।
উঠোনের ভেজা মাটিতে আছে পড়ে মাধবীলতা।

ঐ দূর থেকে গঙ্গার সুধাময় মৃত্তিকার সুগন্ধি আসছে ভেসে।
এখানকার মাটি উর্বর পলি।
সেখানের সজনের ডাঁটা বিখ্যাত। সন্ধ্যা হলে চারদিকে কামিনী ফুলের সুগন্ধিতে মম করে।

অভিমানী,
তুমি শরতের শিউলি ঝরা ভোর দেখবে বলে বড্ড অভিমান করে আছো, তাই না?

অথচ শরৎ এখনো আসেনি।
এখনো ঢের দেরি শুকনো পাতায় গেরুয়া বিকেল দেখা।
এখনো ঢের দেরি হরিলুটের মতো ঝরে পড়া শরতের সে শিউলি ঝরা সকাল।

শুনো,
অভিমানী আর কখনো অভিমান করো না।

কথা দিলাম, শুভ্র কাশফুলের ডাঁটা তোমার চুলের খোঁপায় গুঁজে স্বস্তির বিকেল কাটাবো।
সে বিকেল শেষে শরতের এক পূর্ণিমায় তোমায় নিয়ে ভোরের পুষ্পবৃষ্টিতে স্নাত হবো।
স্বর্গীয় সুখের বন্দনে পারিজাত ফুলের সুগন্ধি নেবো।

পূর্ণচন্দ্রের আলোতে দুজন মিলে প্রণয়ের প্রদীপ প্রজ্বলন করব।
বলো অভিমানী,
আর কখনো অভিমান করবে না?
..
ছবিঃ সংগৃহীত।

১৬৫জন ৫৮জন
23 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য