একটি ঘোষণাঃ
——————–

পৌষ আমাদের প্রত্যেকেরই পছন্দের ঋতু। কবি লেখকদের লেখায় পৌষ প্রত্যেকবারই এক অনন্যরুপে ধরা দেয় হিম ঠান্ডার মাঝে এক উষ্ণ আগমনী বার্তা নিয়ে। পৌষকে নিয়ে কত শত স্মৃতি, কত গল্পগাঁথা লেখা হয়েছে গল্প-কবিতায়, অপ্রকাশিত ডায়েরির পাতায় তা অন্তহীন হিসেবের বাহিরে। শীতের কুয়াশাভেজা ভোরে নতুন চাল ভাঙানো আটার গরম গরম ভাঁপা পিঠে, খেজুরের রসে গলা ভেজানো কার না পছন্দ বলুন? বাসায় নানানরকম পিঠে বানানোর ধূম পড়ে যায়। পিঠাপুলির উৎসবে চারিদিকে সাজ সাজ রব ওঠে।

নাম জানা অজানা নানান ফুলের ম’ ম’ ঘ্রাণে মাতোয়ারা থাকে প্রকৃতি। ছোটবেলায় স্কুল ছুটিতে গ্রামের বাড়ি বেড়াতে যাওয়া, নানা-নানী, দাদা-দাদীর আদরমাখা শাসন উপেক্ষা করে ছুটে বেড়ানো, কুয়াশাভেজা মেঠো পথে খালিপায়ে হাঁটার দৃশ্য আমাদের স্মৃতিতে অম্লান হয়ে রয়েছে।

শহরের নিত্যদিনের ব্যস্ততাকে ভুলে ইট-পাথরের দেয়াল ঘেরা এই যান্ত্রিক ভীড় ছেড়ে চলুন কিছু সময়ের জন্য হাড়িয়ে যাই সোনেলার পৌষ সংক্রান্তি উৎসবে। পৌষ পার্বণের এই ঋতুকে স্মরণে রাখতে সোনেলা ব্লগ কর্তৃপক্ষ আপনাদের জন্য পৌষ সংক্রান্তি লেখা উৎসব শুরু করতে যাচ্ছে। কি দারুণ! তাইনা?

সোনেলার সারপ্রাইজিং পৌষ সংক্রান্তি উৎসব!

আপনাদের সবার সহযোগীতা এবং অংশগ্রহণে সোনেলা ব্লগ সফলভাবে হেমন্ত বন্দনা উৎসব উৎযাপন করতে পেরে যারপরনাই আনন্দিত এবং উচ্ছ্বাসিত। সাফল্যের এই ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখতে ব্লগ কর্তৃপক্ষ পৌষ সংক্রান্তি উৎসব পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এবারের পৌষ সংক্রান্তি উৎসবের সবচেয়ে সারপ্রাইজিং বিষয় হচ্ছে- লেখকগণের স্বীকৃতি। ব্লগ কর্তৃপক্ষ এই উৎসবকে স্মরণীয় করে রাখতে প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থান প্রাপ্ত লেখকদের পুরস্কৃত করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। হেমন্ত বন্দনা উৎসবের প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থান অধিকারীরাও এই পুরস্কারের আওতায় আসবেন। কি বলেছিলাম না সারপ্রাইজিং! এখন খুশিতো?

তাই আর দেরী নয়। সোনেলার প্রিয় লেখকগন, আপনারা পৌষ ঋতুকে নিয়ে আপনাদের অনুভূতি লিখুন সোনেলা ব্লগে এবং সোনেলার ফেসবুক গ্রুপে। সাহিত্য, গল্প, কবিতা, স্মৃতিচারণা, একান্ত অনুভূতি, চিঠি যে কোন বিভাগেই লিখতে পারবেন সবাই।

লেখার শিরোনাম হবেঃ

পৌষ সংক্রান্তি উৎসব – ( এখানে আপনার লেখার শিরোনাম) । 

মনে রাখবেন, আপনার লেখার শিরোনামের সামনে অবশ্যই পৌষ সংক্রান্তি উৎসব কথাটি লিখতে হবে।

এরপরে যে বিভাগে লেখা দিতে চান অর্থাৎ – গল্প, কবিতা, চিঠি, রম্য ইত্যাদি বিভাগ সিলেক্ট করে লেখা প্রকাশিত করবেন।

ব্লগের লেখাগুলিকে আমাদের সম্মানিত বিচারকগন যাচাইবাচাই করে প্রথম, দ্বিতীয় এবং তৃতীয় স্থান নির্ধারণ করবেন।

লেখা প্রকাশের সময়সীমাঃ

০৫/০১/২০২০ রবিবার হতে।

শেষ সময়-

৩০/০১/২০২০ তারিখ বৃহস্পতিবার রাত ১১.৪৫ মিনিট পর্যন্ত।

ফলাফল ঘোষণার সম্ভাব্য তারিখঃ

০৩/০২/২০২০ সোমবার।

★★ সোনেলা ব্লগে লেখা উল্লেখিত সময়ের মধ্যেই যাতে দিতে পারেন সেজন্য আপনাদের সুবিধার্তে এত বেশি সময় দেয়া হলো। পরবর্তীতে সময় বৃদ্ধির আবেদন কেউ করবেন না আশাকরি। কারন এই সময় বিচারকগনকেও তাঁদের মুল্যবান সময় আগে থেকেই বের করে রাখতে হয়। মনে রাখবেন, সময় বাড়ানো মানেই বিচারিক কার্যক্রমে স্থবিরতা চলে আসা যা কিছুতেই কাম্য নয়।

নিয়মাবলীঃ

(মনোযোগ দিয়ে পড়ুন)

১. একজন লেখক পৌষ সংক্রান্তি উৎসব শিরোনামে শুধুমাত্র একটি লেখাই দিতে পারবেন। আপনার লেখার শিরোনামের পূর্বে পৌষ সংক্রান্তি উৎসব না লিখলে সেটি বিচারিক কার্যক্রমে আসবে না।

২. আপনার লেখাটি অবশ্যই সোনেলা গ্রুপে শেয়ার করতে হবে। লেখার লিংক সোনেলা ব্লগের ফেসবুক গ্রুপে শেয়ার না করলে তা এই পোস্টে আপডেট করা হবেনা।

৩. এবারের বিচারিক কার্যক্রমে গল্প এবং কবিতা এ দু’টিকে আলাদা আলাদা বিভাগে রাখা হয়েছে। বিচারকগনের মতামতের ভিত্তিতে কবিতাগুলি কবিতা বিভাগে এবং বাকী সব বিভাগের লেখাগুলিকে গল্প বিভাগের আওতায় এনে বিচারিক কার্যক্রম চালানো হবে। ফলে ফলাফল ঘোষণা হবে দু’টি আলাদা বিভাগে- গল্প এবং কবিতা।

৪. ছবি ব্লগ বিভাগে পৌষ সংক্রান্তি উৎসব শিরোনামে লেখা দেয়া যাবেনা।

৫. স্থান নির্ধারণের (১ম,২য়,৩য়) বিষয়ে বিচারকদের রায় চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।

৬. কিসের ভিত্তিতে লেখার মানদণ্ড নির্ধারণ করা হবে মনে প্রশ্ন এলে জেনে রাখুন – লেখা সর্বোচ্চ পঠিত, সর্বোচ্চ শেয়ার বিবেচ্য হবেনা। বিবেচ্য হবে লেখার মান, শব্দ বিন্যাসের মুন্সিয়ানা, বানান, যতিচিহ্নের ব্যবহার ইত্যাদি বিষয়গুলি যা বিচারকগন বিবেচনা করবেন।

৭. এডমিনগন পৌষসংক্রান্তি উৎসবে লেখা দিতে পারবেন তবে তাদের লেখা বিচারিক কার্যক্রমের আওতাধীন থাকবে না।

পৌষ সংক্রান্তি উৎসবের সকল লেখার লিংক এই পোষ্টে আপডেট করা হবে।

এই কার্যক্রমের যেকোন পরিবর্তিত সিদ্ধান্ত ব্লগ এডমিনগন নিতে পারবেন। যা আপনাদের সোনেলার ফেসবুক গ্রুপে পোষ্ট দিয়ে জানানো হবে। কারও কিছু জিজ্ঞাসা এবং পরামর্শ থাকলে মন্তব্যে বলতে পারেন।

সবাইকে পৌষ সংক্রান্তি উৎসবে লেখার আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। শুভ ব্লগিং।

তৌহিদ
উপদেষ্টা, সোনেলা ব্লগ টিম

===============================

পৌষ সংক্রান্তি উৎসবে প্রাপ্ত লেখাসমূহ-

১। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব – হিমশীতল স্থবিরতা নিয়ে এসেছে পৌষ। লিখেছেন – ব্লগার তৌহিদ।

২। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব – বাঙালির মন থেকে যেন পৌষ সংক্রান্তি উৎসবটি হারিয়ে না যায় – লিখেছেন ব্লগার নিতাই বাবু।

৩। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব, মা-গো পৌষ যে এসেছে তোমার দুয়ারে – লিখেছেন ব্লগার সঞ্জয় মালাকার।

৪। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব-“পৌষের পিঠা” – লিখেছেন ব্লগার মনির হোসেন মমি।

৫। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব – গাছি লিখেছেন ব্লগার কামাল উদ্দিন।

৬। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব, শীত গরীবের জন্য এসেছে – লিখেছেন সঞ্জয় মালাকার।

৭। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব – পৌষ সংক্রান্তি লিখেছেন ব্লগার সাদিয়া শারমীন।

৮। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব (রসালো পিঠেপুলির আবেশে মিষ্টি প্রেমের মাদকতায় যাবো ভেসে)- লিখেছেন ব্লগার সুরাইয়া পারভীন।

৯। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব – আজ পৌষীর বিয়ে – লিখেছেন ব্লগার শবনম।

১০। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব – বাতি আছে পথে পথে- লিখেছেন ব্লগার এস.জেড বাবু।

১১। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব- ছন্নছাড়া বোহেমিয়ানের পৌষ বন্দনা- লিখেছেন ব্লগার তৌহিদ।

১২। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব — পৌষের যে ছবিটি আজও হৃদয়ে অক্ষত- লিখেছেন ব্লগার রেহানা বীথি।

১৩। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব, প্রিয় মা তোমার শূন্যতা- লিখেছেন ব্লগার সঞ্জয় মালাকার।

১৪। পৌষ সংক্রান্তি উৎসব- পোয়াতি পৌষ -লিখেছেন ব্লগার অনন্য অর্ণব।

১৫. পৌষ সংক্রান্তি উৎসব-বাঙালীর বারো মাসে তেরো পার্বণ  পৌষ সংক্রান্তি তার একটি লিখেছেন – ব্লগার মাহবুবুল আলম।

১৬. পৌষ সংক্রান্তি উৎসব- পৌষ পাবণের পিঠা লিখেছেন- ব্লগার সুপায়ন বড়ুয়া।

১৭. পৌষ সংক্রান্তি উৎসব- (শীত কাব্য) – লিখেছেন ব্লগার সুপর্ণা ফাল্গুনী।

১৮. পৌষসংক্রান্তি উৎসব (পৌষালি প্রকৃতি) লিখেছেন- ব্লগার প্রদীপ চক্রবর্তী।

 

৭৫৫জন ৭৫৫জন
101 Shares

৫৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য