শিশির কণার বিয়ের কথকথা……১

ছাইরাছ হেলাল ৮ ডিসেম্বর ২০১৫, মঙ্গলবার, ০৮:৫৯:৪৬পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৫৪ মন্তব্য

ফেরিতে ওঠা গেল না, জায়গার অভাবে, অগত্যা চায়ের টং দোকানে কাটে না
সময়ের সময় গুজরান, এ এক ঘন্টা যেন বহু ঘন্টা অনিচ্ছার কিল খাওয়া।
কিল চালুক………………………

শেষ অনুষ্ঠান ছেলের বাড়ীতে বউভাতে উপস্থিতি, বাঘআচরা যশোর শহর থেকে পঞ্চাশ কিলোমিটার দূরে, গাড়িতে যেতে দু’ঘন্টা লাগল। রাস্তা তথৈবচঃ। ভাগ্যিস বুড়ো হাড় এখনো বেঁকে বসে না।
প্রথমে বর, পরে শিশির কণার সাথে দেখ-দুখা করে শরবৎ খেয়ে গপ সপ শেষে খেতে গেলাম দল বেঁধে। ঘ্রাণে ক্ষুধা যেন হপ স্টেপ এন্ড জাম্প অবস্থা। পোলাও দেওয়ার পরপর ই ঘন মুগের ডাল দিয়ে দিল, আড় চোখে অন্য টেবিল পরিভ্রমণ শেষে বুঝলাম সব ঠিক হ্যায়। রোস্ট এর পর খুবসুরৎ বাটি ভর্তি ঘন ঝোলে বাটি ভর্তি মাংস, বলে ছাগল ছাগল, চমকে উঠে থামলাম, থামালাম, আবার ইতিউতি কান পাতলাম, না সব ঠিক, ইহাই খাসী। এর মধ্যেই স্বাদে রক্স, দই এসে গেল। দেখলাম প্রায় সবাই মাংসের ঝোল পোলাও ও দধি দিয়ে দিব্বি মাংস সাবড়ে চলছে। সাহস করলাম না। শেষে বাঘআচরার সুবিখ্যাত দধি ও জাম তলার বিখ্যাত রসগোল্লা খেলাম মজাছে। একদম খাঁটি। এই দধি ও মিষ্টির নামডাক যশোর অব্দি।
যশোরে ও সাবড়েছি এই মিষ্টি অন্যগুলোর সাথে।

৫-১২-২০১৫ ছিল লেডি ডাক্তারের জন্মদিন, সন্ধ্যা পর্যন্ত থেকে কেক-কুক কাটা হল না। ক্লান্তি চেপে আসছিল, তাই অগ্রবর্তী দলের সাথে যশোরে ফিরে এসেছি আমরা, না বলেই।
ওর আকণ্ঠ সুখ কামনা করছি বিলম্বে হলেও।
পাঁচ দিনের এমন সুন্দর উৎসবাক্রান্ততা জীবনে এই প্রথম,
মনে থাকবে, মনে রাখব আমৃত্যু।

শিশির কণার বিয়ের কথকথা……২

শিশির কণার বিয়ের কথকথা……শেষ

৬১৬জন ৬১৬জন
0 Shares

৫৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ