প্রেমের নাম বেদনা (প্রতিযোগিতা)

মেহেরী তাজ ৯ মার্চ ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ১২:৪১:৩৪অপরাহ্ন রম্য ৫৩ মন্তব্য

প্রিয় “রোমিও”

প্রথমেই “রজনীগন্ধা!” ফুলের শুভেচ্ছা নিও। আজ “হৃদয়ের কথা” বলবো বলে এই চিঠি। কিভাবে লিখবো এই চিঠি তা নিয়ে প্রায় “মাথা নষ্ট” অবস্থা। তবে “ভালবাসা ভালোবাসা” দিয়েই শুরু করি। “অন্ধপ্রেম” আর “আকাশ ছোঁয়া ভালোবাসা” আমায় বলেছিলো “মনের মাঝে তুমি”।  আমি তোমায় জিজ্ঞেস করেছিলাম “ফুল নেবে না অশ্রু নেবে”? তুমি ফুল চেয়েছিলে বলে আমি তোমায় “মাটির ফুল” উপহার দিয়ে বলে ছিলাম “ভুলনা আমায়”। মনে প্রাণে ভেবেছিলাম “তুমি আমার স্বামী” হবে। কিভাবে যেনো “লংকা কান্ড” হয়ে “কঠিন বাস্তব” এর মত সব কিছুই বদলে গেলো। একদিন তুমি হঠাৎই বলে বসলে “ভালোবাসলেই ঘর বাধা যায় না”, “ঢাকাইয়া পোলা বরিশাইলা মাইয়া” এর প্রেম হয় না! এ ছিলো এক “আয়নাবাজি”। তুমি আমার “জীবনের প্রথম প্রেম” হলেও তোমার শুধুই “খাইরুন সুন্দরী”র মত “সুন্দরী বধু” চাই । “বাংলার বউ” এর মত বউ চাও নি মোটেই। শুধু তাই নয় তুমি আমায় “ক্ষমতার গরম” দেখিয়ে বলেছিলে “গরীবের প্রেম” করা সাজে না! আমিও রেগে গিয়ে বলেছিলাম “ভালোবাসা দিবি কিনা বল”। নইলে “কিয়ামত থেকে কিয়ামত” শুরু হয়ে যাবে! তুমি ভয়ে ও মনে মনে “প্রতিশোধ ” নেওয়ার বাসনায় বলেছিলে “আমার পৃথিবী তুমি”।

এরপর শুরু হলো “ভালোবাসা কারে কয়”। রাত জেগে কথা, গল্প, হাসি, “আমার আছে জল” গান আরও কত কি! কিন্তু দিনের বেলা “মন বসে না পড়ার টেবিলে”। এভাবে “ইঞ্চি ইঞ্চি প্রেম” বাড়তে থাকলো। এরই মাঝে একদিন জানিনা কি বুঝে তুমি বলেছিলে চলো বিয়ে করি। “দারুচিনি দ্বীপ” এ হবে সেই বিয়ে। দিন ক্ষন সব ঠিক। কিন্তু তুমি “কোটি টাকার কাবিন” দেখে “কাবিননামা” ছিড়ে ফেলে আমার সাথে “গাদ্দারি” করলে। ভেঙ্গে দিলে আমার “প্রেমের তাজমহল”। ভেঙ্গে দিলে আমার “স্বপ্নের বাসর”। আমাকে রেখে চলে গেলে তুমি। আমার একতরফা “প্রেমের সমাধি” হয়ে গেলো সেখানেই। “এক বুক জ্বালা” নিয়ে বাড়ি ফিরে এলাম আমি। এটি আমার “কপালের লিখন” ছিলো।
বাবার সম্মান রাখতে সেই রাতেই বাবার পছন্দের লোক কে বিয়ে করে “দুখিনী জহুরা” র মত “চার সতিনের ঘরে” আমি ” এক টাকার বৌ”হয়ে পড়ে রইলাম।  এক দিনের কথা, শ্বশুড় মশাই কে দিয়ে বাজার করিয়েছি বলে  আমার বর বললো “বাবা কেনো চাকর “। বাবাকে “পিতার আসন” এ রাখ নইলে “ভাত দে”ব না! আমি ভয়ে নীল হয়ে গেলাম। এরই মাঝে একদিন খবর পেলাম তুমি “হঠাৎ বৃষ্টি”র মত “রাজধানীর বুকে” উদয় হয়ে  “ও প্রিয়া তুমি কোথায়” বলে চিৎকার করছো! এতো কিছুর পরেও “মনের মাঝে তুমি” ছিলে তাই আমি “রানী কেনো ডাকাত” এর মত “বউ শাশুড়ির যুদ্ধ” করে তোমার পানে ছুটলাম।  গিয়ে দেখি তুমি “মাস্তান” এর উপর মাস্তানি করে রাস্তায় পড়ে আছো।  তোমার কাছে পৌঁছানোর আগেই “বিগ বস” মাস্তানরা তোমায় তুলে নিয়ে চলে গেলো!

জানিনা এখন তুমি কোথায় আছো, কেমন আছো। এই “স্বপ্নের পৃথিবী” তে আমার “মনের ঠিকানা” পেলাম না। “অশ্রু”  ভরা নয়নে আবারও ফিরে এলাম আমি! বুঝলাম “হারানো প্রেম” কখনও ফিরে আসে না! আর “পাগলির প্রেম” পরিণতিও পায় না! তাই মেয়ে হয়েও “দেবদাস” এর মত আত্মহননের সিদ্ধান্ত নিলাম ।  এই ছিলো আমার “নিয়তি”।

“হাজার বছর ধরে” মানুষ জেনে যাক “সবার উপর প্রেম”!।   আশা করি ওপাড়ে দেখা হবে আবার।  এপারের দিনগুলো ভালো কাটুক তোমার।

 

ইতি

তোমার “জামিলা সুন্দরী”!

৬০৯জন ৬০৯জন
0 Shares

৫৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য