নুড়িপাথরের গদ্য//

বন্যা লিপি ২৫ নভেম্বর ২০১৯, সোমবার, ০১:৩০:২৯অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৯ মন্তব্য

ছোট ছোট নুড়ি পাথরের বুকে লিখে রাখা গদ্যময় অনুরোধের পুঁথিমালা।

সুখ;
নাম খোঁজে হন্যে হওয়া উড়নচণ্ডী এলোমেলো বৈরী বাতাসের ধুম্রতার আভাসে।

পাশবিকতা:
চারিদিকে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে নষ্টভ্রূণের ছড়াছড়ি।
জানান দিচ্ছে পঁচা দূর্গন্ধের-
নাক সিঁটকানো উপাচারে;
ভুল ভালবাসার পরিনাম।

কাব্য:

বৃষ্টি, রোদ্দুর,চন্দ্রজোছনায় নেচে গেয়ে খেলে যায় ধানসিঁড়ি পাড়ে বৈঠকী শব্দের বনলতা।
মেঘের আঁচলে রাশি রাশি স্বপ্নেরা রংধনু আঁকে ভাষার অহংকার।

গর্ব:

আমাকে আমার মতো দেখতে চাওয়া হরিৎ প্রজাপতি ডানার রঙে।
কষ্ট,যন্ত্রনার ছাঁচে গড়ে নেয়া ভাস্বর প্রতিমূর্তি ।
অভাবে অভাবী নয়…..
নয় প্রেম অথবা বিপরীত ভালবাসার পিছুটান!

মন:
অতঃপর পাড়ি জমাই নিঃসীম অপার নিলীমার রংয়ে।
যখন তখন মেঘ আনি, ইচ্ছে হলেই কাব্য লিখি। ইচ্ছে হলেই ক্যাকটাসে ফুল ফোটাই ।
বারান্দাটা আমার একান্তই আমার।
পাশুটে ভাবনারা আর আমায় করেনা বর্ণহীন।
নিরেট আয়নায় স্পষ্টই দেখি, ভেতর বাহির সবটুকু।

জল শ্রাবণের ময়ূরাক্ষী চোখে আর আজ কাজল পরায় না। সত্যের শার্শিতে ঝলসানো রোদের আগুন তাপ।

তবুও:
পলকহীন ভ্রূপল্লবে স্থির দৃষ্টি, মাঝে মাঝেই আঁটকে থাকে সবুজ আলোর দিকে।
মুঠো ফোনটা নির্জীব পরে থাকে এক কোনে।
তবুও অবচেতনে উৎর্ণ কর্ণ শুনতে চায়……ফোনটা বেজে উঠবে কখন?

সমাপিকা:

হাতড়ে ফেরা পিছুটানের কাছে মিনতি রেখেই, ফিরে যেতে চাই নিটোলো ভূমির ঠিকানায়।
সময়ের কাছে থাকুক কিছু পোড়ামাটির স্মৃতীর কথন!
আরো থাকুক অজস্র অ-প্রাপ্তির প্রাপ্য হাজারো ফুলঝুরির নক্ষত্রের আলো।

বন্যা ইসলাম
২৫:১১:২০১৯
সময়কাল: ২:২৫ .

৩৫৮জন ২৩৮জন
22 Shares

১৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য