ফরিদপুরের ডায়াবেটিক সমিতির নতুন ভবনের উদ্বোধন শেষে গত শুক্রোবার রাতে সমিতির সভাপতি বিশিষ্ট শিল্পপতি মীর নাসির হোসেনের বাড়িতে নৈশভোজের পর পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হয়েছেন মন্ত্রী, সচিব ও ডিসিসহ ২৩জন অতিথি। তাদের মধ্যে ১৮জন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।
শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মশাররফ হোসেন গুরুতরভাবে আক্রান্ত হননি। তাই হাসপাতালে চিকিৎসা নেন নি, ———স্যালাইন খেয়েছেন।
ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক হেলালুদ্দিন আহমেদ ও পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন নিজ বাসভবনে। অসুস্থতার কারণে তিনি শনিবার বিকেলে ফরিদপুরে মন্ত্রী ও সাংসদদের সংবর্ধনা সভাতেও উপস্থিত থাকতে পারেননি।
নৈশভোজ শেষে পেটের পীড়ায় আক্রান্ত মোট ১৬জন স্থানীয় ডায়াবেটিক হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন।
ডাঃ আসম জাহাঙ্গীর চৌধুরী টিটো ভর্তি হয়েছেন ফরিদপুরের “আরোগ্য সদন” হাসপাতালে।
মীর নাসির হোসেনের বাড়ির কয়েকজন গৃহপরিচালিকা ও তাদের পরিবারেরমোট ৮ সদস্য একই ঘটনায় পেটের পীড়ায় আক্রান্ত হন।——————–
——————————- খবরটি বেশ পুরানো। 😀

 

২৭৯জন ২৮২জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য