তোমরা আমাকে বল কবিতা লিখতে।
বামন কি কখনো পারে চাঁদ ধরতে।
আমি তো আকাশে দেখি না মেঘের রাজ্যে উড়তে রাজকন্যা।
আমি তো দেখি গহীন কালো মেঘমালার আকাশে বৃষ্টির কান্না।
হৃদয়ে যদি না থাকে প্রেম ভালবাসা আর মায়া মমতার ফল্গুধারা।
মানুষের মনে কিভাবে সঞ্চারিত করবো প্রেম ভালবাসার আনন্দধারা।
আমি মানুষের অন্তরে দাবড়াতে পারিন না কল্পনার পাগলা ঘোড়া।
কবিকে ভাবুক হতে হয় কল্পনার রাজ্যে হতে হয় আনন্দে আত্মহারা।
সে জ্বলে পুড়ে অঙ্গার হবে মানুষের ভাবনায় যোগাবে টগবগে তারুণ্যের প্রেম গাঁথা।
কথার যাদুতে ভাষার ছন্দে আনন্দে হৃদয়ে ঝড় তুলবে অমর প্রেমের কাব্যিক কথা।
যে কোনদিন করেনি প্রেম কাউকে দেয়নি একটি লাল টকটকে গোলাপ।
সে কিভাবে মানুষকে শোনাবে ভালবাসার রঙ্গিন আর স্বপ্নীল আলাপ।
আমি আকাশে দেখি অমাবশ্যার আঁধার কালো।
কবি অন্ধকারেও আকাশে দেখে জ্যোৎস্নার আলো।
কবির কল্পনা হৃদয়ে আঁকে ভালবাসার কত অনন্য আল্পনা।
প্রেমিক প্রেমিকার মনের আকাশে ভরে দেয় রঙ্গিন কল্পনা।
কবি শূন্যে হাসায় শূন্যে কাঁদায় শূন্যে উড়ায় ভালবাসার ফানুশ।
শূন্য হাতের মুঠোয় এনে দেয় কল্পনার বর্ণিল রঙ্গের আকাশ।
আমার ঘরে জ্বলে নিভু নিভু পিদিম বাতি।
কবি অন্ধকারে জ্বলায় হাজার আলোর ঝাড়বাতি।
আমি থাকবো আমার মতো পারবো না রঙ্গিন কল্পনায় ভাসতে।
তারচেয়ে ভালো লেগে যাই বৃষ্টিতে ঘরে জমা কাদাজল তাড়াতে।
কবিতা লেখার জন্য চাই মনের জোর ও গতি।
নেই তা তাই কবিতা লেখার সাধের এখনেই ঘটুক ইতি।

১৪৮জন ১৩জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য