যখন থাকবো না আর

ত্রিস্তান ১২ মার্চ ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১২:৫৯:২৭পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৭ মন্তব্য

এই নির্ঘুম রাত আমার আদিগন্ত সজ্জিত ব্যথার অলঙ্কার,
যখন পূঞ্জীভূত গুঞ্জরণে জীবনে বিষাদ ছুঁয়ে যায়
আমি দেখি নির্মিলিত জোসনা, ডাহুকের গান
নিভু নিভু জোনাকির মতো –
আমি বয়ে বেড়াই মহাকালের পথে এক মৃতপ্রায় প্রাণ।

যখন রাত্রি নিঝুম,
সহস্র যন্ত্রনার আর্তচিৎকারে বিদীর্ণ হৃদয় খানি
বুকের পাঁজর ভেদ করে বেরিয়ে আসে-
অমাবস্যার অন্ধকার নিয়ে আমার পৃথিবী জুড়ে
একা আমি আর আমার কষ্টের অষ্টপ্রহর
আমি বিচলিত হইনি কভু, পরাভূত সে তো বহুদূর।

আমি অন্ধকারের বুক চিরে লিখে যাই অনাহুত
প্রণয়ের গান,
বসন্তের শেষ বিকেলের রোদ্দুর মেখে,
উদীয়মান নক্ষত্রের বুকে বাসা বাঁধে ভীরু সন্যাস
কলঙ্কের সবটুকু কালিমা ললাটে মেখে
তোমাদের প্রশস্ত পথের যোগান দিয়ে যাই।

নিয়ম করে রোজ রাতে ঘুম বদলাই –
বিনিময়ে চেয়ে নিই একগুচ্ছ বেদনার উত্তাল ঢেউ
উপচে পড়া অশ্রুর প্রতিটি ফোঁটাই তার কাল স্বাক্ষী
আমি রাত্রির দেয়ালে দেয়ালে ছাপি নীল পোস্টার
তোমার শিউলীর পাপড়ির মতো দুটি চোখের তারায়
কিছু অশ্রু আমিও যে জমা রেখে যাই।

জানি একদিন হয়তো এই রাত ফিরে যাবে –
স্বপ্নের ভাঙ্গা তরী বেয়ে, তোমার আঙ্গিনায়
এই নির্জলা প্রণয়ের আকুতি আমার
তোমাকে শোনাবে কিছু অভিযোগের সুর,
ততোদিনে হয়তো আমি মিশে যাবো –
গাঙচিল পাখিদের ভীড়ে, পেরিয়ে শ্বেত সমুদ্দুর।

সময় করে একদিন খুলে দেখো ডায়েরীর প্রথম পাতায়,
নিজ হাতে লিখেছিলে বিন্দু অশ্রু জলে
আমার প্রয়াণ পরে আমায় স্মরণ করে –
অঙ্গীকারের খাতা তুমি খুলবে যতন করে
শেষের পাতায় ও দেখো, তব অন্তঃপুরে
পাবে গো আমারে ।

উত্তরা, ঢাকা

৩০৩জন ১১২জন
24 Shares

২৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য