আমাদের দেশপ্রেমের তুলনা নেই, আমরা ভালোবাসি মা মাটি মানুষকে। এ এক এমন দেশপ্রেম যাকে নিয়ে ট্রল করতে আমরা মোটেও পিছপা হইনা।

বলা চলে এক স্বর্গীয় অনুভূতির আমেজ পাই আমরা ফেসবুকে দেশপ্রেম কপচিয়ে। দেশপ্রেমকে কপচিয়ে কপচিয়ে সেটা থেকে নিংড়ানো শেষ রক্তবিন্দুটুকুও আমরা ড্রাকুলার মত চুষে চুষে খাই।

আমাদের রন্ধ্রে রন্ধ্রে মিশে আছে চেতনা নামক এক অভাবনীয় মশাল। যাতে একটা দেয়াশলাইয়ের কাঠির ছোঁয়া লাগলেই ফস্ করে জ্বলে ওঠে।

আমার মনে হয় পৃথিবীতে যত ফেসবুক ব্যবহারকারী আছেন তারমধ্য থেকে বাংলাদেশের নাম সবার উপরে। কেন? কারন কি? কারন আমাদের চেতনাভুতি। ফেসবুকে নিজের দেশপ্রেমের চেতনা সারা পৃথিবীকে জানান দিয়ে বলি- ভালোবাসি বাংলাদেশ।

অথচ যারা এই অনুভুতি নিয়ে নাড়াচাড়া করেন তারা আসলে কেমন? তাদের কি সত্যি দেশপ্রেম এমন যতটা ফেসবুকে দেখায় বা দেখি? তাহলে তার প্রতিবেশী গরীব মানুষটা কেন একটা গরম কাপড়ের অভাবে ঠান্ডায় ঠক্ ঠক্ করে কাঁপে? কেন তার বাসার সামনের ফুটপাতে একজন বৃদ্ধ ভিক্ষুক প্রতিদিন ভিক্ষা করতে আসে? কোনদিনও দেশপ্রেমে উজ্জীবিত মানুষ হিসেবে আপনি আমি তাদের সাহায্য করেছি কি?

আমরা বাড়ান্দায় দাঁড়িয়ে সেই ভিক্ষুককে দেখি আর ফেসবুকে দেশপ্রেম কপচাই। তাদের দশটাকাও নিজে কোনদিনও সাহায্য করিনা। অসহায় মানুষের ছবি তুলে ফেসবুকে দেই, আহা উহু করি আর নিজের চেতনাভুতিকে সুসসুড়ি দেই। এ যেন খুঁজলি হলে চুলকিয়ে যেমন মজা পাওয়া যায় সেইরকম সুখানুভূতি।

অথচ আমি নিজে একবার শীতার্থদের সাহায্য চেয়ে ফেসবুকে পোস্ট দিয়েছিলাম কেউ রেসপন্স করেনি। আমার পোস্ট দেখে চেতনার আঁধার সেসব মানুষ পোস্টে লাইকও দেননি। কেন জানেন? পাছে যদি তাদের কাছে সাহায্য চাই! এই ভয়ে ইগনোর করে গেছেন। কিন্তু আমার কাজেটি আমি ছোটখাটোভাবে হলেও সফল করেছি।

অনেকে আবার আরো একধাপ উপরে। আপনি ফেসবুকে কারো অসয়হায়ত্ব নিয়ে একটা ছবি দিবেনতো সেটা তাদের অনুভুতিকে দোলা দিয়ে যায়, চেতনাভুতি তাদের মনে গান গায়-” ইশারায় শীষ দিয়ে আমাকে ডেকোনা”। সেই ছবিকে নিয়ে ব্যাখ্যা বিশ্লেষণ করে নিজেকে প্রমান করেই ছাড়ে আমি কতবড় চেতনাধারী।

কে কোন দল সাপোর্ট করেন তা নিজের কাছে রাখুননা। ফেসবুকে একে অন্যকে নিয়ে ট্রল করার দরকার আছে কি? আমরা দেশপ্রেমকে কি নিজের কাজে প্রমান করতে পারিনা? নাকি এসব করে অর্গাজমীয় সুখ পান বা পাই আপনি, আমরা?

নিজে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশের জন্য দেশের মানুষের জন্য সত্যিকারভাবে কিছু করুন তাহলেই দেশ সুন্দর হবে। তারজন্য ফেসবুকে নয় নিজের বিবেককে নাড়াচাড়া করুন। ফেসবুকে এসব করে সাময়িক মজা পাবেন আর মন থেকে করলে সারাজীবন স্বর্গীয় অনুভুতি অনুভব করবেন। এ সুখ মিথ্যে চেতনার অর্গাজমীয় সুখ থেকেও অনেক প্রখর।

ভালোবাসি বাংলাদেশ।

৭১৭জন ৫৫৫জন
27 Shares

২৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ