Abnormal Relation

রাফি আরাফাত ২৯ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার, ০৬:০৩:৫৭পূর্বাহ্ন গল্প ১৯ মন্তব্য
  • সবার থেকে নিজেদের আলাদা করে দেখাটা আমাদের সবার ব্যাক্তিগত আগ্রহ। সবাই চাই নিজেদের আলাদা করে দেখতে। কিন্তু এই আলাদা করে দেখার মাঝে কিছু হাসি কান্না থাকে। কেননা কেউ এতোটাই আলাদা করে দেখে যে,সেই আলাদা করে দেখা আসলেই আলাদা!


    গল্পটা দুজনের। পড়ার পর হাসবেন নাকি কি বলবেন আমি জানি না। তবে হুম, গল্পটায় আলাদা আলাদা ভাব আছে! দিয়া আর রাব্বির গল্প। দুজনেই দুজনের প্রেমে হাবুডুবু খায়। তবে কেউ কাউকে এখনো বলেনি। দেখি এখন পরে কি হয়!

    দিয়া কলেজ শেষ করে ইউনিভার্সিটিতে উঠলো,আর রাব্বি ২ বছর আগেই উঠছে। তাই দিয়া মনে করে রাব্বিকে এখন সব বলা দরকার। তবে তাদের দুজনের মাঝে আলাদা আলাদা একটা ভাব আছে, যার কারনে তারা দুজনে চায় সবার মতো করে না করে,নিজেদের মতো করে একটা সম্পর্ক শুরু করা!

    দিয়া ভাবলো, কাল রাব্বিকে সে কিছুক্ষণ দেখবে,তারপর মুচকি হাসবে,তার কাছাকাছি বসবে,এসব দেখে রাব্বি বুজতে পারবে সব,তারপর তার হাত ধরে বলবে, এতো ভালবাসো কেন আমাকে?প্রতিউত্তরে দিয়া বলবে,জানি না আর লজ্জায় মাথায় লুকাবে!

    এদিকে রাব্বি কাল দেখা করার কথা শুনে ভাবলো,আমরা যদি ভালোবাসি না বলে ভালবাসা শুরু করি তাহলে কেমন হয়! মানে জানবো দুজন দুজনকে ভালবাসি কিন্তু কখনোই কেউ কাউকে ভালবাসি বলবো না!

    দুজন ঠিকি সেদিন গেলো, কিন্তু কিছু হলো না। কারন দিয়া তার প্লান মতো রাব্বিকে ভালবাসি বলানোর জন্য তার ইঙ্গিত দিলো,আর রাব্বি তার প্লান মতো ভালবাসি না বলে ভালবাসার জন্য অভিনয় করে গেলো!

    কিছুদিন পর দিয়া আবার দেখা করতে যাবে। এবার সে নিজের মুখেই বলবে ভালবাসি বলে ঠিক করলো।কারন সবসময় ছেলেরা আগে বলে, তাই সে এইবার আগে বলবে,তাহলে সবার থেকে আলাদা হবে শুরুটা!

    এদিকে রাব্বি এবার ভাবলো,যেহেতু ভালবাসি না বলে তাদের সম্পর্ক সেদিন শুরু হয়েছে তাই দিয়া তাকে কতোটা ভালবাসে এটা দেখার জন্য সে কাল অসুস্থ হয়ে যাবে।

    প্লান মতো দিয়া ভালবাসি বলতে গেলো,আর রাব্বি গেলো ভালবাসা মাপতে। কিন্তু সেদিনও কিছু হলো না। কারন রাব্বির অসুস্থতা দেখে দিয়া তাকে কি বলবে বা কি করবে বুঝে উঠতে না পেরে চুপ করে ছিলো, আর রাব্বি দিয়ার কাছ থেকে কোন প্রকার প্রত্যাশিত অস্থিরতা না দেখে সেও চুপ করে ছিলো।

    এবার রাব্বি কিছুটা রাগ করলো দিয়ার এমন আচরণ দেখে। কারন সে অসুস্থ আর দিয়া চুপ করে থাকলো। আর দিয়াও সেদিনের জন্য প্রস্তুত ছিলো না,কিন্তু সেটা রাব্বি তো জানে না। আর দিয়ারও বেশ অভিমান হলো রাব্বির প্রতি,তার সেদিনই অসুস্থ হতে হবে এই ভেবে!

    কিছুদিন যাওয়ার পর আবার দেখা করবে বলে ঠিক করলো তারা। দিয়া ভাবলো,যেহেতু আই লাভ ইউ বলা যাচ্ছে না, তাই আমি আই হেট ইউ বলবো ৷আর রাব্বি অবাক হবে। কারন সেও চায় আমাদের সম্পর্কটা আলাদা ভাবে শুরু হতে।

    এদিকে রাব্বি ভাবলো,যেহেতু তাদের সম্পর্কের বেশ কিছুদিন হয়ে যাচ্ছে, তাই সে কাল দিয়ার হাত ধরে অনেকক্ষন হাটবে।

    ব্যাপারটা এখন কি দাড়ালো? রাব্বির ভাবনা মতে তারা এখন একটা সম্পর্কে আছে, আর দিয়ার ভাবনা মতে কাল তাদের সম্পর্ক শুরু হবে আই হেট ইউ দিয়ে। কারন দিয়া জানে না যে, রাব্বি চায় ভালবাসি না বলে ভালবাসার সম্পর্ক গড়ে তুলা,আর রাব্বি জানে না যে, দিয়া চায়, আই হেট ইউ বলে সম্পর্কটা শুরু করা।

    অবশেষে তারা মুখোমুখি হলো ৷ রাব্বি ভাবছে হাতটা কি ধরবো? আর দিয়া ভাবছে আমি কি তাকে বলবো? এমন একটা অবস্থায় দিয়া হঠাৎ বলে উঠলো, রাব্বি আই হেট ইউ! দিয়ার প্লান মতো রাব্বি ঠিকি অবাক হলো, কিন্তু এই সেই অবাক হওয়া নয় ৷কারন রাব্বির মতে তারা সম্পর্কে আছে, আর দিয়ার মতে আজ শুরু হবে তাদের সম্পর্ক। তাই রাব্বির মতে যেহেতু তাদের সম্পর্ক শুরু হয়ে গেছে তাই, এটা শুনার পর রাব্বি অবাক হয়ে গেলো। তাই কিছু না বলেই রাব্বি দ্রুত সেখান থেকে চলে গেলো।

    বাসায় গিয়ে রাব্বি ভাবে,যে সম্পর্কের দুদিনের মাথায় আমাকে আই হেট ইউ বলে সে কিভাবে আমাকে নিয়ে সারাজীবন থাকবে? তাও মুখের উপর আই হেট ইউ বলে। না আমার ভাবনায় ভুল ছিলো। তাই রাব্বি দিয়াকে ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করে।

    এদিকে দিয়া ভাবে,রাব্বি আমাকে এভাবে ইগনোর করবে সেটা আমার জানা ছিলো না। সে যদি আমাকে ভালো না বাসে তাহলে এতোদিন এমন করার কি ছিলো? আসলে ছেলেরা এমনি! মেয়েদের অনূভুতি নিয়ে খেলতে তাদের বেশ ভালো লাগে।

    [সম্পর্কে দুজন দুজনকে যতো সহজে বুঝতে পারবে,সম্পর্ক ততো সহজে দুজন দুজনকে কাছাকাছি এনে দিবে। যেখানে দুটি মন এক হয়ে যাবে। তখন দুটি মনের সব ভাবনাই এক হবে। তাই বুঝে উঠার ব্যাপারটাই সম্পর্কে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ! ]

১১২জন ১০জন
3 Shares

১৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য