“চুরি করা মহাপাপ”,  শোনা কথা কিংবা বইয়ের কথার চাইতে হাতেকলমে শিক্ষা অতীব জরুরী। খুন করে আউলিয়া না হলেও কিছুটা পাপ না করে পূন্যের শিক্ষাটা খানিক অপূর্ণ থেকে যায়। পাপীর যুক্তির অভাব নেই 🙂
সব শিক্ষা পরিবার থেকেই শুরু হয়, মানে গিনিপিগ পরিবারের কেউ না কেউ, এক্ষেত্রেও ব্যতিক্রম হয়নি প্র্যাক্টিকেল টেস্টের, যদিও বাবার পকেট থেকে ৫/১০ টাকা সরানো চুরি হতেই পারেনা, ওগুলো তো আমাদের জন্যেই।

যেটা আজও খচখচ করে সেটা একটা দোয়েল পাখি। কিছুতেই লোভ সামলাতে পারিনি। খুব পিচ্চি ছিলাম তবে অন্যায় ছিল সেটা বুঝতাম, হাতপা আর দুরুদুরু বুকে দোয়েল পাখিটা নিয়ে এসেছিলাম একটা বন্ধুর বাড়ি থেকে। পাখিটা যে কি মিস্টি করে শীষ দেয়, এরপর মুখের ভেতর পানি ভরে ফুঁ দিলে আরেক সুরে শীষ দেয়। হুম দেয়, কারণ চিনামাটির সেই দোয়েলটা এখনো আছে আমাদের বাড়িতে। মা ওটাকে ফিরিয়ে দিতে পারেনি, কারণ কোথা থেকে আমি এনেছি মনেই করতে পারিনি ( মনে মনেঃ এত কস্ট করে হাতপা কাঁপিয়ে চুরি করে এনেছি কি ফিরিয়ে দেবার জন্যে? )

না আর চুরি করিনি, তবে পরোপকারী ছিলাম খুব। পাশের বাসার আঙ্গুরের মা যখন বিড়ি কিনে এনে দিতে বললো আমি তো এক পায়ে খাঁড়া। আরেকজনকে সাথে নিয়ে বিড়ি কিনে এনে দিলাম তাকে। আঙ্গুরের মা পরে আমাকে জানালো বিড়ির প্যাকেট খোলা ছিল আর একটা বিড়ি অর্ধেক খাওয়া ছিল। আমি তো আকাশ থেকে পড়লাম, আমিতো কিছু জানিনা!!! আমি যেমন জানিনা সিগারেট অর্ধেকটা কিভাবে পুড়লো, আঙ্গুরের মা ও তেমনি জানেনা বিড়ি আর দেয়াশলাই একসাথে কিনতে দিতে নাই :p

এরপর আমি বেজায় লক্ষী মেয়ে। ইন্টারে পড়ার সময় এক ঈদে তুপা আর আরেক বান্ধবী এসে বললো, সিগারেট খাইতে মন চায়। বললাম, এইটা কোন ব্যাপার? অপেক্ষা কর। ছোট মামার পকেট থেকে আস্তেসুস্থে দুইটা গোল্ডলিফ নিয়ে আসলাম, তবে এইটা চুরি ছিল না। দুই টাকার দুইটা নোট সিগারেটের মত রোল করে প্যাকেটে রেখে দিয়ে আসলাম। পরে মামা আমাকে জানালো জানিস কি হইছে, মেজদা’র মনে হয় সিগারেট শেষ হইয়া গেছে, আমার সিগারেটের প্যাকেটে টাকা রেখে সিগারেট নিয়ে গেছে। আমি যথা সম্ভব আশ্চর্য হবার ভাব করে বললাম, তাই!!!!!

বহুদিন পর চুরিবিদ্যা টা কাজে লাগাবার জন্য হাত কেমন করছে, তবে এখন তো বড় থুক্কু বুড়ি হইছি, এখন কি আর চুরি করলে চলে? এখন ডাকাতি করতে হবে। কিন্তু কিভাবে? চুরি যাওয়া সেদিন ফিরিয়ে আনতে কি কি ডাকাতি করা চাই এখন?

৫২৬জন ৫২৬জন
0 Shares

৪৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ