গল্প: অনন্যোপায়

শিপু ভাই ২ মার্চ ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ০৬:৪৭:৫৩অপরাহ্ন গল্প, সাহিত্য ৩১ মন্তব্য

আদালতে আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে আছে ২২ বছরের যুবক মজনু। সাক্ষির কাঠগড়ায় মজনুর বড় চাচি সায়েরা খাতুন।
“যাহা বলিব সত্য বলিব; সত্য বৈ মিথ্যা বলিবো না!”
চেয়ার থেকে উঠে দাড়ালেন বাদী পক্ষের আইনজীবী।
– মহামান্য আদালত! আমাদের নৈতিকতা আজ কোথায় গিয়ে দাড়িয়েছে। সম্পত্তি নিয়ে ঝগড়া করে এই নরপশু মজনু নিজের আপন চাচিকে ধর্ষনের চেষ্টা করেছে, মারধর করেছে।”
আঁচল দিয়ে মুখ ঢেকে ফুপিয়ে ওঠেন সায়েরা খাতুন।
-বলুন, আপনার দেবরের ছেলে আপনাকে মেরেছে কি না?
– জ্বি
– রাতের অন্ধকারে আপনার ইজ্জতহানী করতে চেষ্টা করেছে?

স্থির হয়ে থাকে সায়েরা বানু।

– বলুন, এই ছেলে আপনাকে ধর্ষন করতে চেয়েছে?

হাউমাউ করে কেদে ওঠে সায়েরা খাতুন!

– বলুন, চুপ করে থাকবেন না।

উপরে নিচে মাথা দোলায় সায়েরা। “জি” বলেই কাদতে কাদতে কাঠগড়া থেকে নেমে যায়।

মজনু শুধু অস্ফুটে বললো – “বড় মা!!!”

ভিক্টিমের সাক্ষিকে আমলে নিয়ে আদালত ৫ বছরের স্বশ্রম কারাদন্ড দেয় মজনুকে।
মজনুর চাচা বিজয়ীর হাসি হাসতে হাসতে আদালত থেকে বের হয়।
“চলো সায়েরা!”

সায়েরা খাতুন স্বামীর পেছন পেছন বের হয়। এই বয়সে স্বামী তালাক দিলে তার যাওয়ার কোন জায়গা নাই যে!

৪২৪জন ৪২৪জন
0 Shares

৩১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ