কপি পেস্ট কী তা আশাকরি আমরা সবাই জানি। তাই এই প্রসংগে আর আলোচনা নয়। প্রায় সমস্ত সাইটেই কপি পেস্টকে নিরুৎসাহিত/নিষিদ্ধ করা হয়। আমরা অনেকে এই কপি পেস্টের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে জানি না। এর ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে কিছুটা ধারনা দেয়ার জন্য এই পোস্ট।

বাস্তবে বোঝানোর জন্য আমি সোনেলা ব্লগেরই উদাহরণ দিচ্ছি।

আমরা অনেকেই জান যে সোনেলার প্রায় ৭৮% ভিজিটর গুগল এবং অন্যান্য সার্চ সার্চ ইঞ্জিন থেকে আসেন। একজন ভিজিটর যখন কোন বিষয়ে সার্চ করেন গুগলে, তখন সে বিষয় যদি সোনেলায় থাকে তবে সার্চের ফলাফলে সোনেলার লেখার লিংকটি চলে আসে এবং ভিজিটর সেই লিংকে ক্লিক করে সোনেলার পোস্টটি পড়েন। ধরা যাক, প্রতিদিন সোনেলা ব্লগ ভিজিট করেন ১০০০ জন পাঠক। এই পাঠকদের মধ্যে ৭৮০ জন গুগল এবং অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনের মাধ্যমে আসেন। ২২০ জন আসেন সোনেলার নির্দিষ্ট পাঠক এবং ফেইসবুক থেকে। এখন কোন কারণে যদি গুগল অথবা অন্য সার্চ ইঞ্জিন সোনেলাকে ব্লক করে দেয়, তাহলে সোনেলার কোন পোষ্ট সার্চ দিলে আর পাওয়া যাবে না। ফলাফল হবে সোনেলা ৭৮০ জন পাঠক হারাবে। মাত্র ২২০ জন পাঠক সোনেলার লেখা পড়বে।

কপি পেস্ট লেখাগুলো সোনেলার জন্যে অত্যন্ত ক্ষতিকর।
সার্চ ইঞ্জিন যখন ধরে ফেলবে একটি লেখা অন্য কোন সাইটে সোনেলার পূর্বে প্রকাশিত হয়েছে, তখন গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন ভাববে সোনেলার সেই কপি পেস্ট করা পোস্টটি শ্রেফ চুরি করা। গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনে তখন  সোনেলার লেখা ব্লক করে দেবে। সার্চ রেজাল্টে সোনেলার আর কোনো পোস্ট দেখাবে না। হঠাৎ করেই ভিজিটর-শূন্য ( গুগল এবং অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিনের পাঠক)  হয়ে যাবে ব্লগ। আমরা যারা সোনেলাকে ভালবাসি, তাঁরা কি এটা চাই যে, সোনেলার ভিজিটর কমে যাক?

আজকাল সবাই ইন্টারনেট ব্যবহারে পারদর্শিতা অর্জন করেছে। কোন লেখা কোথা থেকে কপি পেস্ট করে কোন সাইটে দিয়েছে তা অতি সহজেই বের করা যায়। যার লেখা কপি পেস্ট করা হল, তিনি সোনেলা ব্লগের উপর মামলা করতে পারেন।
অন্য সাইটের পাঠকরা যখন দেখবেন যে সোনেলা ব্লগে কপি পেস্ট পোষ্ট খুব বেশি, সোনেলার উপর আগ্রহ হারিয়ে ফেলবেন, আমাদের সাইটকে অবমূল্যায়ন করবেন।
আশাকরি খুব সহজেই বুঝাতে পেরেছি কপি পেস্ট কেন একটি সাইটের জন্য ক্ষতিকর।

লেখা সন্তানের মতোঃ
একটি সৃষ্টিশীল লেখা লেখকের কাছে সন্তানের মতো। সুন্দর একটি লেখার পেছনে লেখকের মেধা আর শ্রমের বিনিয়োগ করতে হয়। সেই লেখা আরেকজন কপি করে নিজের নামে চালিয়ে দেওয়াটা যেমন মূল লেখকের সাথে প্রতারণা, তেমনি তাঁর জন্যে কষ্টকরও বটে। অনেকেই লেখা চুরির ভয়ে নিয়মিত লেখালেখি থেকে সরে যান।

যিনি কপি/পেস্ট করছেন তাঁর ক্ষতিঃ
কপি পেস্টে অভ্যস্থ হয়ে গেলে লেখক তার সৃষ্টিশীলতা হারিয়ে ফেলবেন। তখন কষ্ট করে একটি লেখা না লিখে অন্য কোন সাইটের লেখা কপি করে অন্য কোন সাইটে পেস্ট করবেন। হয়ত কিছু লাইন ওলট পালট করে ঘুড়িয়ে ফিরিয়ে দেবেন। এটি কোনোমতেই উচিৎ না।

উদাহরণঃ
আসুন কিভাবে কাজ করে গুগল তা দেখি। গুগল সার্চ বারে লেখি ‘ প্রথম যুগে এখনকার মতো সুইচ চাপলেই ছবি উঠে যেত না ‘। এরপর এন্টার দেই। দেখুন এভাবে সার্চের ফলাফল এসেছে। লিংক

এমন ভাবে হুবহু লাইন এক হওয়ায় একটি সময়ে গুগল সনাক্ত করে ফেলবে যে এই লাইন যুক্ত সোনেলায় প্রকাশিত লেখাটি পূর্বে অন্য সাইটে শিরোনামসহ প্রকাশিত হয়েছিল। আমরা যারা এখানের নিয়মিত পাঠক, তারা এমন পোস্ট কপি পেস্ট না বললেও, গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন আমাদের মত ভাববে এমন কোনো নিশ্চয়তা নেই। এমন পোষ্ট বেশি হলে গুগল বা অন্য সার্চ ইঞ্জিন এক সময় সোনেলা ব্লগকে ব্লক করে দেবে এবং সোনেলার পোষ্ট আর সার্চ দিলে পাওয়া যাবে না। আমরা নিশ্চয়ই এমনটা চাই না।


এই ছবিটি সোনেলার ভিজিটর এর গ্রাফ। ১৪ মে হতে ১৯ মে পর্যন্ত এখানে দেখান হয়েছে। ১৪ মে পর্যন্ত সোনেলার ভিজিটর ঊর্ধ্বমুখী ছিল। এরপর কমে গিয়েছে। ব্লু কালার হচ্ছে নতুন ভিজিটর। আমরা তো সবাই চাই, সোনেলার পাঠক যেন দিন দিন বৃদ্ধি পাক। তাই না?

আসুন আমরা সবাই প্রতিজ্ঞা করি ‘সোনেলায় কপি পেস্ট-আর না, আর-না’

৮৩১জন ৮৩৩জন
0 Shares

১২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ