শুভ্র পরী ( ১ )

তার ছেঁড়া ৩ ডিসেম্বর ২০১৩, মঙ্গলবার, ০৬:১০:২৩অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি, এদেশ, গল্প, বিবিধ ২২ মন্তব্য

শুভ্র পরী ( ১ )

এখনো কোন বিড়ালের মিউ মিউ শুনলে হার্টবিট বেড়ে যায় । দেহের মাঝে রক্তের তুমুল প্রবাহ শুরু হয়ে যায় । চারদিক থেকে কালো কুয়াশা ঘিরে ধরে থাকে । দম বন্ধ হয়ে আসে । জীবন স্থির হয়ে যায় ।

নাবিলা আমার ছোট বোনের বেস্টেস্ট ফ্রেন্ড । প্রথম প্রথম যখন বাসায় আসত , কোলে করে সাদা ফুটফুটে একটা বিড়াল নিয়ে আসত । কিছুদিন পর থেকে এসেই আগে আমার খাটের উপর বিড়ালটাকে রেখে চলে যেত আমার ছোট বোনের কাছে । আমি পশু প্রেমিক ছিলাম না । আধো ঘুমে মাঝে যখন হঠাৎ করে বিড়ালটাকে দেখতাম তখন ঘৃণা এবং রাগে বিছানা থেকে লাফ দিয়ে উঠতাম । চিৎকার করে আমার বোনকে ডেকে ওইটাকে সরাতে বলতাম । আর পাশের রুম থেকে নাবিলার খিল খিল হাসির শব্দ শুনে মেজাজ আরো বিগড়ে যেত । সেই রাগ ঝারতাম আমার বোনের উপর ।

৯ টার মধ্যে আমি বাসা থেকে বেড় হতাম । বাসা থেকে ক্যাম্পাস বেশি দূর না । হেটে গেলে ১৫-২০ মিনিট লাগে আর রিক্সায় গেলে ৮-১০ মিনিট । মেজাজ খারাপ থাকলে আমি হাটা শুরু করতাম , যত হাটতাম তত রাগ বেশি হইত । আমি রাগ বাড়াইতে ভালবাসতাম । ২ মিনিট হাটতেই ঠাশ করে সামনে নাবিলা এসে পড়ল । আমি আরো রেগে গেলাম । বললাম..…

– এই ফাযিল মেয়ে ! দেখে হাটতে পারো নাহ !
– দেখেই তো হাটছি ।
– তাহলে আমার সামনে কেন ?
– ইচ্ছা করে ।
– এইটা কোন টাইপের ফাইযলামি !
– আচ্ছা , আপনি সবসময় এত রেগে থাকেন কেন ?
– সবসময় রেগে থাকি না । তোমাকে দেখলেই আমার রাগ লাগে , তাই ।
– কেন ? আমি দেখতে কি খুব খারাপ !
– না না । তুমি অনেক সুন্দরি । আর সুন্দরি মেয়ে দেখলেই আমার রাগ লাগে ।
– কেন ?
– কারণ আমি দেখতে অনেক খারাপ । জেলাস লাগে ।

তখন আবার নাবিলা খিল খিল করে হেসে উঠল । তার সেই হাসিতে আমি বিভ্রান্ত হয়ে গেলাম । পরিচিত কেউ দেখে ফেললে কেলেঙ্গারী হয়ে যাবে । তাই আমি বললাম..……

– এই মেয়ে সরে দাড়াও । আমি যাব ।
– ভাইয়া , আমার নাম নাবিলা ।
– তো ?
– আমিও যাবো আপনার সাথে ?
– হুট ফাযিল মেয়ে । খুব পাখা গজিয়েছে তাই না !
– হুম অবশ্যই । আমার বন্ধুরাতো আমায় শুভ্র পরী বলে ডাকে । আর পরীর পাখা থাকবে এটাই স্বাভাবিক । 
– হুম ! খুব কথা বলতে পারো দেখছি ! তোমায় আসলে সাদা বিড়াল ডাকা উচিৎ । আমি আজই আন্টিকে তোমার কথা বলে দিব । :@
– আচ্ছা ভাইয়া । ঠিক আছে । আমার আর কিছু করার থাকল না । 
– কি করার থাকল না !
– আপনি যে মতি ভাইয়ের দোকানের পিছনে স্মোকিং করেন সেটা কি আন্টি জানে ? 
– কিহ !!! তুমি আমায় ফলো কর ? 
– আমার আর কাজ নাই নাকি ! রিক্সায় যাচ্ছিলাম , তখন দেখতে পেয়েছি । 
– বিরক্তিকর ! এই তুমি থাকো তো । আমি গেলাম , আমার লেট হয়ে যাচ্ছে । 

এরপর আমি হাটা ধরলাম । পিছন থেকে নাবিলার খিল খিল হাসি শুনতে পাচ্ছিলাম । কেন জানি না , সেই হাসি শুনে আমার রাগ লাগার বদলে হাসি পেয়ে গিয়েছিল ।

( চলবে..…..…..…। )

২১৭জন ২১৭জন
0 Shares

২২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য