মন্তব্য গুচ্ছতার দিনে

ছাইরাছ হেলাল ২৩ মার্চ ২০১৯, শনিবার, ১০:২২:২২পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৫৮ মন্তব্য

অকেজো
শুন্য শুন্যালয়

আমাকে ভালবাসলে আপনি অনেক কিছু হারাবেন। আপনার ভেতর আপনি। আপনার বুকের ভেতর ভোর পাঁচটার মেঘ জমতে থাকবে। দুপুরগুলো হবে আপনার এক একটি না লেখা কবিতা, শাওয়ারে মনে আসতেই যেই লাইনগুলো লিখবেন বলে ভেবে রেখেছিলেন। এভাবে পার হতে হতে আপনি রবীন্দ্রের দুপুরই দেখবেন না। পাখিগুলো কাছে এলেও তাদের ঠোঁটের ফাঁকে আপনি বিড়বিড় ছাড়া কিছুই শুনবেন না। আপনার রাতগুলো শিরা উপশিরা জুড়ে আগ্রাসী ভয় তুলে দেবে উত্তেজনার, তবে সেই রাতগুলো আপনার থাকবেনা। এভাবে ভোর, দুপুর, রাত অদেখার মতো জমতে জমতে আপনি ঝুল বারান্দায় একার মতো পড়ে থাকবেন। নিঃস্ব ঘুমেরাও আপনাকে আদরে নেবেনা। অহেতুক মধ্যরাতে আপনি একাকীত্ব খেতে খেতে একদিন বিষের কথা ভুলে যাবেন।
আমাকে ভালবাসলে আপনি আমাকে পাবেন, তবে যা কিছু হারিয়েছেন তার যন্ত্রণায় আপনার আমাকে নিয়ে কিছুই করবার থাকবেনা।

*************************************************************************************

চোখে আজ আলোর নিশান

আক্ষেপ, উদ্বেগ আর নৈরাশ্য ঘরজুড়ে সাজিয়ে রেখে
ক্ষুধা-তৃষ্ণার চোখ ছুঁয়ে, ছিন্নভিন্নের ব্যস্ত-বুকে মুখ লুকিয়ে
অখাদ্য ভালোবাসা গিলে খেয়ে, ভাবি, ভালোবাসা নাই হয়ে গেছে
সেই কবে!!
চাঁদ, জ্যোৎস্না-মেলে সৌরভ ছুঁড়ে ফিক করে হেসে ফ্যালে,
সন্তর্পণে লুকিয়ে রাখা ভালোবাসার চিত্রকল্প খুলে
রক্তপাতহীন এক যুদ্ধ-বিজয়ের স্মারক পতাকা তুলে ধরে;
প্রশস্ত করতলে আজ রঙিন ফোয়ারা।

************************************************************************************
শুন্য শুন্যালয়,
অশেষ দক্ষতায় তিনি ছবি তুলে খেয়ে ফেলেন!!,
ঐ যে, তার থেকে তার ক্যামেরাটি ভারী ও বড়!!
ছবি তোলা শেখাবেন, বলেছিলেন, কথা রাখেন-নি/রাখেন-না,
রাখবেন-না, তা-ও অবলীলায় বলে ফেলেন!!

**************************************************************************************
অ-কবির অ-কবিতা
সাবিনা ইয়াসমিন

বুক-পকেট ঘড়ির অগোচরে বেজে চলে ছায়া এলার্ম,
বাতাসের ঠিকানা খোঁজে অদৃশ্য চিরকুটের দুর্বোধ্য লিপি ।
গোলাপের পাপড়ি ডানা মেলে চৈতালি হাওয়ায় এক-ঝাঁক প্রজাপতির পাখায় ,
আড়াল চাঁদের হাসিতে বাঁধ ভাঙার গান ।
উষ্ণ মাধবী রাত কাড়ে ঘুম-চোখের অহংকার, শব্দ হাসে অনুভবের অভিযোগে,
অ-কবির -অ-কবিতা যেনো
অলৌকিক অলংকার !!

*****************************************************************************************

আচ্ছন্নতার বিষাদ অলংকার

বাতাসের মত্ত-প্রবলতায় নিমজ্জিত উদ্বেগ
চারপাশে ছড়িয়ে-গড়িয়ে যায়, নিরাবয়ব হরণের
টিক টিক শব্দে;

গর্জন-মেঘ বাতাসে প্রবলতর হয় রূপালি ঘামে,
স্মৃতি-হরণের বিষ-স্রোত দানা বাঁধে হৃদয় জুড়ে,
বিষাদ-অপেক্ষা-মুহূর্তের সমৃদ্ধ দিনে।

******************************************************************************************
সাবিনা-জি;
অদম্য মেধার অফুরান বিস্মরণের চমক।

*******************************************************************************************

“রূপানিইয়াস্মি
প্রহেলিকা

পাথরের ত্বকেও বেড়ে উঠে সুগন্ধি অর্কিড,
নীরব ঢেউয়ে গা ভেজাতে, উল্লাসে খসে পড়ে-
রাত আকাশে ঝুলে থাকা একলা তারা।
এতো কেন ফুঁসে ওঠো!
জলভূমিকে বানাও নিলামের মাঠ
নূতন পণ্য দেখে দাম হাঁকাও চড়া!
জানো কি ঢেউয়ের অনুবাদ কিংবা একাকীত্বের?
তোমার কৌতূহলী ঠোঁটের হ্যাংগারে
কতদিন আর ঝুলে থাকবে শিহরণ!
একদিন ঠিক ব্যাঙ্গময় সাইরেনে
ঘাট ছেড়ে যাবে বাতিল ফেরি।

********************************************************************************************

অপেক্ষার দীপাবলি

ডুব সাঁতার তুলে রেখে, তুমুল শব্দ ছুঁড়ে
কী এক হুইসেল বাজাও
একটানা দু’পায়ে দাঁড়িয়ে,
জ্বলন-ময়দানে দিশেহারা হয়ে
পাথর-অবিচল প্রাণে বিশ্রাম চাই,
স্বকাল সমৃদ্ধ দীপাবলি আসবে কবে?

*********************************************************************************************

প্রহেলিকা,
অসম্ভব ভাল, যুবা শিশুটিকে পছন্দ করি খুউব,
এই পড়ন্তের-বেলায়।

**********************************************************************************************
চার শত!!
নিতান্ত-ই সংখ্যা-ভ্রম মাত্র!!
গুঁজবে কান ফেলবেন না।

৪২৮জন ১১২জন
9 Shares

৫৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ