আস্তিক নাস্তিক ব্যাপারটা নিয়ে ব্লগ জগত এখন হুমকির মুখে, এটা কোনভাবেই মেনে নিতে পারছিনা। আমরা এখন ভার্চুয়ালিও
দুইভাগে বিভক্ত, এই বিভক্তি আমাদের জন্য মঙ্গল নিয়ে আসবেনা। আমরা দিনকে দিন পিছিয়ে যাব, তথ্য প্রবাহের যে অবাধ বিপ্লব
শুরু হয়েছিল, তা এখন মুখ থুবড়ে পড়েছে আমাদের জন্যই। কিছু অতি বুদ্ধিমান ইডিয়ট, অতি চালাক স্টুপিড, অতি স্মার্ট বলদ আর
কিছু ধর্মান্ধ গাঁধার জন্যে আমাদের সবাইকে সাফার করতে হচ্ছে। আসেন কয়েকটা ব্যাপার একটু ঠান্ডা মাথায় ভেবে দেখি।

ব্লগে এখানে ধর্ম বিরোধী অনেক কথা আসে; আসাটাই স্বাভাবিক। ধর্ম যদি একটা মত হয় তাহলে তার বিরুদ্ধ মত অবশ্যই থাকবে,
আমি ধর্মের অনুসারী বলে সবাইকেই এর অনুসারী হতে হবে এটা ভাবা ঠিকনা। প্রত্যেকের নিজস্ব অধিকার
আছে মত প্রকাশের, তবে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যাতে আমার মত অন্যের মতকে কোনভাবে আহত না করে এবং তাদের
মতকে কোনভাবে অপমানিত বা ছোট না করে। এবার অনুভূতিতে আঘাত পাওয়া প্রসঙ্গে আসি, আমি একটি মতের
অনুসারী আপনি আরেকটি মতের অনুসারী (উল্লখ্য, যে নাস্তিক তারও একটা মত আছে) আমি আমার মত প্রকাশ করলাম আপনি আহত
হলেন, আপনি মত প্রকাশ করলেন আমিও আহত হলাম, তাহলে তো সমস্যার সমাধান হবেনা। আমাদের প্রত্যেকের উচিত
সহনশীল হওয়া, আমি যদি আমার মতকেই সর্বশ্রেষ্ঠ মনে করি এবং তার বাইরে কিছু নিতে না পারি, আমার মতবিরুদ্ধ
কথা আসলে আমি যদি রেগে যাই তাহলে আমি অবশ্যই অসুস্থ্য এবং আমাকে ডাক্তারের কাছে নেয়া উচিত। আমার মত
আমি ইচ্ছামত প্রকাশ করব, অন্যরা তাদের মত প্রকাশ করলেই তাদের গলা চেপে ধরব এটা কখনোই মেনে নেয়া যায়না। আমাদের
বোঝা উচিত অন্যের কথায় যদি আমার অনুভূতি আহত হয় তাহলে আমার কথায়ও অন্যের অনুভূতি আহত হতে পারে, অতএব
আমাদের উচিত হবে অনুভূতিগুলোকে সস্তা না বানিয়ে ফেলা; বিশ্বাস অনেক বড় কিছু কারো কথায় তা চলে যায়না।

একজন নাস্তিকের কথায় যদি আস্তিক আহত হন, তাহলে একজন আস্তিকের কথায়ও একজন নাস্তিক আহত হতে পারে। তাই
কে আস্তিক, কে নাস্তিক, কে বিধর্মী সেগুলো বাদ দিয়ে আমাদের সবার উচিত একসাথে থাকা, একে অপরকে আঘাত না করা। আমার
বিশ্বাস আমার কাছে, আপনারটা আপনার কাছে, আমরা ভাই ভাই। আমি আপনাকে শ্রদ্ধা করি, আপনি আমাকে শ্রদ্ধা করেন, আমরা একই
ছাদের নিচে বাস করি, মানে আমরা একই স্বাধীন দেশের নাগরিক। দেশের মঙ্গল হলে তাতে শুধুমাত্র আপনার মঙ্গল হবেনা,
আমারও মঙ্গল হবে; নিজেদের মধ্যে বিভেদ তৈরী করে কোন লাভ নেই তাতে নিজের পায়ে নিজেই কুড়াল মারা হবে। আসেন
সকলে মিলে দেশের শ্ত্রুদের রুখে দাঁড়াই, এটা যেমন একজন ধর্মপ্রাণ মানুষের মাতৃভূমি, তেমনে একজন আস্তিকেরও মাতৃভূমি।
কেউ যদি মনে করেন, ধর্মপ্রাণ মানুষের এই দেশে কোন নাস্তিকের ঠাঁই নেই, তাহলে আপনি ভুল মনে করেন, আপনার
চিন্তাভাবনা রিফাইন করতে হবে। যারা দেশের শত্রু তারা এভাবেই মানুষের মাঝে বিভেদ সৃষ্টি করবে,
আমরা যদি ওদের পাত্তা দেই তাহলে সেটা হবে খাল কেটে কুমির ডেকে আনার সামিল।

“প্রগতি” বলে একটা শব্দ আছে, যা মৌলবাদীদের কানের বিষ, প্লিজ নিজেরা মারামারি কাটাকাটি না করে মৌলবাদীদের
রুখে দাঁড়াই, আমাদের প্রগতির পথের বাঁধাগুলোকে উপড়ে ফেলি। নাহলে একসমইয় আমাদের সকলকেই পস্তাতে হবে।

যারা বিশ্বাসী তাদেরকে বলছি, আসেন আমরা সহনশীল হই, প্রকৃত ধর্মকে জানি সেভাবেই চলি। আর
যারা অবিশ্বাসী তাদেরকে বলছি, আপনি বিশ্বাস করেননা সেটা আপনার ব্যাপার আমি আপনাকে বিশ্বাস
করতে বলছিনা। প্লিজ বিকৃত মন্তব্য করা থেকে বিরত থাকেন, যে সময়টা এই বিষয় নিয়ে পড়ে/লিখে নষ্ট করছেন সেই
সময়ে অনেক ভাল/গঠনমূলক কাজ করা যায়। আস্তিক/নাস্তিক বিভেদ না এনে মৌলবাদী আর যুদ্ধাপরাধীদের বিরুদ্ধে আমরা এক হই,
সকল অপশক্তির বিষদাঁত ভেঙ্গে ফেলি, এই দেশ আমার; আওয়ামীলীগ আমাকে খাওয়ায় না, বিএনপিও খাওয়ায় না, আর
জামাত ওরাতো সুযোগ পেলেই পুটু মারে।।

২২৫জন ২২৫জন
0 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য