অতৃপ্ত জীবন….প্রবাসী০৯

মনির হোসেন মমি ৫ জানুয়ারী ২০১৪, রবিবার, ০৭:৩৩:২৫অপরাহ্ন বিবিধ ১৮ মন্তব্য

অতৃপ্ত জীবন….প্রবাসী০৮

আল্লাহ সৃষ্টির অপরূপ প্রকৃতিকে পৃথিবীর সমস্ত সবুজ রং দিয়ে সাজিয়েছেন ইন্দোনেশিয়া।আয়াতনে ১৯০৪৫৬৯ বর্গ কিঃমিঃ ।প্রায় ৭০০ জাতির মধ্যে বিভিন্ন গোত্রে বিভক্ত।বালিতে লোকসংখ্যা ইন্দোনেশিয়ার প্রায় ১.৫%।ইন্দোনেশিয়ার বেশীর ভাগ দ্বীপ বালিতে বেশ কয়েকটি দ্বীপ নিয়ে বালি।বালি এবং ইন্দোনেশিয়ার কিছু উল্লেখ্যযোগ্য স্হানের ছবির মাধ্যমে এর বর্ননা দেয়ার চেষ্টা করব।

ইন্দোনেশিয়ার জাতীয় পতাকা
পৃথিবীর কোথায় অবস্হিত

রূপিয়া_সয়াত

আমি এবং মালেশিয়ার এক বন্ধু ইয়ারপোর্ট থেকে নেমে ইউ এস ডলার ইন্দোনেশিয়া রূপিতে পরিবর্তন করতে গেলে অবাক হলাম এত বড় বড় অংকের নোট

দেখে।সেখান থেকে একটি টেক্সি করে যাচ্ছি বন্ধুর এক বন্ধুর বাড়ীতে ।বেশ গোছানো বাড়ী যেন রূপে অপরূপে সেজেছে পল্লী।বন্ধুর বন্ধুকে সাথে নিয়ে ঘুড়লাম বালির বিভিন্ন স্হানে।নীচের এই বাড়িটি জাভার।

বোট দ্বীপ এক মাত্র বোটই এখানে যাওয়ার মাধ্যম

সবাই এটাকে অশনি সংকেত রাক্ষস বলে ডাকে এবং দল মত নির্বিশেষে এ জাতীয় চরিত্রকে ঘৃনা করে।

সেখানে জাতি ভেদে বিভিন্ন প্রকার নাচের প্রচল আছে……

কাবাসারান রাস্তায় শোভা যাত্রার দৃশ্য।

জাভাতে রামায়ানা নৃত্য জনপ্রিয় এটা সাধারনত হিন্দু ধর্মাবলীদের প্রিয় নৃত্য।

সামান নৃত্য সাধারনতঃ সবার প্রিয়।

তারিগুলেক.. নৃত্য সাধারনতঃ ডিক্সো ভারে কিংবা কোন উৎসব মূখর অনুষ্টানে বেশ জনপ্রিয়।

এয়ার তারজুন ঝর্না…প্রকৃতির সবুজে ভরা ঝর্নাটি বাস

বৌদ্ধ ধর্মালম্বীদের সবচেয়ে পছন্দের মন্দির”বুদ্ধিস মনষ্টার”

এখানে প্রতিদিন চলে মৎস নিধন কাজ

প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যে ভরা চাদনিঁ বুকো…..

বালিতে ময়লা আর্বজনা ফেলানোর স্হান

দোকানদারদের মাঝে মেয়ে সংখ্যাই বেশী………..

আছে চোখে পড়ার মত বিশাল চা বাগান…………..

বালির মনোরম সুইমিং পোল………

রাতে ভিন্ন এক উৎসবে মাতিয়ে রাখে পর্যটকদের……

পানি পথে বালিতে যাওয়ার পথ……….

বালির সি বিচ…….প্রতিদিন থাকে লোকে লোকারন্য এর মধ্যে অষ্ট্রেলিয়ানই বেশী।

আর একটি সি বিচ….পাথরের নারী মুর্তিটি যেন পর্যটকদের বাড়তি আর্কষন।

বন্ধুর সাথে গুড়তে তেমন একটা সময় পাইনি রাতেই আবার রওয়ানা দিতে হবে সিঙ্গাপুরে।তাই রাতের খাবারটা সারতে হল বন্ধুর বন্ধুর বাড়ীতে।বেশ অতিথী পরায়ন।মনে হয়েছিল যেন আমি আমার জম্মভুমি বাংলাদেশেই মেহমান।খাবারের ছলে বন্ধুর বন্ধুর মা বেশ কিছু ইন্দোনেশিয়ার বালি দ্বীপের জম্মের ইতিহাস বলতে থাকে সে যদিও ইংরেজী কিংবা বাংলা বুঝেনা কিন্তু হিন্দী ভাষা বেশ ভালই রপ্ত করেছেন।হিন্দীতেই কথা বলে আমার মত তার ভাই বোনেরাও অবাক হয়ে শুনছে।আমাদের মুসলিমদের মতই ওরাও খাবার মা বাবা ভাই বোন সবাই এক সাথে খায়।ভিন দেশী হলেও ওদের কৃষ্টি কালচারে উপমহাদেশীয় ছোয়াই বেশী।সেখানে ছেলেদের তুলনায় মেয়েরা আরো বেশী স্মার্ট এবং প্রতিভাবান।শষ্যের পাশাপাশি পর্যটকের আয় সে দেশে সব চেয়ে বড় রাষ্ট্রীয় আয়ের উৎস।পর্যটকদের জন্য রয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা বাহিনী।বেড়াতে যাওয়া পর্যটকদের কিছুই বলতে হয় না ওরাই এগিয়ে এসে বলে -মে আই হেল্প ইউ।বেশ কিছু ডলার নিয়েছিলাম বন্ধুর বন্ধুটি আমাদের কোন টাকাই অপচয় করতে দেয়নি সমস্ত খরচ সেই বহন করে।সবাইকে কৃতজ্ঞতা জানিয়ে রাত নয়টায় বিমানে উঠে চলে আসি সিঙ্গাপুর।

 

চলবে…..

২২৮জন ২২৮জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

️️ 🍂️️ 💝 ️️ 🌟 🌺 💐 💥 🌻 🍄 🌹 💐 ⭐️ 🎉 🎊