Category: ভ্রমণ

মামাকে দেখতে যাওয়া (পর্ব-১৩)

শামীম চৌধুরী ১৭ আগস্ট ২০২০, সোমবার, ০৮:০৬:৫১অপরাহ্ন ভ্রমণ ২১ মন্তব্য
আগের পর্বের লিংক- মাামাকে দেখতে যাওয়া (পর্ব-১২) পর্ব-১৩ কালোবকের ছবি তোলার সময় আমার রিক্সার পার্টনার খোন্দকার কিসমত ভাই অন্য পাখির ছবি তোলায় ব্যাস্ত ছিলেন। আমার সঙ্গীরা কেউই আমার সঙ্গে ছিলেন না। তাঁরা সবাই যার যার মতন ছবি তুলছিলেন। দলের সাথীরা কালোবকের ছবি তুলতে না পারায় আমার মনটা খারাপ ছিলো। পরে এক সঙ্গে হলে আমি উনাদের [ বিস্তারিত ]

মাামাকে দেখতে যাওয়া (পর্ব-১২)

শামীম চৌধুরী ১৬ আগস্ট ২০২০, রবিবার, ০৪:৪৬:১৯অপরাহ্ন ভ্রমণ ২৩ মন্তব্য
আগের পর্বের লিংক-  মামাকে দেখতে যাওয়া (পর্ব-১১) পর্ব-১২   বনের শেষ প্রান্তের ৬ নাম্বার জোনে সারস ও ইউরোশীয় চামুচঠোঁটি সহ আরো কিছু প্রজাতি পাখির ছবি তুলে আমরা ৫ নাম্বার জোনের জন্য রওনা হলাম। দূরত্ব হবে আনুমানিক ৯০০ গজের মতন। এখানে বলে রাখা দরকার যে, কেওলাদেও বনের মূল ফটক হইতে শেষ প্রান্ত পর্যন্ত ১০ ফুট চওড়া [ বিস্তারিত ]
একদিন বিকেল বেলা কয়েক বন্ধু মিলে রেল লাইনে হেটেছিলাম, আশেপাশের চমৎকার পরিবেশ ও গ্রাম্য প্রকৃতি আমাকে পাগল করেছিল, তারপর আরো কিছু পাগলের সাথে শলা-পরামর্শ করে বেড়িয়ে পড়ি রেল লাইনে হেটে হেটে গ্রাম বাংলাকে দেখার জন্য। এবং সিদ্ধান্ত নেই ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত রেল লাইন ধরে হাটবো। এটাই ছিলো আমাদের রেল লাইন পরিকল্পনা, ইতিমধ্যেই আমরা চট্টগ্রাম [ বিস্তারিত ]

মামাকে দেখতে যাওয়া (পর্ব-১১)

শামীম চৌধুরী ১৪ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ০৫:০১:১৫অপরাহ্ন ভ্রমণ ২৫ মন্তব্য
মামাকে দেখতে যাওয়া। (পর্ব-১০)  < পড়ার জন্য এখানে ক্লিক করুণ পর্ব-১১ আমি আগের কোন এক পর্বে উল্লেখ করেছিলাম যে,কেওলাদেও পার্কের শেষ প্রান্তে (বনের শেষ অংশে) ৬ নাম্বার জোন। এখন ভাবছি বনটি সম্পর্কে একটা সম্যক ধারনা আমার পাঠক বন্ধুদের দেওয়া দরকার। যাতে করে তাঁরা বনের পরিবেশটা ভাল করে বুঝতে পারেন। অন্যান্য জোন সম্পর্কে যখন আলোকপাত করবো [ বিস্তারিত ]

বর্ষার নীলাদ্রি

কামাল উদ্দিন ১৪ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ০৭:২০:৩৩পূর্বাহ্ন ভ্রমণ ৩২ মন্তব্য
কেউ কেউ বলেন বাংলার কাশ্মীর, মূলত এটা একটা পরিত্যক্ত লাইম-স্টোন লেক, যা কেয়ারী লাইম স্টোন লেক নামে পরিচিত। এছাড়া কেয়ারী লেক, আবার অনেকে নীলাদ্রি নামে ডেকে থাকেন নীল পানির কারণে। তবে ইদানিং ভ্রমণ পিপাসুরা নীলাদ্রি নামটাকেই মনে হয় বেশী পছন্দ করছেন। তবে জায়গাটাকে যে নামেই ডাকা হোক না কেন সৌন্দর্য্যে যে কেউ জায়গাটার প্রেমে পড়তে [ বিস্তারিত ]

মামাকে দেখতে যাওয়া। (পর্ব-১০)

শামীম চৌধুরী ১১ আগস্ট ২০২০, মঙ্গলবার, ০৮:০৫:৪৮অপরাহ্ন ভ্রমণ ৩১ মন্তব্য
মিউজিয়ামে প্রবেশ না করে আমরা সামনে দিকে আগালাম। দেখা পেলাম বিশাল বোর্ডে চিহ্নিত করা গোটা কেওলাদেও বনের একটা ম্যাপ। কোন জায়গায়, কত নাম্বার লেকে বা বিলে, কোন কোন পাখির অবস্থান সবই বোর্ডে দেখানো আছে। ভারতীয় ফটোগ্রাফারদের কাছে সবই জানা। তাই তারা সাইকেল ভাড়া নিয়ে বনের ভিতর চলাফেরা করে। ম্যাপে দেখলাম উত্তর আমেরিকা থেকে আসা ফ্লেমিংঙ্গো [ বিস্তারিত ]

মামাকে দেখতে যাওয়া (পর্ব-৯)

শামীম চৌধুরী ৭ আগস্ট ২০২০, শুক্রবার, ০৫:০১:৩৬অপরাহ্ন ভ্রমণ ২৬ মন্তব্য
বাঘের ছবি তোলার জন্য মূলতঃ আমার ভারত সফরে “মামাকে দেখতে যাওয়া” শিরোনামের গল্পটি গত ১৫ জুনের পর আর সামনের দিকে বাড়াতে পারিনি। ৮ পর্ব লেখার পর আমার অগ্রজ ভাইয়ের করোনায় আকস্মিক মৃত্যুই ছিলো মূল কারন। উনার অকাল মৃত্যুতে আমাদের গোটা পরিবার শোকে মুহ্যমান হয়ে মানসিক ভাবে ঙেঙ্গে পড়ে। যার ধাক্কা সহ্য করে নিজেকে দাঁড় করাতে [ বিস্তারিত ]
বাংলাদেশের অনন্য সুন্দরতম স্থানগুলোর মধ্যে হলো অন্যতম হলো বৃহত্তর সিলেট জেলা। আর সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট থানার বিছানাকান্দি হলো সুন্দর স্থানগুলোর মধ্যেও সুন্দরতম, যা ভারতের মেঘালয়ের মেঘের রাজ্যের একেবারে পাদদেশে অবস্থিত। অনেক দিন বিছানাকান্দি যাওয়ার পরিকল্পনা করেও যাওয়া হয়ে উঠছিলোনা, শেষ পর্যন্ত ভ্রমণ বাংলাদেশের সাথে যখন যাওয়ার পরিকল্পনা করলাম তার কয়েকদিন আগে থেকেই খুব বৃষ্টি হচ্ছিলো। [ বিস্তারিত ]

দশ মিনিটের রাস্তা আড়াই ঘন্টায়….

আকাশনীলা ২৫ জুলাই ২০২০, শনিবার, ০৯:০৪:১২অপরাহ্ন ভ্রমণ ২১ মন্তব্য
কথায় বলে মনে না চাইলে কিছু করতে নেই। নয়তো স্বেচ্ছায় বিপদ এসে ঘাড়ে নাচবে। কথা কিন্তু হাড়ে হাড়ে সত্য। সেদিন বৃহস্পতিবার ঘুম ভেঙ্গেছে সকাল ১১:৩০ মিনিটে তাও কিনা ফোনের রিংটোন বাজার শব্দে। যা হোক উঠে ফ্রেশ হয়ে এক মগ আদা নুন লেবু চা খেলাম।   মেয়ে নানু বাড়ি গেছে তাকে আনতে যাবে মেয়ের বাবা। কিছু দিন [ বিস্তারিত ]

যাদুর দেশ কামরূপ কামাখ্যা

কামাল উদ্দিন ২১ জুলাই ২০২০, মঙ্গলবার, ০৯:০৯:০২অপরাহ্ন ভ্রমণ ২৪ মন্তব্য
আসামের রাজধানী গৌহাটি বা গুয়াহাটি থেকে ট্রেন ছাড়বে রাত সাড়ে এগারটায়, আমাদের গন্তব্য ডিমাপুর হয়ে নাগাল্যান্ড। হাতে আছে আড়াই ঘন্টা সময়। আসাম এবং নাগাল্যান্ড ভ্রমণ শুরু করার পর থেকেই আমার মনে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছিল, যদি সুযোগ হয় কামরূপ কামাখ্যা দেখার। আমাদের ভ্রমণ লিডার মনা ভাইকে আগেই বলে রেখেছিলাম একটু সময় বের করে যেন আমাদেরকে [ বিস্তারিত ]
একদিন বিকেল বেলা কয়েক বন্ধু মিলে রেল লাইনে হেটেছিলাম, আশেপাশের চমৎকার পরিবেশ ও গ্রাম্য প্রকৃতি আমাকে পাগল করেছিল, তারপর আরো কিছু পাগলের সাথে শলা-পরামর্শ করে বেড়িয়ে পড়ি রেল লাইনে হেটে হেটে গ্রাম বাংলাকে দেখার জন্য। এবং সিদ্ধান্ত নেই ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত রেল লাইন ধরে হাটবো। এটাই ছিলো আমাদের রেল লাইন পরিকল্পনা, ইতিমধ্যেই আমরা চট্টগ্রাম [ বিস্তারিত ]

ভুল পথে রেমাক্রির জলে

কামাল উদ্দিন ১৯ জুন ২০২০, শুক্রবার, ০৬:০২:০২অপরাহ্ন ভ্রমণ ২২ মন্তব্য
নয়াচরন পাড়ায় কিছুটা বিশ্রাম করে আমরা এগিয়ে চললাম ছোট্ট গ্রাম হানজরাই পাড়ার দিকে। এতোটা চমৎকার লোকেশনে পাহাড়ি গ্রাম আমি খুবই কম দেখেছি। দুই দিকে উঁচু পাহাড় দ্বারা পরিবেষ্টিত। আর সামনে রেমাক্রি খাল, রেমাক্রি খালটাকে আমি নদী বলতেই স্বাচ্ছন্দ বোধ করি। খালের উপারে আবারো উঁচু পাহাড়। আমি সঠিক বলতে পারছি না এই গ্রামের উচ্চতা, তবে অনুমান [ বিস্তারিত ]

পিসার হেলানো টাওয়ার

ইঞ্জা ১৫ জুন ২০২০, সোমবার, ১১:০৫:০১অপরাহ্ন ভ্রমণ ৩০ মন্তব্য
আমার প্রথম  ইটালি ভ্রমণের সময়কার কথা, সময় ১৯৯২ সাল, বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইটে করে প্রথমে যায় লন্ডন, সেইখানে চাচার বাসায় ছিলাম চার দিনের মতো, এরপর রওনা হয়ে যায় ইটালির রোমে, সেইখান থেকে কয়েক ঘন্টার ব্যবধানে ফ্লাইট ধরে ফ্লোরেন্স শহরে চলে এলাম, এয়ারপোর্ট সিকিউরিটি চেক শেষ করে যখন বেরিয়ে এলাম তখন খেয়াল করলাম আমার নাম লেখা কার্ড [ বিস্তারিত ]

মামাকে দেখতে যাওয়া (পর্ব-৮)

শামীম চৌধুরী ১৫ জুন ২০২০, সোমবার, ০২:০৭:৪৭অপরাহ্ন ভ্রমণ ২৪ মন্তব্য
আমরা সবাই ভোর ৫:০টায় ঘুম থেকে উঠে পড়লাম। সকাল ৬:টার মধ্যে কেওলাদেও পার্কে প্রবেশ করলে পাখির বেশ কিছু ভাল ছবি পাব। কারন সকালে পাখিরা খাবারের খোঁজে বেরিয়ে পড়ে। বেলা ৯:০ টা পর্যন্ত পাখিরা বনে খাবার খুঁজে বেড়ায় ও খায়। সূর্যের তীব্রতা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোদের তাপ থেকে রক্ষা পেতে কোন গাছের ডালের পাতার আড়ালে বা [ বিস্তারিত ]
তারা ছিলেন চার ভাই, লক্ষীপৎ, জগপৎ, মহীপৎ ও ধনপৎ। কোথাও কোথাও পাওয়া যায়, তারা বর্গি-দস্যু ছিলেন, আবার কোনো বর্ণনা মতে তারা ছিলেন ব্যবসায়ী। যাই হোক, এই চার ভাই জগৎশেঠের সহযোগিতায় তৎকালীন নবাবের কাছ থেকে ১২শ টাকায় ৩২ বিঘার এই বাগানটি কিনে নেন মন্দির নির্মাণের জন্য। জানা যায়, এই চার ভাই কাঠ ও বহু মূল্যবান মণি-মুক্তার [ বিস্তারিত ]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ