1004548_10206600386060974_907435612429558307_n
”একজন মানুষ হিসাবে সমগ্র মানবজাতি নিয়েই আমি ভাবি। একজন বাঙালী হিসাবে যা কিছু বাঙালীদের সাথে সম্পর্কিত তাই আমাকে গভীরভাবে ভাবায়। এই নিরন্তর সম্পৃক্তির উৎস ভালোবাসা, অক্ষয় ভালোবাসা। যে ভালোবাসা আমার রাজনীতি এবং অস্তিত্বকে অর্থবহ করে তোলে।”
-শেখ মুজিবুর রহমান, অসমাপ্ত আত্মজীবনী

★গত বইমেলা থেকে আমি বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইটি সংগ্রহ করি। বইটি যেদিন হাতে নেই, সেদিনই মনের মাঝে একটা ইচ্ছার আনাগোনা শুরু হয়। তেমন কিছু না! জাস্ট ছড়িয়ে দেয়ার উদ্দেশ্যেই ইচ্ছাটা জেগেছিলো।
এতোদিন মনের মধ্যে জেগে উঠা ইচ্ছাটি সুপ্তই ছিলো। কিন্তু পড়তে শুরু করার পর থেকে সেটা বেশ খুঁচিয়ে যাচ্ছে। মনে হচ্ছে শুরু করলেই তো একদিন শেষ হবে। সে উদ্দেশ্য নিয়েই গত সেপ্টেম্বরে আমি আমার বন্ধু/শুভাকাঙ্ক্ষী/পরামর্শক, যে হিসাবেই তাঁকে দেখি না কেনো, ইনবক্স করে তাঁর পরামর্শ চাইলাম। তাঁর পরামর্শ ছিলো “কাজটা করতে পারলে খুবই যুক্তি সংগত হবে।”

আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইটি ছোট্টছোট্ট প্যারা আকারে ব্লগে তুলে ধরা শুরু করবো। ধারাবাহিকভাবে দেয়ারই ইচ্ছে, সময় হয়তো বেশি লাগবে। ইতোমধ্যে অনেকখানি টাইপও করেছি। ইচ্ছা ছিলো ডিসেম্বর থেকে প্রতি সপ্তাহে এক প্যারা করে তুলে ধরবো কিন্তু তা আর হয়ে উঠেনি। তাই নতুন বছর থেকেই শুরু করতে চাই।

আমি নিজে এখনো পুরো বইটি পড়ে শেষ করিনি কিন্তু যতটুকুন পড়েছি তাতে কেবল অবাক হয়েছি আর আবেগে আপ্লুত হয়েছি। বইটা পড়তে গিয়ে ছোটবেলার শুনা কথা মনে পড়ছিলো। শুনতাম রাজনীতিবিদরা নাকি বিবাগী হয়, ঘর-সংসার তাদের জন্য না; দেশ-মাটি-মানুষের কথা ভেবেই তাঁরা জীবন পার করে দেন। আর যদিও বা সংসার পাতেন কিন্তু ঘরের প্রতি তাঁদের কোন মনযোগই থাকে না। এই বইটা পড়তে পড়তে আমারও তাই মনে হয়েছে। আর বইটা পড়ে এখনকার সময়ে দেখা রাজনীতিবিদদের চেহারা মনে করলে কেবল তাঁদের প্রতি করুনাই হয়!

তাই ভাবি, ইতিহাস তাঁকেই কোলে তুলে নেয়, যে ইতিহাস সৃষ্টি করে। আরাম কেদারায় বসে কি আর ইতিহাসের নায়ক হওয়া যায়?

যাহোক, আমার বিশ্বাস যারা বইটা এখনো পড়তে পারেন নি, তাঁরা এখানে পড়তে পারবেন।
এবার আপনাদের পরামর্শ চাই।

৬২৪জন ৬২৪জন
0 Shares

২৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ