জাগো -৪ ( চল যুদ্ধ করি )

অনন্য অর্ণব ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৭:০৯:৩৬অপরাহ্ন কবিতা ২৭ মন্তব্য
  শুকাতে শুকাতে যখন তার চামড়া মাংস হবে কঙ্কালসার বোধে তার বাধিবে কি সাধে ? চারিদিকে শুধু হাহাকার ।। যুদ্ধ করে দেশটা করে স্বাধীন শিকল ছিঁড়ে পেলাম খাঁচার অধীন ইচ্ছে হলেই পাওয়া যায়না পার এই  দেশ ছেড়ে বৈদেশ পালাবার।। আবার যখন করবে কোন কাজ ঠকবে নিত্য যেন দণ্ড রাজ মাইনে যাহা মিলবে তাতে নয় পর্যাপ্ত [বিস্তারিত]

একহালি কবিতিকা

মাহবুবুল আলম ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৬:৩১:৪৮অপরাহ্ন কবিতা ২৩ মন্তব্য
১. আকাশের কান্না মনের বিষন্নতা হয়ে গেছে একাকার তুমি নেই বলে, যেনো বিরহ ফাগুন, ছাই চাপা আগুন জ্বলছি পলে পলে।   ২. এক মিনিটের জন্য যদি তোমার ছোঁয়া পাই সারা দিনের জন্য আমি চার্জ হয়ে যাই।   ৩. আমায় নিয়ে খেলছো তুমি এ কোন নিঠুর খেলা দু’চোখ ভাসাই চোখের জলে কেঁদে কেঁদে একেলা।   ৪. [বিস্তারিত]

১০০০ টাকার নোট

নৃ মাসুদ রানা ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১২:৩১:৪৯অপরাহ্ন গল্প ১৫ মন্তব্য
কয়েকজন বন্ধু পাত্রী দেখে এসে বলাবলি করছিলো – কার কেমন লেগেছে? ১ম বন্ধুঃ ভালোই। তবে আরেকটু ফর্সা হলে ভালো লাগতো। ২য় বন্ধুঃ শ্যামলা বর্ণের হলেও মেয়েটি দেখতে বেশ। আমার ভালো লেগেছে। ৩য় বন্ধুঃ কেমন যেন একটু বেঁটে বেঁটে লাগলো। আর বাড়ির পরিবেশটাও ভালো না। ৪র্থ বন্ধুঃ এখানে বিয়ে করা যাবে না। যা খাওয়াদাওয়ার অবস্থা। ইতিমধ্যে [বিস্তারিত]

জিনান কি সত্যিই পরী দেখেছিলো

ইসমাইল জসীম ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১০:৪৮:২৩পূর্বাহ্ন গল্প ১০ মন্তব্য
ছোটবেলা থেকে জিনান পরীদের কথা শুনে আসছিলো তার মা ও দাদু-নানুর কাছে। পরি নিয়ে কতো গল্প পড়েছে সে গল্পের বইয়ে। বাবা দেশে থাকলে জিনাকে তো পরীরানীর গল্প বলেই বলেই ঘুম পাড়াতো। লালপরী, নীলপরী, ফুলপরী, পরীরানীসহ আরো কত পরীর গল্প। জিনান এখনো ছোট । সবে তৃতীয় শ্রেণিতে উঠলো। বাবা থাকেন দেশের বাইরে । জিনানের অনেক দিনের [বিস্তারিত]

হলি আর্টিজেন ও কিছু প্রশ্ন?

রেজওয়ান ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৮:৩৭:৩০পূর্বাহ্ন সমসাময়িক ২৬ মন্তব্য
বড় মিজান নামের লাল দাড়ির জঙ্গিটা ছিলো বিস্ফোরণ বিভাগের হেড, সে খালাস পেয়েছে। তাহমিদ আর হাসনাতকে আগেই দায়মুক্তি দেয়া হয়েছে(দেশ ছেড়ে পালিয়েছে হয়তো) এসব নিয়ে আমাদের মত গুটি কয়েকজন হতাশ হলেও দেশের ৯৯% মানুষ মনে মনে খুশি। খুশি না হলে কয়েকদিন আগে যে হিন্দু ছেলেটার নামে ইসলাম অবমাননার অভিযোগে তৌহিদী জনতা ক্ষোভে ফেটে পড়েছিল তারা [বিস্তারিত]

অর্ধমৃত প্রতিবাদী

নুর হোসেন ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৮:২৯:০৩পূর্বাহ্ন কবিতা ৬ মন্তব্য
সতর্কতা জানাচ্ছে ষষ্ঠ ইন্দ্রিয় আসছে তেড়ে বিপদ কঙ্কাল দেহে সঞ্চিত করে শক্তি, প্রস্তুত অসাড় রিক্ত হস্ত করতে প্রতিরোধ। বুঝিয়ে পেতে পুর্বপুরুষের ঘামে ভেঁজা সম্পদের দাম, পুঁজিবাদের দেওয়ালে রক্তে লেখা শ্রমিক বিদ্রোহীর নাম; যে ঘরে তরুনী হারিয়ে ইজ্জত কুড়িয়েছে বদনাম গুড়িয়ে দাও সেই ঘরটা, বন্ধ করো প্রমান লোপাট চুনকাম; চল্লিশ বছরের অত্যাচারের প্রতিশোধ নিতে চাই। অর্থের [বিস্তারিত]

ঢাকা টু চট্টগ্রাম – কমলাপুর (স্টেশন নং-১)

কামাল উদ্দিন ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৭:৪২:০৪পূর্বাহ্ন ভ্রমণ ২৩ মন্তব্য
(পাগল পাগল মানুষগুলা, পাগল সারা দুনিয়া। আমিও তেমনি একজন পাগল মানুষ। জানিনা সোনেলার ব্লগারগণ আমার এই পোষ্টকে কিভাবে নেবেন। যদি পাগলকে পাগলামীতে উৎসাহ দেন তাহলে চালিয়ে যাবো, অন্যথায় এটাই এই বিষয়ে আমার শেষ পোষ্ট) একদিন বিকেল বেলা কয়েক বন্ধু মিলে রেল লাইনে হেটেছিলাম, আশেপাশের চমৎকার পরিবেশ ও গ্রাম্য প্রকৃতি আমাকে পাগল করেছিল, তারপর আরো কিছু [বিস্তারিত]

সত্যিই পারিনা

এস.জেড বাবু ২৮ নভেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ০৭:৩৫:৩০পূর্বাহ্ন কবিতা ২৩ মন্তব্য
পারিনা উচ্ছিষ্ট নিঃশ্বাসের তীব্রতায় ভাসিয়ে দিতে অনন্ত পথে তোর নামে লিখা উড়ো চিঠি , হাজার পৃষ্ঠার উপন্যাস উল্টিয়ে খুঁজে বের করে নিতে পারিনা সন্ধি-বিচ্ছেদের শব্দ ক’টি । পৃষ্ঠার সীমাবদ্ধতায় সারমর্মে এঁকে দিতে পারিনা তোর আমার সম্পর্কের ভাস্কর্য , হাতে গুনা দুই চার পাতায় অনুশীলন করতে পারিনা তোকে নিয়ে লিখা কাব্যের তাৎপর্য । সহ্য করতে পারিনা [বিস্তারিত]

অনুপমার অব্যক্ত প্রেমের গল্প

সুরাইয়া পারভিন ২৭ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, ১০:২৫:২৭অপরাহ্ন গল্প ৩৪ মন্তব্য
অনুপমার অব্যক্ত প্রেমের গল্প কে ওখানে দাঁড়িয়ে আছে, কে? পিছনের অবয়ব দেখে মনে হচ্ছে ,সে আমার কত যুগের চেনা। যেনো কতো শত বছর ধরে জানি তাকে । কে, কে ওখানে দাঁড়িয়ে আছে অমন পাশটি ফিরে একবারও ঘুরছে না, তাকে দেখবো কি করে? নাহ এ তো দেখছি ফিরছেই না। যাই আমি না হয় সামনে গিয়ে দেখি, [বিস্তারিত]
প্রথমেই সোনেলার সকল ব্লগারদের কাছে আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি দেরীতে এই পোষ্ট দেবার জন্য। আমাদের প্রিয় লেখকগন আশাকরি সবাই ভালো আছেন। আসলে দৈনন্দিন ব্যস্ততার ফাঁকে ফাঁকে আমরা সবাই সাহিত্যচর্চা করি এবং এই ব্লগকে ভালোবেসেই আমরা নিজেদের সন্তানতুল্য লেখাগুলিকে সোনেলায় পোষ্ট করি। ফলাফলে পাঠকদের কাছ থেকে যে অভূতপূর্ব সাড়া পাই তা ভাষায় বর্ণনা করা আমার পক্ষে [বিস্তারিত]
ঐশী-যখন ওর বাবা মারা যায় তখন ওর বয়স ৬/৭।পিতৃবিয়োগ বা মৃত্যুর মর্মার্থ কিছুই তেমন বুঝতোনা বা বোঝার কথাও না। চার বোনের মধ্যে সে দ্বিতীয়। বাবার মৃত্যুর পর সবাই যে যার মতো করে তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে,আবার অতি আপনজনকেও কাছে পায়নি বাবার অভাব পূরণের জন্য। জমিজমা যা ছিল ঐশীর মা এদিক ওদিক করে, টুকটাক কাজ করে জীবনের [বিস্তারিত]

বেশি বুদ্ধি কুঁকড়ি-মুকড়ি

নিতাই বাবু ২৭ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, ০৭:১২:২২অপরাহ্ন গল্প ২৫ মন্তব্য
একজন সরকারি চাকরিজীবীর সন্তান বলতে একটি ছেলেই ছিলো । একটি মেয়ের জন্য মহান সৃষ্টিকর্তার দরবারে অনেক বাসনা করেছিল, কিন্তু মেয়ে আর তাঁদের ভাগ্যে জোটেনি। বৃদ্ধ বয়সে চাকরিজীবী লোকটা মারা গেলো। মৃতব্যক্তির একমাত্র ছেলে ওয়ারিশ সূত্রে তাঁর স্থাবর অস্থাবর টাকা-পয়সা সম্পত্তির মালিক হলো। ছেলেটা তাঁদের গ্রামের বাড়ির জমিজমার দলিলপত্র বুঝে নিলো। সরকারি চাকরিজীবী লোকটা মারা যাওয়ার [বিস্তারিত]

ঝরা পাতা

সাবিনা ইয়াসমিন ২৭ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, ০৪:৪৪:১০অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৪ মন্তব্য
আমারই পথ থেমে গেছে নিঃশেষ হয়েছে সব উচ্ছাস, পথিক থেমে যায় হয়ে সাথী-হারা থামে নাতো কভু পথ। মহাকালের কাব্যতে লিখেছি অ-কবিতা স্থির নির্বাক-ভাষাহীনতায়, রিক্ত দু-হাতে যা ছিলো এর বেশি দিতে পারিনি তোমায়/ সয়লাব আলোয় হেঁটে চলো আগামীর পথে, দেখো না পিছু ফিরে, ইচ্ছে হলে মনে রেখো বন্ধু আমি ছিলাম তোমারই ছায়া-সাথী হয়ে…

যেভাবে সোনেলাকে জানি

মাহবুবুল আলম ২৭ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, ১২:২৬:৫৭অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩০ মন্তব্য
মাহবুবুল আলম দীর্ঘ দিন থেকে আমি বিভিন্ন পত্রপত্রিকা ও ব্লগে লেখালেখি করছি।চার বছর আগে বিভিন্ন ব্লগ সাইটগুলো সার্চ করতে গিয়ে ‘সোনেলা’র সাথে পরিচয়।বেশ কিছুদিন পর্যবেক্ষণের পর সোনেলা ব্লগ সাইটটি আমার বেশ ভাল লেগে যায়। সেই সুবাধে ১৯/০৬/২০১৫ তারিখে নিবন্ধন করে সোনেলায় লেখা শরু করি। তখন সোনেলার কারো সাথে আমার তেমন পরিচয় ছিল না।এভাবে বেশ কিছুদিন [বিস্তারিত]

ভাবনার বেখেয়ালী লুকোচুরি

নুর হোসেন ২৭ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার, ০৭:২৫:১৯পূর্বাহ্ন কবিতা ১২ মন্তব্য
যখন তুমি প্রার্থনারত, কিংবা অলস বিকেলে বেলকনিতে বসে ঠোট মিলাও কফির মগে; সেই মুহুর্তে, মাথার খুলির গারদ থেকে বেরিয়ে এসে তোমাকে নিয়ে খেলে আমার কিছু উদ্ভট এলোমেলো চিন্তা। সম্মোহিত আকাশ-কুসুম কল্পনা তোমাকে একাকার করে দেয় আমার অস্তিত্বে, হৃৎপিন্ডে, মস্তিষ্কে; কখনো তোমার দৃষ্টি আকর্ষিত করতে, পিঁপড়ার পায়ে পরিয়ে দেয় নূপুর; অথবা ঝিলের শাপলা ফুটিয়ে দেয় শিমুলের [বিস্তারিত]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ