Category: ইতিহাস

“মাহরিবা” শব্দটি “মাহরাবুন” এর বহুবচন। অর্থ হলো উঁচু জায়গা অথবা সুন্দর অট্টালিকা, উদ্দেশ্য ‍উঁচু উঁচু অট্টালিকা, বিশাল বিশাল বাসভবন বা মসজিদ ও উপাসনালয়। “তামাছিলা” শব্দটি “তামাছিলুন” এর বহুবচন অর্থ প্রতিমা, মুর্তি। এ মূর্তি অপ্রাণীর হতো। অনেকে বলেন, পূর্ববর্তী আম্বিয়া ও নেক লোকদের মূর্তি মসজিদে নির্মাণ করা হতো যাতে তা দেখে মানুষ আল্লাহর ইবাদত করে। তবে [ বিস্তারিত ]
পূর্ব প্রকাশের পর  হযরত সুলায়মানের ঘটনার প্রেক্ষিতে রাসুল স. এর হাদিসকে বুঝতে চেষ্টা করতে হবে। কারণ অতিতকালের নবী রাসুলগণের দ্বারা প্রবর্তিত প্রথা আমাদের উপরেও প্রযোজ্য, যদি না তার বিপরীতে আমাদের শরিয়াতে কিছু বলা থাকে। উল্লেখ্য, হযরত সুলায়মানের সময়ের মানুষের মন-মানসিকতা ও সামাজিক পরিস্থিতির সঙ্গে আমাদের সময়ের পরিবেশ ও পরিস্থিতি তুলনীয় নয়। হযরত সোলায়মান ছিলেন দুর্দান্ত [ বিস্তারিত ]
পূর্ব প্রকাশের পর :  হযরত আব্দুল্লাহ ইবনে আমর ইবনে আস বর্ণনা করেছেন, রাসুল স. বলেছেন, বায়তুল মাকদিস নির্মাণ সমাপনের পর নবী সুলায়মান আল্লাহ সকাশে প্রার্থী হয়েছিলেন তিনটি বিষয়ে। আল্লাহ তাকে দান করেছেন দুটি। সম্ভবত তৃতীয়টিও। ওই তিনটি বিষয় হচ্ছে- 1. আল্লাহ যেন দান করেন প্রত্যুতপন্নমতিত্ব, যাতে যে কোন জটিলতার সমাধানে তিনি গ্রহণ করতে পারেন তরিৎ [ বিস্তারিত ]
পূর্ব প্রকাশের পর :  পবিত্র কুরআনের সূরা সাবা (22 তম পারা 34 নং সূরা 13 নং আয়াত ও আলোচনা) দেখে নেয়া যাক, সূরা সাবার 13 নং আয়াতে কি বলা হয়েছে- “তারা সুলায়মানের ইচ্ছানুযায়ী প্রাসাদ, ভাস্কর্য, হাউজ সদৃশ বৃহদাকার পাত্র এবং সুদৃঢ়ভাবে চুল্লির উপর স্থাপিত বৃহদাকার ডেক নির্মাণ করত। হে দাউদ পরিবার কৃতজ্ঞতার সাথে তোমরা কাজ [ বিস্তারিত ]
পূর্ব প্রকাশের পর : এরা ছিলেন নুহ আ. এর জাতির সেই লোক যাদের তারা ইবাদত করত। এরা এতো প্রসিদ্ধি লাভ করেছিলেন যে, আরবেও তাদের পূজা শুরু হয়েছিল। তাই অদ্দ ‘দূমাতুল জান্দল’ এর ‘কালব’ গোত্রের, সুয়া সমুদ্র ‍উপকূলবর্তী গোত্র ‘হুযায়েল’ এর, ইয়াগুছ ইয়ামেনের সাবার সন্নিকটে ‘জুরুফ’ নামক স্থানের ‘মুরাদ’ এবং ‘বানী গুতায়েফ’ গোত্রের, ইয়াউক হামদান গোত্রের [ বিস্তারিত ]

বিজয়ের আনন্দ কাঁন্না

মাছুম হাবিবী ১৬ ডিসেম্বর ২০২০, বুধবার, ০২:০৬:৩৬পূর্বাহ্ন ইতিহাস ৭ মন্তব্য
বর্তমানে আমরা যারা ফেসবুকিং করছি তারা কেউ নিজ চোখে মুক্তিযোদ্ধ দেখিনি। তাই হয়তো উপলব্দী করতে পারিনা সেই ১৯৭১ সালের ভয়াবহ দৃশ্য! মাঝে মধ্যে মনের কোণে ঘুরপাক খায় হাজারো প্রশ্ন। নীরবে নির্বিত্তে হৃদয়ে রক্তক্ষরণ করে অজস্র কথা! কী দিনটাই নাহ ছিল সেদিন, টানা ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যোদ্ধের পর প্রকাশ্যে উদিত হয় লাল সবুজের পতাকা। ত্রিশ লক্ষ [ বিস্তারিত ]

বিজয় দিবসের তাৎপর্য

উর্বশী ১৬ ডিসেম্বর ২০২০, বুধবার, ০১:০৩:৩৬পূর্বাহ্ন ইতিহাস ২২ মন্তব্য
🇧🇩🌹মহান বিজয় দিবসের তাৎপর্য🇧🇩🌹( নিবন্ধ) ----------------- ১৯৭১ সালে এইদিনে ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে বাঙালী জাতি একটি স্বাধীন সার্বভৌম রাষ্ট্র অর্জন করে। এই বাঙালি জাতির বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। মুক্তিযোদ্ধা তথা সমগ্র জনসমষ্টির সার্থকতা ও গৌরবের মাস এটি। আমাদের জাতীয় জীবনের সবচেয়ে গৌরবদীপ্ত অধ্যায় রচিত হয়েছে এ মাসেই। তাই ডিসেম্বরে পা দিয়ে সবাই আমরা অনুভব করি [ বিস্তারিত ]
পূর্ব প্রকাশের পর : তারা বলছে “   তোমরা তোমাদের উপাস্যদেরকে ত্যাগ করো না এবং ত্যাগ করোনা ওয়াদ, সুয়া, ইয়াগুছ, ইয়াওক ও নছরকে। (সূরা- নুহ : আয়াত 23) সূরা নুহ এর 23 নং আয়াতের ব্যাখ্যা এবং এতদসংশ্লিষ্ট ঘটনাক্রম পরিচ্ছন্ন ছুদুরের সাথে খেয়াল করলে মুর্তিপূজার প্রারম্ভ এবং মানবজাতির তাওহীদ ও শিরক দুটি রাস্তায় ভাগ হয়ে যাবার সত্যাসত্য [ বিস্তারিত ]
ভাস্কর্য নাকি মুর্তি : আসুন জানি প্রকৃত ইতিহাস (পঞ্চম অংশ) পূর্ব প্রকাশের পর : নুহ আ. এর পূর্বের নবিগণ- হযরত ইদরিস আ. একজন নবি। হযরত আদম আ. এর অধনস্ত সপ্তম পুরুষ এবং হযরত নুহ আ. এর অষ্টম প্রপিতামহ এবং তিনি 365 বছর বয়স লাভ করিয়াছিলেন। তার উপর 30 টি সহিফা নাযিল করা হয়। লিখন পদ্ধতি, [ বিস্তারিত ]
কি ঘটেছিল নুহ আ. এর আগমণের পূর্বে তা জানতে ধৈর্য সহকারে পড়তে থাকুন। মহান নবী হযরত নুহ আলাইহিসসালাম ‍ও তার পূর্বপুরুষগণের পরিক্রমা জানাটা জরুরী কেননা আদম আ. ও নুহ আ. এর মধ্যবর্তী সময়েই রোপিত হয়েছিল শিরকের ভয়াবহ বীজ। নুহ ইবন মালাক ইবন মুতাওশশালিখ ইবন খানুম। আর খানুম হলেন ইদরিস ইবন য়ায়দ ইবন মাহলাইন ইবন কীনন [ বিস্তারিত ]
বিজয়ের মাস আসে যায়। আমরা যুদ্ধের গান বাজিয়ে, ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন ও শোক পালন করি। ভাবি এতেই সব শেষ। নেপথ্যে থাকা শতশত প্রান যেগুলো পিঁপড়ার মত জীবন দিয়েছিল তার ইতিহাস ক'জন ই বা মনে করি! আজকের বিজয় তাদের জন্যই, এমনি এমনি আমাদের বিজয় আসেনি। কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন তাঁর ট্রাজেডিক "ট্রেন" উপন্যাসে সৈয়দপুরের গোলাহাট বধ্যভূমি [ বিস্তারিত ]
পূর্ব প্রকাশের পর : এখন দেখতে হবে, এ সত্য দ্বীন ও ঈমানের উপর সমস্ত মানুষের ঐক্যমত্য কোন যুগে প্রতিষ্ঠিত ছিল এবং তা কোন যুগ পর্যন্ত স্থায়ী ছিল? তাফসিরকার সাহাবিগণের মধ্যে হযরত ইবান ইবনে কা’ব এবং ইবনে যায়েদ রা. বলেছেন যে, এ ঘটনাটি ‘আলমে-আযল’ বা আত্নার জগতের ব্যাপার। অর্থাৎ সমস্ত মানুষের আত্নাকে সৃষ্টি করে যখন জিজ্ঞাসা [ বিস্তারিত ]
মুর্তিপূজার প্রারম্ভ এবং ভাস্কর্যের সাথে এর যোগসূত্র আলোচনার সূচনাতেই জ্ঞাত হওয়া আবশ্যিক মানবজাতির বিভক্তির ইতিহাস। চলুন দেখি- মহান আল্লাহ বলেন-“সমস্ত মানুষ ছিল একই উম্মত”..... সূরা বাক্বারা-213 নং আয়াত এর প্রথমাংশ। “আর সমস্ত মানুষ এক উম্মতই ছিল, অতঃপর তারা মতভেদ সৃষ্টি করল....”। (সূরা ইউনুছ এর 19 নং আয়াতের প্রথমাংশ) একই বিশ্বাস ও তাওহিদের অনুসারিগণের মধ্যে বিভক্তির [ বিস্তারিত ]
ভাস্কর্য নাকি মুর্তি : আসুন জানি প্রকৃত ইতিহাস (প্রথম অংশ) মূর্তি নাকি ভাস্কর্য; ভাস্কর্য নাকি মূর্তি। অনেক হয়েছে সংজ্ঞায়ন। তাই সেদিকে না গিয়ে প্রারম্ভেই আলোকপাত করার ইচ্ছা রাখি, সত্য-মিথ্যার রাস্তা ভাগ হওয়ার ইতিহাস, কিভাবে এল মূর্তি ও মূর্তিপূজা তার বিশদ আলোচনা। তার আগের কাহিনীইবা কি- সে ব্যাপারেও ধারাবাহিক আলোকপাত থাকছে এই নিবন্ধে। প্রাথমিক পর্যায়ে “তামাছিলা” [ বিস্তারিত ]

সেমিরামিস (একজন সফল নারী শাসক)

সুপর্ণা ফাল্গুনী ২৮ অক্টোবর ২০২০, বুধবার, ১২:০২:১০পূর্বাহ্ন ইতিহাস ২০ মন্তব্য
পৃথিবীর প্রাচীন ইতিহাসে নারী শাসক বিরল। তাদের সবাই সফল শাসক হিসেবে।  যোগ্যতার  স্বাক্ষর রেখে গেছেন ইতিহাসের পাতায় - তাদের মধ্যে সেমিরামিস অন্যতম। সিরীয় দেবী দারসেটো ও সিরীয় যুবার সম্পর্কের পরিণতি হলো সেমিরামিস। কন্যা শিশুকে লজ্জিত হয়ে পরিত্যক্ত করে আত্নাহুতি দেন দেবী। ঘুঘু পাখিরা দেখাশোনা করতেন সেমিরামিসের। অ্যাসিরিয়ার রাজার প্রধান মেষপালক কন্যা শিশুকে পেয়ে বড় করতে [ বিস্তারিত ]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ