বিভাগ: খ্যাতনামা ব্যক্তি

১৯৭১ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু ঐতিহাসিক রেসকোর্স ময়দানে যা বর্তমান সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে এক বজ্রকন্ঠ কালজয়ী ভাষণের মাধ্যমে বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতার মন্ত্রে উজ্জীবিত করেন। এই ভাষণের মধ্য দিয়ে তৎকালীন সাড়ে সাত কোটি মুক্তিকামী বাঙালির আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটে। বঙ্গবন্ধুর সেই ঐতিহাসিক সাতই মার্চের এই ভাষণকে ইউনেসকো বিশ্ব ঐতিহ্যের অমূল্য প্রামাণ্য দলিল হিসেবে সংরক্ষণে তাদের ওয়ার্ল্ড মেমোরি রেজিস্টারে [ বিস্তারিত ]
ঊর্দ্ধশির যদি তুমি কুল মান ধনে; করিও না ঘৃণা তবু নীচশির জনে! সংসারে ছোট বড় ব্যবধান সৃষ্টিকর্তা বিধিত। আপাত দৃষ্টিতে আমরা যদিও সৃষ্টির এই বিভেদের পার্থক্য অনুধাবন করতে না পারি তবুও এই ব্যবধানের পেছনে একটা নিগুঢ় রহস্য তো অবশ্যই আছে। মানুষ সৃষ্টি রহস্যের ঠিক ততখানিই জানে যতোটা মানুষ ক্যারি করার ক্ষমতা রাখে। এর বেশি জানতে [ বিস্তারিত ]
“পালকীত মুই না চড়ং মাথা যে ঘোরে।” গানটি ইউটিউবে সার্চ দিলে দেখা যাবে লাইক পরেছে পাঁচটা। অথচ নতুন একটা আধুনিক গান বের হলেই লাইক কয়েক লাখ হয়। ভুলে যাই,  মাটির কথা। যাঁদের অবদানে আমাদের লোক সঙ্গীত সমৃদ্ধ, তাঁদের একজন শ্রদ্ধেয় কছিম উদ্দীন। যে গানটা দিয়ে এই লিখা শুরু হয়েছে, সেটি ভাওয়াইয়া গান। এই গান মূলত [ বিস্তারিত ]
বিশ্ব সন্মান জনক স্থানে বাঙ্গালীরা বহুবারই বসেছেন।বাংলাদেশ দেশ স্বাধীন করতে বঙ্গবন্ধু পুরো বিশ্বকে জাগিয়ে তুলেছিলেন। তার সংগ্রামী স্বাধীনতার ভাষন পুরো বিশ্বে এক বিষ্ময়কর। মাতৃ ভাষার জন্য আত্ম ত্যাগ পুরো বিশ্বে একটি বিরল ঘটনা। যা এখন বিশ্ব স্বীকৃত আন্তজার্তিক মার্তৃ ভাষা।বাঙ্গালী ভাবতেই গর্বে আমার বুক ফুলে যায়। সেই বাংলা ভাষাবাসী মানুষদের কৃতিত্ব আমাকে মোহিত করে।বিশ্বের যে [ বিস্তারিত ]
‘চোরে কয় চোরকে ধর দেশের শান্তি রক্ষা কর’ উপরোক্ত উক্তিটি যার, তিনি কবিয়াল ফণী ভূষণ বড়ুয়া। জন্ম চট্টগ্রাম জেলার পাঁচখাইন গ্রামে। ১৩২২ সালের ১৭ শ্রাবণ তারিখে। শৈশবে মাতৃহারা। লেখাপড়া প্রাইমারির গন্ডিতেই সীমাবদ্ধ। জীবিকার সন্ধানে পাড়ি দেন বর্মায়। সেখানে গিয়ে পরিচয় হলো মতিলাল বড়ুয়ার সাথে। মতিলাল বড়ুয়া কবিগান গাইতেন। প্রতিপক্ষ হতেন কখনও এজহার মিঞা কখনো নিবারণ [ বিস্তারিত ]
অষ্টাদশ শতাব্দীর শেষভাগ থেকে যে কৃষক বিদ্রোহগুলোর কথা আমরা জানতে পারি, তা থেকে’৭১এর মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত আমাদের সুদীর্ঘ জাতীয় মুক্তির সংগ্রামে নারীদের অবদান আলাদা করে দেখা যাবে না। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত প্রতিটি সংগ্রামে-আন্দোলনের মধ্যেই নারীদের অবদান মিলেমিশে আছে। কখনও প্রত্যক্ষ, কখনও পরোক্ষভাবে নারীদের অংশগ্রহণ ছাড়া কোন পর্যায়ে স্বাধীনতা আন্দোলনের কোনো কর্মসূচি সফল করা যায়নি। সেসব [ বিস্তারিত ]
আমরা এমন ই একটা আবেগ প্রবন জাতি আর আপনি সেই জাতির একজন নেতা! আপনি আজ শুয়ে আছেন অথচ আমরা নির্লিপ্ত। আমি আপনার মাগফেরাত কামনা করি, মন থেকে করি দল থেকে না মানুষ হিসাবে করি। যেখানে কারো মুখে মৃত্যুর কথা শুনলে আমরা মুখ চেপে ধরি, অভিমানে জড়িয়ে ধরে বলি আর কখনো যেন এমন কথা না শুনি, [ বিস্তারিত ]
কথায় আছে খুব দ্রুত নিজেকে নিজের দেশকে যদি বিশ্ব দরবারে পরিচিত করতে চাও তবে শিল্প সংস্কৃতির বা খেলাধুলায় মনোনিবেশ দাও।খেলা ধুলার মাঝে বিশ্বে এক সময় ফুটবলের এক চেটিয়া জনপ্রিয়তা ছিলো,এখনো যে নেই তাও নয় তবে এর মধ্যে জনপ্রিয়তার বিশ্বে শীর্ষে অবস্থান করে নিয়েছে ক্রিকেট খেলাটি।বলা বাহুল্য যে জনপ্রিয় ফুটবলার ম্যারাডোনার অংসখ্য ভক্ত এই বাংলাদেশের নাম [ বিস্তারিত ]
বেগম সুফিয়া কামাল (১৯১১-১৯৯৯) বাংলাদেশের  প্রখ্যাত কবি, লেখক, নারীবাদী ও আধুনিক বাংলাদেশের নারী প্রগতি আন্দোলনের অন্যতম পথ প্রদর্শক বেগম সুফিয়া কামাল।মাত্র তের বছর বয়সে বিয়ে হয়ে যাবার পর স্বামীর সম্মতি ক্রমে  তিনি সাহিত্য চর্চা ও সমাজ সেবায় নিজেকে মনোনিবেশ করেন।১৯২৬ সালে তার প্রথম কবিতা ‘বাসন্তী’ সে সময়ের প্রভাবশালী সাময়িকী ‘সওগাত’-এ প্রকাশিত হয়েছিল।স্বাধীন বাংলাদেশে নারী জাগরণ [ বিস্তারিত ]
পশ্চিম পাকিস্থান হতে রিফুজির মত দলে দলে পূর্বপাকিস্থানে পরিবার পরিজন নিয়ে লোকজন এসে বসতি গড়তে থাকে।এ ক্ষেত্রে পশ্চিম পাকিস্থান সরকার পুরো সহযোগিতা করতে থাকেন।সহায় সম্ভলহীন ভাবে এখানে এসে অল্প কয়দিনেই হয়ে উঠে ধনপতি।রাষ্ট্রের সকল সুবিদা ওরা ভোগ করতে থাকে।পূর্ব বাংলার বাংলা ভাষা ভাষিরা হারাতে থাকেন রাষ্ট্রের দেয়া যৎ সামান্য মৌলিক অধিকারগুলোও।তার মধ্যে আগত রিফুজিদের টার্গেট [ বিস্তারিত ]
মানুষ মৃত্যুর পরে পদক কেন পায়, কেন জীবদ্দশায় পায়না? বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ব্যক্তি বেঁচে থাকাকালীন আমরা কেন তার কর্মকে শ্রদ্ধা জানাতে অপারগতা প্রকাশ করি? আচ্ছা এ নিয়মটি বদলানো যায়না? গুরু আপনি কি ওপার থেকে দেখতে পাচ্ছেন একুশে পদকে ভূষিত হয়েছেন আপনি? অবশেষে এ দেশ আপনাকে সম্মান জানিয়েছে। আমাদের দুর্ভাগ্য আপনার এ খুশি আমরা দেখতে পারছিনা। জানি [ বিস্তারিত ]
সব ক’টা জানালা খুলে দাও না আমি গাইবো গাইবো বিজয়ের-ই গান….সব ক’কটা জানালা খুলে দাও না। খুলে গেছে পৃথবীর সকল দরজা জানালা তবুও তাকে আর ফিরে পাওয়া যাবে না।তিনি আসলেন,মানুষের মন জয় করলেন অতপর চলে গেলেন।২২ জানুয়ারী ২০১৯ ভোর ৪টার দিকে রাজধানীর বাড্ডায় নিজ বাসায় তিনি মৃত্যুবরণ করেন।(ইন্নালিল্লাহি … রাজিউন)। বীর মুক্তিযুদ্ধা প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক [ বিস্তারিত ]
যাদের কলাম পড়তে আমার ভাল লাগে, তাঁদের মধ্যে ড. প্রান গোপাল দত্ত একজন। তাঁর লেখা পড়লে মন দিয়ে পড়তে হবে, হৃদয়ের গভীরে উপলদ্ধি করতে হবে, ভাবতে হবে। তাঁর প্রায় লেখায় আদর্শ, ন্যায়নীতি, নৈতিকতা আমাকে আকৃষ্ট করে, হৃদয়ে আলোড়ন তোলে। তাঁর অনেক বক্তব্য আমার মনে জায়গা করে নেয়। তাঁর সেরকমই একটি লেখা আমার সোনেলার জন্য শেয়ার [ বিস্তারিত ]
‘বেগম রোকেয়া’ শুধু একটি নাম নয়। পুরো একটা মানব ধর্ম। বেগম রোকেয়া জন্মেছিলেন যে সব কর্মগুণে পৃথিবীর মানুষের মাঝে পৃথিবীর আয়ুষ্কাল পর্যন্ত পরম মমতায় বেঁচে থাকা যায় সেই সব মানবধর্ম গুণ নিয়ে। বেগম রোকেয়া এক মুসলিম সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মেছিলেন। যে সময়টিতে বাড়ির মেয়েদের জোরে হাসাও নিষেধ ছিলো। বাড়ির বাইরে যাওয়া তো দূরের ব্যাপার। এমনকি বাড়িতে [ বিস্তারিত ]
নভেম্বর ২০০৯, ‘প্রথম আলো’তে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন- “পেঁপের পর রাবারের জিন নকশা উন্মোচন করলেন বিজ্ঞানী মাকসুদুল আলম উন্মোচিত হোক আমাদের পাটের জিন নকশা” তাতে চোখ পড়ে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীর। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় মাকসুদুল আলমকে তিনি দেশে ফিরে আসার আহ্বান জানিয়ে দায়িত্ব দেন পাটের জীবন-নকশা উন্মোচনের। বাংলাদেশের কৃষি মন্ত্রণালয়ের আর্থিক সহায়তা পেয়ে বিজ্ঞানী মাকসুদুল আলম একদল তরুণ [ বিস্তারিত ]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ