মেহেদী হাসান

  • নিবন্ধন করেছেনঃ ৯ বছর ৪ মাস ২২ দিন আগে
  • পোস্ট লিখেছেনঃ ৫টি
  • মন্তব্য করেছেনঃ ৫৫টি
  • মন্তব্য পেয়েছেনঃ ৭৭টি

ক্ষুধার্ত শকুন

মেহেদী হাসান ১৮ জানুয়ারী ২০১৫, রবিবার, ০৮:৫৭:২৬অপরাহ্ন কবিতা ১৪ মন্তব্য
ওই সে যমুনার চরে, এক তরী সোনালী ফসলে ধরেছে আগুন। অথবা- বারুদের ব্যবসা চলছে জমজমাট; আনিতে ফাগুন! অথবা- যমুনার জলে ছড়িয়ে পরে কিষাণীর খুন; পিঠের গোস্ত তুলে নিয়ে যায় ক্ষুধার্ত শকুন!
নেতা ওরা গুন্ডা ওরা রাজনীতিরই ভক্ত, ৫ বছরেই ফিরে এল রক্ত খওয়ার ওয়াক্ত। সিইসি' র আযান শুনে গোড়খোদক ও তৈরি, স্বাদ মিটিয়ে রক্ত খাবে বাজারও নয় বৈরি। হাম্বা আছে, ছাগু আছে রাজনীতির মাঠে, হরতালে তে উভয় দলই শব্দ করে হাগে। (ইহা ককটেল হাগু) ঝলসে গেল, ঝলসে গেল গরীবের দেহ, অন্তরেতে জ্বললে আগুন রেহাই পাবিনা কেহ।
অপর্যাপ্ত আক্সিজেন, সীমাহীন শ্বাস কষ্ট। এটাই আমার বেঁচে থাকার প্রেরণা। না, আমারা হাঁপানি হয়নি, আমি নিউমোনিয়ায় আক্রান্তও নই। এই যান্ত্রিক সমাজে- আমি এক ছুটে চলা পথিক। পথে পথে অর্থের সন্ধানই আমায় বাঁচিয়ে রেখেছে, অপর্যাপ্ত অর্থে আমি শ্বাসকষ্টে ভুগি, পাকস্থলী গরম হয়ে যায়। অন্নের সন্ধান আমায় পথিক বানিয়েছে, অন্নের সন্ধানই তাই আজ বেচে থাকার প্রেরণা। অর্থই [ বিস্তারিত ]
আমি তখন ক্লাস থ্রী তে পড়িতাম। সম্ভবত গ্রীষ্মকাল। প্রচণ্ড গরম।পুকুরে সাঁতার কাটিতে খুব ভালো লাগিত। যে কারণে দুপুরে মায়ের চোখে ধুলো দিয়ে পুকুরে নামিয়া যাইতাম। শুধু আমি না, আমারা ছয় সাত জন সমবয়সী চাচাতো ভাই মিলিয়া এক সাথে পুকুরে নামিতাম। আগেই বলিয়া রাখি, আমারা ছিলাম একান্নবর্তী পরিবার, আমাদের পরিবার ছাড়াও আরো ৭ জন চাচার পরিবার [ বিস্তারিত ]

দুঃস্বপ্ন (বৃদ্ধের কান্না)

মেহেদী হাসান ১১ জুলাই ২০১৩, বৃহস্পতিবার, ০১:২১:৪৯পূর্বাহ্ন মুক্তিযুদ্ধ, সমসাময়িক ১২ মন্তব্য
মাঝ রাতে ঘুমোতে যাই, কিছু দিন ধরেই নিয়মিত দুঃস্বপ্ন দেখি, ব্যাখ্যাহীন কিছু দুঃস্বপ্ন, রাত গভীর হয়, আমি ঘুমিয়ে পরি। কিছু বৃদ্ধকে সাথে নিয়ে শুরু হয় আমার দুঃস্বপ্ন- বৃদ্ধগুলো আমার দিকে ফ্যালফ্যাল করে তাকিয়ে থাকে, পরক্ষনেই একসাথে কেঁদে ওঠে সবাই। অজস্র বৃদ্ধের কান্নার আওয়াজ ছন্দ তোলে বাতাসে, অদ্ভুত এক ট্রাম্পেটের সুর কানে বাজে, এই সুর বেয়ে [ বিস্তারিত ]

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ