প্রদীপ চক্রবর্তী

  • নিবন্ধন করেছেনঃ ১ বছর ১ মাস ২০ দিন আগে
  • পোস্ট লিখেছেনঃ ১০৩টি
  • মন্তব্য করেছেনঃ ১৯০০টি
  • মন্তব্য পেয়েছেনঃ ১৭১৯টি

বেঁধে রেখো মোরে

প্রদীপ চক্রবর্তী ২ মে ২০২০, শনিবার, ১০:১৫:৫২অপরাহ্ন কবিতা ২৫ মন্তব্য
ঘন নিবিড় পথের সন্ধানে খুঁজেছি তোমায় দিবসরজনী, কত বেলা অবেলায় মধুর স্বপ্নের মোহে আশায় আশায় কাটিয়েছি। সারস আবাসনে হবো যবে মিলিত মোরা, আলোয় আলোয় রচিব কত ধ্রুবতারা। মুখোমুখি মিলনের মধুময় মধুর লগ্নে, সমর্পিত হবো সেথায় দুজন পুলকিত প্রেমে। সহস্র দিনের শেষে ঝরে পড়া কলি, তোমারি মুগ্ধ পরশে চেয়ে থাকে দিবারাত্রি। আলোভরা আকাশে আছে যত তারকারাজি, [ বিস্তারিত ]
নিশিত রাত্রি বিনুর হতকান্ড দেখে রাঘব আর সইতে পারছে না। রাস্তার পাশের জঙ্গল হতে একে একে ধেয়ে আসছে ভয়ংকর অদ্ভুতরকমের শব্দ। দুজনের হাতে নেই টর্চলাইট। ভূতেরা এখনি চাইলে তাদেরকে নিঃসন্দেহে ধরতে পারে। রাঘব তার দাদুর কাছ হতে ভূত ধরার যে মন্ত্র শিখেছিল তা অনেকাংশ ভুলে গিয়েছি। যদিও খানিটা মন্ত্র মুখস্থ আছে তা দিয়ে কোনমতেই ভূতকে [ বিস্তারিত ]
শীতের দুপুর তারমধ্যে এক ফালি রৌদ্রের আনাগোনা। শরীরকে তাজা করে দিতে এ যেন মিষ্টিময় রৌদ্রের আগমন। হরিবাবুর গায়ে কুষ্টিয়ার চাদর। পরনে বাঙালি পাঞ্জাবী। একথায় বেশ সৌখিন বিলাসী লোক বলা যায় তাঁকে। কিন্তু টাকাপয়সা লেনদেনে বড্ড কাঁচা। একটাকা ধার পাওয়া যায়না। প্রায় গোপাল ভাঁড়ের কাছাকাছি। অনেকেই বলে থাকে হরিবাবু না কি গোপাল ভাঁড়ের মাসিতো ভাই! ভূত [ বিস্তারিত ]
মধ্যাহ্ন সবেমাত্র গড়াতে চলছে… বিনু ও রাঘব দুজনি বসে আছে হরিবাবুর খাসকামরায়। খাসকামরার চারপাশের পরিবেশ অত্যন্ত সুন্দর হলেও গাছে গাছে অসংখ্য বাদুড় আর পেঁচার উপদ্রব ছিলো বড্ড। বাদুড় আর পেঁচার কিচিরমিচির শব্দ অদ্ভুত রকমের। এমন কিচিরমিচির শব্দ রাত্রিবেলা শুনলে তো উপায় থাকবে না। কেমন করে হরিবাবু রাত্রিবেলা ঘুমান। এসব দেখে বিনু ভাবছে ভূত মনে হয় [ বিস্তারিত ]
আজ রবিবার হওয়াতে দুজন মনেমনে ভাবছে আজ আর দেখা মিলবে না ভূতের। তাই রাঘব আর বিনু মধ্যাহ্ন ভোজন শেষ করে চলে গেলো হরিবাবুর খাসকামরায়। হরিবাবু গ্রামের প্রবীন লোক। তাছাড়া অনেক জ্ঞানী বটে। গ্রামের সবাই তাঁকে খুবি মান্য করে। হরিবাবু পূর্বে জাহাজের নাবিক ছিলেন। অনেক দেশবিদেশ ভ্রমণ করেছেন এ যেন তার কোন ইয়ত্তা নেই। আনন্দপুরের গ্রামের [ বিস্তারিত ]
রাত্রি গভীর। বিলাসবহুল কামরায় দুটি বিছানা থাকলেও রাঘবের পাশে শুয়ে আছে বিনু।   পাড়াটা শান্ত হলেও কখনো ঝিঁঝির শব্দ কখনো অদ্ভুত কন্ঠে ফিসফিস শব্দ। এমন অদ্ভুত শব্দে ভয়ে ভূত ভূত বলে চিৎকার করে বিছানা থেকে লাফ দিয়ে উঠেছে বিনু। ঘুমঘোরে ক্লান্ত রাঘব সেও লাফ দিয়ে উঠে বলছে ভূত কোথায় ভূত কোথায়! রাঘব এদিকওদিক টর্চলাইট দিয়ে খুঁজে [ বিস্তারিত ]
মৃগ নদী,সন্ন্যাসী মাটি ছোট্ট গাঁ আনন্দপুর। এ গ্রামটি বিলাস বাবুর বাড়ি হতে প্রায় সাতান্ন কিলোমিটার দূরে। অন্যান্য গ্রামের ন্যায় গ্রামটি কারুকাজ আর সৌন্দর্যের বাহারে গড়ে উঠেছে। উঁচুনিচু পাহাড় আর ব্রিটিশ আমলের দেওয়ালে গড়ে উঠেছে বড়বড় কামরা। প্রতিটি কামরার দেওয়াল জুড়ে ভিন্ন কারুকার্যে ভূতপ্রেতের ভয়ংকর ছবি। ভয়ংকর ভূতপ্রেতের ছবি হলেও তা ছিলো চোখ জুড়ানো। গ্রামের লোকসংখ্যা [ বিস্তারিত ]

“আনন্দপুরের ভূতের কান্ড” পর্ব-৫

প্রদীপ চক্রবর্তী ১৬ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১০:৪৬:৪৬অপরাহ্ন গল্প ১৮ মন্তব্য
সকাল গড়িয়ে দুপুর হতে চললো সবাই যারযার বাড়িতে অবস্থান করলেও থামছে না তান্ত্রিকদের যত্রতত্র মন্ত্রপূত ! আগত তান্ত্রিকদের মধ্য জটাধারী মহাতান্ত্রিকের নাম রাসেশ্বর। নামে গুণে ও তান্ত্রিক যাদুতে না কী বেশ চালাক চতুর! তান্ত্রিক মহাসাধু রামলোচনকে বশীকরণ করে রণচণ্ডী বউয়ের কাছে একটা জলের বোতল দিয়ে বলছেন রোজ সকাল সন্ধ্যা গায়ের মধ্যে ছিটিয়ে দিতে। বশীকরণ শেষে [ বিস্তারিত ]
বিলাসবাবুর বাড়িতে নবাগত তান্ত্রিক মহাসাধু অনেকদূর গাঁ থেকে এসেছেন। দূরদেশের লোক বলিয়া সকলে তাকে প্রণাম করতে লাগলো। এমনকি বাড়ির কর্তা বিলাস বাবুসহ রামলোচন ও তার বউ সকলেই এ তান্ত্রিকের পায়ে লুটিয়া পড়িলো। তান্ত্রিক মহাসাধু অমাবস্যার শেষপ্রহরে উচ্চস্বরে বলছে-অবঘরো নবঘরো,আমারে তিনজনে ধরো। আমি শিবলেঙ্গার ভাই, আমার মতো বড়ো গন্তা অত্র দেশে নাই..! এমন কথার বাণী শুনেই [ বিস্তারিত ]

আজ চৈত্রসংক্রান্তি

প্রদীপ চক্রবর্তী ১৩ এপ্রিল ২০২০, সোমবার, ১২:০৫:১৯অপরাহ্ন বিবিধ ২০ মন্তব্য
গাছে গাছে নবপত্র পল্লবের সমারোহ। প্রকৃতির সুপ্ত উদ্ভাসে ঋতুচক্রের পালাবদলে প্রখর রৌদ্রের খরতাপ পেরিয়ে আগমনী গ্রীষ্মের ছোঁয়া। ফুল,প্রকৃতি তৃষ্ণায় তৃষ্ণার্ত হয়ে ওঠে ঋতুচক্রের ভ্যাপসা গরমে। তৃণলতা বৃষ্টিরজলে গা ভেজাতে অপেক্ষার প্রহর গুনে। বুরো ধানের পুষ্পমঞ্জরি জুড়ে মৌমাছি আর ভ্রমরের গুনগুন গুঞ্জনে আহরিত সবুজে আচ্ছাদিত পুরো ধানক্ষেতের মাঠ। ফুলের সৌরভ নিতে বাগানজুড়ে ভিন্ন রঙের প্রজাপতির আনাগোনা। [ বিস্তারিত ]
রাত্রি তিনটে। এদিকে তন্ত্রমন্ত্রে গাঁজার মুগ্ধকরা ঘ্রাণে হঠাৎ করে এক জটাধারী মহাতান্ত্রিকের আগমন। হাতে ত্রিশূল, গলায় নবরত্নের মালা,কাঁধে ঝুলি, গায়ে একখানা লালসালু পরিহিত। রূপেরঘটা ভয়ানক। মনে হয় শ্মশানের অগ্নি ছাই থেকে উঠে আসা। দেখলে যেমন ভয়ে গায়ের লোম খাড়া হয়ে ওঠে। মুখে ক্রীঁ ক্রীঁ ক্রীঁ ফট্‌ স্বাহা উচ্চারণ করে বিলাস বাবুর মন্দিরের উপবিষ্ট। অন্য তান্ত্রিকরা [ বিস্তারিত ]
কী এমন মহাকান্ড রামলোচন? আজ্ঞে কর্তা মশাই কান্ডটা আপনার নাকের ডগায়! এ কী বলছো রামলোচন? আজ্ঞে কর্তা মশাই নাকে একবার হাত দিয়ে দেখুন। ফলাফল পাঁচমিনিটের মধ্যে। আরে কী সব বকবক করছো রামলোচন। কী হয়েছে সেটা বলার হলে বলো। তোমার সবসময় ন্যাকামো আমার পছন্দ নয়। এছাড়া আমি কি তোমার দাদাঠাকুর? আজ্ঞে না কর্তা মশাই। আপনি কেন আমার [ বিস্তারিত ]

“আনন্দপুরের ভূতের কান্ড” পর্ব-১

প্রদীপ চক্রবর্তী ৯ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার, ১০:১০:০৫অপরাহ্ন গল্প ১৮ মন্তব্য
আজ ঘোর মহা অমাবস্যা! বিলাস বাবু একজন তান্ত্রিক কালী মায়ের উপাসক। বাড়িতে আজ কালীপূজার আয়োজন করেছেন। বিলাস বাবু একজন সদাচারী ব্রাক্ষণ। কালীপূজা, দূর্গাপূজা,সরস্বতীপূজা আর যাজনিক করে সংসার পরিচালনা করেন। পরিবারে সস্ত্রীক ও ছেলেমেয়ে নিয়ে মোট চারজনের সংসার। বড় ছেলে বিনু পাড়ার ছোটখাটো টুলের পন্ডিত। বিলাস বাবুর গিন্নী ললিতা রাণী ঘরের কাজকম্ম নিয়ে সারাদিন ক্লান্ত। এমনিতেই [ বিস্তারিত ]

মৃত্যুশোক

প্রদীপ চক্রবর্তী ৬ এপ্রিল ২০২০, সোমবার, ০৭:২৪:০২অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৩ মন্তব্য
মৃত্যুশোক কত নির্মম কত দুর্বিষহ। আজ পৃথিবী তার সমস্ত ভাষা হারিয়ে ফেলছে। মানুষ তো কবে থেকেই নির্বাক। নদীপৃষ্ঠের রেখায় নির্জনতা আর ঘোলাটে স্রোতে দিগন্ত জুড়ে বিস্তৃত প্রকৃতিও আজ শোকের চাদরে নিমজ্জিত। হয়তো এ ভয়াবহ মৃত্যু মিছিলে যত্রতত্র পড়ে থাকবে রাস্তায় রাস্তায় মানবের লাশ! এ মহামারি ভয়ানক সংক্রামকে তোমার পরিবার পরিজন,প্রিয়জন কেউ কাফন সরিয়ে তোমাকে শেষবারের [ বিস্তারিত ]

আকুতি

প্রদীপ চক্রবর্তী ২ এপ্রিল ২০২০, বৃহস্পতিবার, ০৫:১৬:৫৫অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৩ মন্তব্য
হয়তো এ শহরে খানিকক্ষণ পর বৃষ্টি নামবে! মন্দির,মসজিদ থেকে ধ্বনিত হবে পবিত্রতার বাণী। ঘরবন্ধি মানুষ কিছুটা অনুপ্রাণিত হবে। বহুপ্রতীক্ষার পর শহরের গায়ে আস্তরণ পড়া ধূলিকণা মিশে যাবে বৃষ্টিজলের মর্মপলব্ধিতে। চৈত্রদগ্ধ আর বসন্তের যৌবনে দীর্ঘদিন ধরে মৃত্যুশোকে কাতর গোটা পৃথিবীর মানুষ। যে মৃত্যুপথ সম্মুখীন হয়ে আছে তার পূর্বা সম্পর্কিত কোন তথ্য ছিল না। কেবল মৃত্যুর মিছিল [ বিস্তারিত ]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য