নিতাই বাবু

আমি শ্রী নিতাই চন্দ্র পাল (নিতাই বাবু)। জন্ম: ৮ জুন, ১৯৬৩ ইং ৷ জন্মস্থান নোয়াখালীর বজরা রেলস্টেশনের পশ্চিমে, মাহাতাবপুর গ্রামে ৷ স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে দশ বছর বয়সে ১৯৭২ সালে আমরা সপরিবারে নোয়াখালীর বাড়ি ছেড়ে চলে আসি, নারায়ণগঞ্জ বন্দর থানাধীন লক্ষণখোলা সংলগ্ন আদর্শ কটন মিলে। এখানে ১৯৭২ সাল থেকে ১৯৮৪ ইং সাল পর্যন্ত স্থায়ীভাবে বসবাস করি ৷ এই আদর্শ কটন মিলস এ আমার বড়দা চাকরি করতেন। আর আমার বাবা স্বর্গীয় শচিন্দ্র চন্দ্র পাল চাকরি করতেন, শীতলক্ষ্যা নদীর পশ্চিম পাড় দি চিত্তরঞ্জন কটন মিলে ৷ একসময় আদর্শ কটন মিলস্ বন্ধ হয়ে গেলে, শীতলক্ষ্যা নদীর পধচিমপাড় নগর খাঁনপুর এসে বসবাস শুরু করি। এরপর ১৯৯১ ইং সাল থেকে অদ্যাবধি সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন গোদনাইল এলাকায় বসবাস করে আসছি।

  • নিবন্ধন করেছেনঃ ২ বছর ৬ মাস ২২ দিন আগে
  • পোস্ট লিখেছেনঃ ৫৩টি
  • মন্তব্য করেছেনঃ ৮৪৮টি
  • মন্তব্য পেয়েছেনঃ ৮৯৫টি
শীতলক্ষ্ম্যা এখন জীবিত থেকেও মৃত, শীতলক্ষ্ম্যার পানি এখন আর কেউ স্পর্শ করেনা । শীতলক্ষ্ম্যা বাঁচলে যে নারায়ণগঞ্জবাসী বাঁচবে, তা সবাই জানে, কিন্তু বাঁচানোর উদ্যোগ কারোর নেই । তবু শীতলক্ষ্ম্যাকে নিয়ে একটু কান্নাকাটি করতে হয়, কারণ: শীতলক্ষ্ম্যার সাথে আমার গভীর সম্পর্ক অনেক আগের, স্বাধীনতা যুদ্ধের পর যখন আমরা গ্রাম ছেড়ে সপরিবারে নারায়ণগঞ্জ বন্দর থানাধীন লক্ষ্মণখোলা সংলগ্ন [ বিস্তারিত ]
নারায়ণগঞ্জ সিটির উন্নয়ন দেখে বহু আগেকার কথা মনে পড়ে যায়, যখন আমরা সপরিবারে নারায়ণগঞ্জ বন্দর থানাধীন আদর্শ কটন মিলস্-এ থাকতাম । সময়টা ছিল স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে, হতে পারে ১৯৭৩ সাল । তখন কারোর জন্য একটি জামা কেনার প্রয়োজন হলে নারায়ণগঞ্জ ছাড়া আর উপায় ছিলনা । তখনকার সময়ে এখনকার মতো যেখানে সেখানে হাট বাজার আর মার্কেট [ বিস্তারিত ]

আমার দারিদ্র জীবন ও অনলাইন জীবনী

নিতাই বাবু ১৫ এপ্রিল ২০১৭, শনিবার, ০১:১১:৩৩অপরাহ্ন বিবিধ ১৬ মন্তব্য
আমার জন্ম ১৯৬৩ সালে, জন্মেছিলাম  নোয়াখালীর বজরা রেলস্টেশনের পশ্চিমে মাহাতাবপুর গ্রামে। ছিলাম চার বোন দুই-ভাইয়ের মধ্যে আমি সবার ছোট। আমার বয়স যখন পাঁচ-বছর, তখন একজন শিক্ষক ও পুরোহিত দ্বারা আমার হাতেখড়ি দেওয়া হয়। সেই হাতেখড়ি অনুষ্ঠানে আমি সহ আমাদের পাশের বাড়ির আরও ৩/৪ জনকে হাতেখড়ি দেয় যার-যার অভিভাবক-রা। হাতেখড়ি দেওয়ার কলম ছিল বাঁশের-ছিঁপ আর খাতা [ বিস্তারিত ]
বর্তমান বাজারে ধাতব মুদ্রা একটাকা, দুইটাকা আর পাঁচটাকা কয়েনের বোঁজার ভার কমানোর জন্য এক অভিনব কৌশল অবলম্বন করে ফেলেছে কিছু-কিছু দোকানদাররা । কী কৌশল? কেমন কৌশল? তার বিবরণ নিম্নে লিখে জানাচ্ছি । আগে আমার ছোটবেলা একপয়সা, দুইপসা, পাঁচপয়সা, একআনা, দুইআনা জমানোর স্মৃতিচারণগুলো সবাইকে জানিয়ে রাখি । কারণ এই কয়েন বা পয়সার সাথে আমার একটা মধূর [ বিস্তারিত ]
প্রিয়তমেষু, শুরুতেই আমার ভালোবাসা রইল, আশা করি স্বামী সন্তান নিয়ে একপ্রকার ভালো আছো। তুমি ভালো থাকো, বিধাতার কাছে এটাই আমার চাওয়া। আর আমার জন্য যদি তুমি আশীর্বাদ করে থাক, সেই আশীর্বাদে আমিও একপ্রকার ভালো আছি প্রিয়ে । পর-সমাচার, আজ অনেকদিন যাবত তোমাকে খুব মনে পড়ছে, কেন মনে পড়ছে তা আমি নিজেও জানিনা প্রিয়ে। শুধু এটুকু [ বিস্তারিত ]
ছোটবেলায় দেখতাম আমাদের গ্রামে একটা বাড়ি ছিল। বাড়িটার নাম ছিলো জুগিবাড়ি, জুগি হলো আমাদের হিন্দুধর্মের একটা জাত বা সম্প্রদায় । জুগি সম্প্রদায়ের কাজ ছিল বস্ত্র তৈরি  করা, তাঁরা যেই মেশিন বা কল দিয়ে কাপড় তৈরি করতো সেটাকে বলা হতো তাঁত । সেই তাঁত চালিয়ে যারা  কাপড় উৎপাদন করতো, তাদের বালা হতো তাঁতি বা জুগি । [ বিস্তারিত ]
দিনদিন গ্রাম থেকে মানুষ আসছে শহরে, ভীড় বাড়ছে রাস্তাঘাটে, লাইন লম্বা হচ্ছে ব্যাংকে বাস কাউন্টারে লঞ্চ-স্টিমারে রেলস্টেশনে । লোকে লোকারণ্য হচ্ছে হাটবাজার সহ বড়বড় মার্কেটের শপিংমগুলো, বাড়ছে যানবাহনের গাড়ি, বাড়ছে চুরি-ডাকাতি ছিনতাই আহাজারি, বাড়ছে রোগবালাই, বাড়ছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম । তবু কি থেমে আছে আমাদের জীবন চলা? মোটেও না, বরঞ্চ আগের চেয়ে বর্তমানে আমরা [ বিস্তারিত ]
সোনেলা ব্লগ ডটকম এর সকল সম্মানিত ব্লগার/লেখকবৃন্দকে আমার ভক্তিপূর্ণ নমস্কার জনাই। আশা করি এই স্বনামধন্য ব্লগের সকল সম্মানিত ব্লগার/লেখকবৃন্দ আমার ভক্তিপূর্ণ নমস্কার স্বাচ্ছন্দ্যে গ্রহণ করেছেন। সম্মানিত লেখকবৃন্দ, আমি আপনাদের ব্লগে নতুন। এখানকার  অনেককিছুই আমার অজানা, অনেক মুখ আমার অচেনা। আশা করি যদি কিছু লিখতে পারি, আমার লেখার মাধ্যমে সমাজকে কিছু দিতে পারি, তবে হয়তো ধীরেধীরে [ বিস্তারিত ]

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য