হোমায়রা জাহান হিমু

  • নিবন্ধন করেছেনঃ ৫ বছর ১১ মাস ১৮ দিন আগে
  • পোস্ট লিখেছেনঃ ৯টি
  • মন্তব্য করেছেনঃ ৩৭টি
  • মন্তব্য পেয়েছেনঃ ১১৯টি
রাজাকার আবদুল আলীম কুত্তার বাচ্চাটা হসপিটালে আরাম আয়েশে মরল,তাতে দেখি কিছু পাবলিক ব্যাপক খুশিতে উল্লাস করতেছে। কেন রে?একটা কারন দেখা যে কারনে উল্লাস করা যায়? ওই ছাগলটা কি মুক্তিযোদ্ধা আনসার আলীর মত ঢাকা মেডিকেলের বারান্দায় বিনা চিকিত্সায় অসহ্য যন্ত্রনায় কাতরাতে কাতরাতে মরেছিল? না, ও আয়েশি ঢংয়ে ভিভিআইপি কেবিনে হাসতে হাসতে মারা গেছে। ওই ছাগলটা কি [ বিস্তারিত ]

সহকর্মীর দৃষ্টিতে জিয়াঃ

হোমায়রা জাহান হিমু ৮ জুলাই ২০১৪, মঙ্গলবার, ০৩:৫২:৩৬পূর্বাহ্ন বিবিধ ১৪ মন্তব্য
“জিয়া ছিলেন ৮ শতাধিক সেনা সদস্যের মৃত্যুদণ্ডের জন্য দায়ী এবং শত শত অফিসার ও সিপাইকে কাজ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন।(এন্থনি মাসকারেনহাসের মতে সংখ্যাটা ১১৪৩। এছাড়া জিয়ার আমলে নামমাত্র বিচারে শত শত সৈন্যকে দশ বছর থেকে শুরু করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দন্ডিত করা হয়।) যাকে হুমকি বলে মনে করেছেন, তাকে তিনি কখনও রেহাই দেননি। তার ব্যক্তিগত ঘনিষ্ঠ বন্ধু [ বিস্তারিত ]

অপারেশন ওমেগা

হোমায়রা জাহান হিমু ২৭ জুন ২০১৪, শুক্রবার, ০১:৪৬:১৫অপরাহ্ন মুক্তিযুদ্ধ ১৫ মন্তব্য
১৯৭১ সালের ৭ ডিসেম্বর যশোরের পতন হওয়ার পর সেখানকার কারাগার থেকে মুক্তি পান দুজন বিদেশী । ২০ বছর বয়সী স্ল্যাভেনের সঙ্গী ছিলেন অ্যালান ল্যাঙ্গল কনেট । ২৯ বছর বয়সী এক মার্কিন তরুণী। দুজনেই ছিলেন অপারেশন ওমেগার সদস্য। অক্টোবরের শুরুতে অ্যালেন ও স্ল্যাভেন যশোরের উপকণ্ঠে শিমুলিয়া প্রবেশ করেন। তাদের সঙ্গে ছিলো শ’দুয়েক শাড়ি-আসন্ন শীতের জন্য গরম [ বিস্তারিত ]
আমি তো বুড়া হই গেসি। তাই কেউ আমারে কামে লিবার চায়না। বেকতে কয় আমি নাকি কাজ কইত্তে হারি না।যেইদিন কেউ দয়া করি কাজে নেয় সেইদিন ঘরের উনুনে আগুন জ্বলে।আর না হয় উপোস।এইডারে কি জীবন কয়!!! চোখ মুছতে মুছতে আবুল কালাম বলে চলেন,”দ্যাশের লাই যুদ্ধ কইচ্চি,দ্যাশ স্বাধীন কইচ্চি। অতছ ৪৩বছরে সবার ভাইগ্য পাল্টাইসে,কিন্তুক আমার ভাইগ্যর পরিবর্তন [ বিস্তারিত ]
“যুদ্ধে না গিয়ে কোন পথ ছিল না। কৈশোরের উন্মাদনায় যুদ্ধে যেতে বাধ্য হয়েছিলাম। যুদ্ধ করেছিলাম মেজর জিয়াউদ্দিনের (অব.) নেতৃত্বে। তিনি তখন ৯নং সেক্টরের সাব- সেক্টর কমান্ডার। দেশ স্বাধীন হলো। দেখতে দেখতে কেটে গেল ৪৩টি বছর। কিন্তু আমার ভাগ্যের পরিবর্তন হলো না।” “বদলে গেলাম আমি। বেঁচে থাকার জন্যই মানুষের কাছে হাত বাড়িয়ে টাকা আর চাল খুঁজে [ বিস্তারিত ]
৬৯ টাকা!!!৬৯ টাকা দিয়ে কি করা যায়?বর্তমান সময়ে একবেলা খেতে গেলে অন্তত ১০০ টাকা লাগে।সেই যায়গায় সারাদিন হাড় ভাঙ্গা পরিশ্রম করে একজন চা শ্রমিক পায় মাত্র ৬৯ টাকা।ভাবা যায়???? যেখানে একজন দিনমজুরের ন্যূনতম মজুরিও এখন ২৫০-৩৫০ টাকা সেখানে একজন চা শ্রমিকের মজুরি কীভাবে ৬৯ টাকা হয় তা বোধগম্য নয়। কারো কাছে এর জবাব নেই।মালিকপক্ষের সুন্দর [ বিস্তারিত ]
আমি ব্যক্তিগতভাবে কোণ মানুষকে আদর্শ ধরা বা দেবজ্ঞানে পূজো করায় মোটেও বিশ্বাসী না। কিন্তু তাজউদ্দিনের কথা আমি যখনই ভাবি তখনই মনে হয়যে এমন একটা অকৃতজ্ঞ জাতির মানুষ আমরা যারা এই মানুষটাকে তার প্রাপ্য সম্মান তো দুরের কথা, কুকুরের মত মেরেও ক্ষান্ত দেইনি। খুনীদের রাজকীয় সম্মান দিয়েছি। আইন করে বিচার নিষিদ্ধ করেছি। কোন ধর্ম বা নৈতিকতায় [ বিস্তারিত ]
-স্যার,আমি তরমুজ বেইচা আপনাগো সব ট্যাকা দিয়া দিমু।খালি আমারে আর পনরোটা দিন সময় দেন, -তোর গত এক মাসের কিস্তি বাকি। অফিস থেইকা অর্ডার আছে তোর ঘর বেইচা হৈলেও ট্যাকা নিয়া নেওয়ার। -স্যার!এমুন পাষান ঐয়েন না।আমি আমনের পায়ে পড়ি। আমি আম্নেগো কাছ থেইকা কিস্তি নিছি শুধু এই তরমুজের লাইগা। ফসল বেইচা ই আম্নেগো ট্যাকা আমি দিয়া [ বিস্তারিত ]

এক নীরব মুজিবপ্রেমীর কথা

হোমায়রা জাহান হিমু ২১ এপ্রিল ২০১৪, সোমবার, ১০:৩৫:০৭পূর্বাহ্ন বিবিধ ১৫ মন্তব্য
মনিরা ,তুই স্কুলে যাবি না? মা,আইজ ত স্কুল বন্ধ। কেন ? কি হয়েছে ? মা,আইজ স্কুলে অনুষ্ঠান হইবো। আইজ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের জন্মদিন। হায়,হায় ,তুই আগে কবি না , তোর নানায় কই ? আইজ আবার কোন অলক্ষুনে কান্ড করে। গতবার একবার জেলে গেছিলো।যা মা তাড়াতাড়ি খুইজা নিয়া আয় মা। মনিরা নানারে খুঁজতে বাহির হয়।সে জানে [ বিস্তারিত ]

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য