২৫ ডিসেম্বর এক বিস্ময়

খসড়া ১০ মার্চ ২০১৬, বৃহস্পতিবার, ১২:৩০:৪৮পূর্বাহ্ন বিবিধ ৪৯ মন্তব্য
প্রতি বছরে ২৫শ ডিসেম্বর যখন সূর্য উদয় হয়ে উত্তর প্রান্তে যাত্রা শুরু করতো প্রাচীন কালের মানুষেরা এই দিনকে সূর্যের জন্ম দিন বলে উৎসব পালন করতো। মনে করা হতো যেন এই দিনে সূর্য তার কুমারী মাতার গর্ভ থেকে নিঃসৃত হয়ে পূর্ব দিগন্তে উদিত হচ্ছে এবং শীতের আগমন বার্তা বয়ে আনছে।
25650239725_52e26f8612_o
প্রাচীন মিসরের ধর্মীয় ভিত্তি পুরোপুরি ভাবে Sun-Mythsএর উপর নির্ভরশীল ছিল। Seb ও Nut এর ছেলে Osiris ২৫শ ডিসেম্বর জন্ম গ্রহন করেন। তার জন্মের সময় দৈব বাণী হয়েছিল,The ruler of all earth is born. প্রাচীন বাইবেল The Egyptian Book of the Dead-এ তাকে সর্বদ্রষ্টা, সর্বশ্রোতা এবং মানুষের সর্বময় কর্তা হিসাবে দেখানো হয়েছে। তিনি রাজদন্ড ও ক্রস-চিহ্ন ধারন করে উঁচু স্তম্ভের উপরে বসে মৃত ব্যাক্তিদের বিচার করতেন। তার মাথায় Leaf of Bel-Tree, which is triple in form এর মুকুট শোভা পেত। মিসরীয় পবিত্র গ্রন্থে লেখা আছে–I know the mystrery of Divine word: the word of the . Lord of All, which was the maker of it, the word is the first person after himself. Uncreated, infinite ruling over all things that were made by him.
25354604800_f9c1eb3f5f_c
সূর্যকে Horus নামে ডাকত প্রাচীন মিসরীয়গন। হোরাসের কুমারী মাতা ইসিস চন্দ্রদেবীর গর্ভে জন্মগ্রহন করেন ২৫শ ডিসেম্বর। এই দিনে শিশু হেরাসের মুর্তি গামলায় রেখে আনন্দ উৎসব করা হতো। হোরাসের উপাধির মধ্যে “Royal Good Shepherd, Lord of life, Only begotton, Saviour, the Anointed one the Christ, The Redeemer, উল্ল্যেখ যোগ্য।
25019712684_c12c079239_n
গ্রীক মাইথোলজিতে হারকিউলিস ছিল জিউস ও এলেমেনের পুত্র এবং তার জন্ম ২৫ ডিসেম্বর। হারকিউলিসের জন্মের সময় আকাশবানী হয়েছিল This day shall a child be born of the race of Perseus , who shall be the mightiest of the sons of man.
25624067026_b6d1d2e779_c
সূর্য-দেবতা ডাইয়োনিসিয়াস ছিলেন থিবসের রাজা ক্যাডমাসে কুমারী কন্যা সিমিলের পুত্র। ডাইয়োনিসিয়াস ও জন্ম গ্রহন করেন ২৫শ ডিসেম্বর। ডাইয়োনিসিয়াস তার লাঠি দ্বারা লোহিত সাগরকে দ্বিখন্ডিত করতে পারতেন। তার মাথায় শিং ছিল।মহা ভারতে আছে কর্ণ সুর্যের পুত্র এবং তার জন্মও হয় কুমারী মতার গর্ভে। এই কর্নের জন্ম ও ২৫শ ডিসেম্বর।পার্সিয়ানরা বিশ্বাস করত সূর্যপুত্র মিথারাস পৃথিবীতে নেমে আসে ঈশ্বর ও মানুষের মধ্যে মধ্যস্থতা করতে। যাতে মানুষ পাপ মুক্ত হয়। তারা বিশ্বাস করত ২৫শ ডিসেম্বরে এই ঈশ্বর পুত্র জন্ম গ্রহন করেছেন।
25023506773_a8a50baea1_c
বুদ্ধদেব জন্ম নিলেন ২৫শ ডিসেম্বর যখন নতুন সূর্য উঠে। ঋক্‌-বেদের মার্তন্ডের শিশু সূর্য বলে ধরা হয়। কথিত আছে, বিশাখা তারা থেকে বোধিস্তত্ব শুভ্র হস্তি শাবকের আকারে নেমে এসে মহামায়ার শরীরের দক্ষিন দিকে প্রবেশ করে। এ ঘটনা মহামায়া স্বপ্নেও দেখেছিলেন। শুধু তাই নয়, বোধি্সত্ত্ব প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গে একটি পদ্মফুলের আবির্ভাব ঘটে যা ব্রক্ষ্মর প্রতিক।সূর্যদেবতা ক্রিষ্টানিটি ২৫শ ডিসেম্বর নতুন ভাবে জন্ম নিয়ে মায়ের সাথে পুনর্মিলিত হলো। এই জন্ম থেকেই Nativity পাশিয়ান ম্যাগী ও কলদিয়রা তাদের শিশুদের কোষ্ঠী তৈরী করে।
25650264395_3576f6d210_c
প্রাচীন এসিরিয়া ও ব্যাবিলীয়রাও একজন দেবী-মাতা ও তার পুত্রের পূজা করতো। মায়ের নাম ছিল মাইলিট্টা এবং পুত্রের নাম তাম্মুজ বা এডোনিস। এই পুত্র ছিল ত্রানকর্তা ও মধ্যস্থকারী। তাম্মুজও ২৫ ডিসেম্বর জন্ম গ্রহন করে।আমাদের নবী হযরত ইশা (আঃ) অর্থাৎ যীশু খ্রিষ্টও জন্ম গ্রহন করেন ২৫শ ডিসেম্বর। পবিত্র বাইবেল অনুযায়ী তার জন্মও হয় কুমারী মাতা মেরীর গর্ভে। তিনিও মানুষের ত্রান কর্তারূপে পৃথিবীতে আসেন।
সুত্রঃ দা অরিজিন অব রিলিজিয়নস,দা ভিসু পুরান, দা অরিজিন অব অল রিলিজন্স অরসিপ
১৭৯জন ১৭৯জন
0 Shares

৪৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য