হেমন্তের ক্ষণ-কাল

সাবিনা ইয়াসমিন ১৭ অক্টোবর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, ১০:২৪:১২অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩০ মন্তব্য

অনিন্দ্যের সাথে দেখা হয়েছিলো নিবেদিতার সেইই কবে। তবুও মুগ্ধতা ম্লান হয়না এতটুকুন! কি করে হবে! অনিন্দ্যের হাসি, মায়াভরা চোখ, আর এলোমেলো চুল যে সব সময় একই রকম থাকে। এক শরতে
খুব জল্পনা-কল্পনা শেষে এক হলো দুজনে।

হাসি
মুগ্ধতা
আবেদন
আলিঙ্গন
নিবেদন
সমর্পণে,
জানা হলো ভালোবাসা জন্মেছে জন্ম-জন্মান্তরে। এক চোখ হতে আরেক চোখের দুরুত্বে, নিঃস্বাস হতে প্রশ্বাস অতিবাহিত ক্ষণ-কালে কাছাকাছি রবে তারা দুজন দুজনার হয়ে।

অতঃপর ঠিক হলো,আসছে হেমন্তে তারা হেমন্তের ধুসরিত পথে একসাথে হাটবে হাত ধরে। উদাসী হাওয়ায় নিবেদিতার উড়ন্ত চুলে বেধে দিবে শক্ত বিনুনি। সবাইতো খোঁপা বাধে। অনিন্দ্য নাহয় নিবেদিতার চুলে বেনী করবে। কাশফুলের মালা গেঁথে পরিয়ে দিবে গলায়।

ভালোবাসা নয়তো একা থাকা,
একাকী প্রহরে আধবোজা চোখে
নিরন্তর প্রেমের স্বপ্ন-আঁকা ;
একাতো নয় একলা রাখা,
নিরবতার আষ্টেপৃষ্ঠে উষ্ণতার চাঁদরে ঢাকা।

* আমাদের প্রেমের পূর্নাঙ্গ কবিতা লিখছি মনের আখরে। অ-কবিতায় লেখা থাকুক আমাদের ক্ষণ-কাল 🙂

২৮৫জন ৯জন
66 Shares

৩০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য