সম্পর্ক কি মইয়ের মত? প্রতিটি ধাপে এক একজন অবস্থান করে! একটি ধাপের অনুপস্থিতি পরবর্তী ধাপে যাবার অন্তরায়। নাকি পালকে মোড়ান একটি আস্ত পাখি? প্রতিটি পালক এক একটি সম্পর্ক। একটি পালক ছাড়াই কেমন খাপছাড়া হয় পাখি।

আমাদের সবার জীবনেই এমন ঘটে। পূর্বে কখনো দেখা হয়নি বা স্বপ্নেও ভাবা হয়নি তাঁর কথা। অথচ পরিনত বয়সে তাঁর সাথে পরিচয়,পরিচয়ের পর ধীরে ধীরে হৃদয়ের একটি প্রকোষ্ঠে তাঁর আনাগোনা। আনাগোনা থেকে হৃদয়ে বসা এবং বসবাস। একটি সময়ে হৃদয়ের সে প্রকোষ্ঠের মালিক বনে যাওয়া। কিছুদিন পূর্বেই যে ছিল অপরিচিত, সেই এখন হৃদয়ের এক অংশের অধীশ্বর। তাঁকে বাদ দিয়ে হৃদয়, অন্তকরন, প্রাণ অসম্পূর্ন।

কিভাবে হয় এমন? কেন হয়? একটি হৃদয়ে কত প্রকোষ্ঠ থাকে? এটি কি পূর্ব নির্ধারিত থাকে? একটি জীবনে কতজন, কোন সম্পর্কে হৃদয়ের স্থান অধিকার করবে সে আনুযায়ী হৃদয়ের প্রকোষ্ঠ তৈরী হয় আগে থেকেই? শূন্য থাকে তাঁর আগমনের জন্য?

বড় অদ্ভুত এই সম্পর্ক, আত্মীয়তা। যার কথা ভাবা হয়নি, স্বপ্নেও দেখা হয়নি তাঁর অবয়ব ইতিপূর্বে, সে ই কিনা অস্তিত্বের সাথে মিশে যায়! আত্মার সম্পর্কই সবচেয়ে বড় আত্মীয়তার জন্ম দেয়। এক সময়ের অচেনা মানুষটির প্রতি এক ধরনের নির্ভরশীলতা তৈরী হয়। বিনা নোটিশে একদিনের যোগাযোগহীনতায় অসীম শুন্যতার সৃষ্টি হয়। বুকের ভিতর বিরান হাওয়া হু হু করে বয়ে যায়। নিজের থেকেও আপন হয়ে যায় সে। তাঁর আনন্দ, বেদনা, সুখ, দুঃখ, অসুস্থতার সাথে মিশে যায় আস্ত হৃদয়ের মানুষটি। দূরে থাকা হৃদয়ের অংশের আনন্দে আনন্দিত হয়, অসুস্থতার সময়ে ইচ্ছে হয় শিয়রে বসে কপালে হাত রাখতে- আমি আছি, সব ঠিক হয়ে যাবে, এমন অভয় বানী থাকে তাঁর মনে।

এই যে আবেগ, এর জন্যই মানুষ তাঁর জীবনকে তুচ্ছ করে ফেলে। ছুটে চলে হাজার অযুত বন্ধুর পথ।
বন্ধুত্ব, ভালবাসা, সম্পর্ক, প্রেম, আত্মীয়তা, সবই জড়িয়ে থাকে একই সুতোয়।

১৬০জন ১৬০জন
0 Shares

২৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য