অনেক স্ত্রী বিরক্তিকর হয়। বিরক্তিকর স্ত্রীর সাথে দশ মিনিট ও কথা বলা যায় না। কিন্তু আশেপাশে মাছির মতো ভন ভন করা মেয়েগুলোর সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা কথা বলা যায়। গুলতেকিন এর ক্ষেত্রে হয়তো তেমন ই হয়েছিল। আবার নাও হতে পারে।

আমরা আমাদের জীবন থেকে দেখি। আমাদের অনিচ্ছা সত্ত্বেও অনেক প্রিয় মানুষের থেকে দূরে চলে যেতে হয়, অনেক সময় বাধ্য হয়ে নিজেদেরও বদলে যেতে হয়। আর এর কারণ গুলো, এই দুঃখ গুলো আমরা ছাড়া কেউ জানেনা।  হুমায়ুন আহমেদ শাওনকে বিয়ে করেছেন বলে সবার চক্ষুশূল হয়েছিলেন। আসলে আমরা কেউ সত্যি টা জানিনা যে শাওন এর জন্য দুজনের মধ্যে দূরত্ব তৈরী হয়েছিল ? নাকি তাদের দুর্বল ভালবাসা আর দূরত্ব ভরা সম্পর্কের মধ্যে শাওনের আবির্ভাব হয়েছিল।

আমার মনে হয় একটা মজবুত ভালোবাসা ভরা সম্পর্কের মধ্যে চাইলেই তৃতীয় কেউ  সহজেই ফাটল ধরাতে পারে না।

গুলতেকিন দ্বিতীয় বিবাহ করেছেন হুমায়ুন আহমেদ এর  মৃত্যুর দীর্ঘ দিন পর। বয়স যেটাই হউক, ভাল থাকার খোঁজ করাটা তার মৌলিক অধিকার।
হুমায়ুন আহমেদ তার লেখায় স্ত্রী সন্তানদের কথা বার বার ই প্রকাশ করেছেন। তাঁর লেখায় মৃত সন্তানের প্রতি ভালবাসা ও দেখেছি আমরা।

এই কথার যাদুকর সাবেক স্ত্রীর প্রতি যথেষ্ট সম্মানই দেখিয়েছেন। সচরাচর দ্বিতীয় বিবাহ করেছেন অথচ প্রথম স্ত্রীর বদনাম করে নি এমন ঘটনা দুর্লভ। অন্যদিকে গুলতেকিন কোন অভিযোগ করেন নি। ৩০ বছরের সংসার জীবন থেকে বের হয়ে এসেও তাদের একে অন্যের প্রতি সম্মানবোধ দেখেই বুঝা যায় তারা কতটা ব্যক্তিত্ব সম্পন্ন মানুষ ছিলেন।

৩৪০জন ৫৯জন
77 Shares

২১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য