হাতে হাত মেলানো মারাত্মক ক্ষতিকর!

নিতাই বাবু ৪ ফেব্রুয়ারী ২০২০, মঙ্গলবার, ০৮:৩৮:২৮অপরাহ্ন চিকিৎসা ৩১ মন্তব্য

আদিযুগ থেকে আমরা একে অপরের সাথে ভাব বিনিময় করে থাকি। কেউ হাত উঁচিয়ে সালাম দিই! কেউ নিজের দু’হাত জোর করে নমস্কার জানাই। কেউ বুকে বুক মিলিয়ে কোলাকুলি করে থাকি। তবে এসবের মধ্যে সবচেয়ে বেশি যেটা করে থাকি, সেটা হলো হাতে হাত মিলিয়ে হ্যান্ডশেক বা করমর্দন।  বর্তমানে যে-সব নিত্যনতুন রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে বা দিচ্ছে, সে-সব রোগ বা ভাইরাস আগে ছিল না। এ-সব রোগ কিছু জটিল রোগ, কিছু সমসাময়িক। যে-গুলো সমসাময়িক, সে-গুলো নিত্যনতুন ছোঁয়াচে রোগ। মানে একজন থেকে অন্যজনে ছড়ায়।

বর্তমান মরণঘাতী নভেল কোরোনা ভাইরাস ঠিক এমনই এক সংক্রমণ। যা অনেকটাই ছোঁয়াচে রোগ। এটি ছিল গণচীনের উহান প্রদেশের একটা বাজারে। সেখান থেকে ছড়ায় মানুষের শরীরে। এটি শুরু হয় জ্বর দিয়ে। সাথে থাকে সর্দি, কাশি, হাঁচি, মাথাব্যথা সহ আরও অনেককিছু। বর্তমানে এই ভাইরাসের কোনও ভ্যাকসিন তৈরি হয়নি। যদিও এপর্যন্ত এই মরণঘাতী ভাইরাস আমাদের দেশে এখনো দেখা দেয়নি, তবু্ও এই মরণঘাতী রোগ থেকে রক্ষা পেতে হলে নিন্মলিখিত এমন কিছু নিয়মনীতি মেনে চলা জরুরি।

হাতে হাত মিলিয়ে ভাবের আদান প্রদান প্রায় আমরা অনেকেই করে থাকি। তবে এই হাত মেলানো যে স্বাস্থ্যের জিন্য যে কতোটা ক্ষতি করতে পারে, সে সম্পর্কে আমাদের কোনো ধারণা নেই। হাতের তালুতে থাকা নানা ধরনের জীবাণু হাত মেলানোর সঙ্গে সঙ্গেই একহাত থেকে অন্য হাতে চালান হয়ে যায়। আর তার ফলেই কোন কোন রোগ বাসা বাঁধতে পারে আমাদের শরীরে তা জেনে নিন–

সাধারণ সর্দি-কাশি:
সাধারণত হাত দিয়েই আমরা কাশির সময়ে মুখ চেপে ধরি। ফলে এমন সময়ে হাত মেলানো একদম উচিত নয়। নিজের শরীরের নানা জীবাণু অন্যের শরীরে চলে যেতে পারে। এমনকি উল্টোটাও হতে পারে। এই সর্দি-কাশিও কিন্তু বর্তমান মরণঘাতী নভেল কোরোনা ভাইরাসের একটা লক্ষ্মণ।

আচমকা যেকোনো রোগে আক্রান্ত হওয়া:
আপনি সর্দি-জ্বরে আক্রান্ত ব্যক্তিরা সবসময়ই হাত দিয়ে মুখ কিংবা নাক চেপে ধরেন। সেখানকার জীবাণু সব হাতে চলে আসে। এমন ব্যক্তির সঙ্গে হাত মেলালে যেকেউ এই রোগে আক্রমণ হতে পারে। আর এই সর্দি-সহ জ্বর জ্বর ভাব, বর্তমান সময়ে গণচীনের আবিস্কৃত নভেল কোরোনা ভাইরাসেরও একটা বিশেষ লক্ষ্মণ।

পেটের অসুখ বা পেটের পীড়া:
হাতে হাত মেলালে অন্যের হাতের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া আপনার হাতে চলে আসে। সেই হাত না ধুয়ে, সে হাতে খাবার খেলে সংক্রমণের সম্ভাবনা অনেক বেড়ে যেতে পারে। এসব সংক্রমণ নভেল কোরোনা ভাইরাসের একটা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্মণ।

পাতলা পায়খানা হওয়ার লক্ষ্মণ:
অন্যের সঙ্গে হাত মেলানোর পরে যদি আপনি হাত না ধুয়ে খাবার খান, তাহলে ডায়রিয়া-সহ বমি ইত্যাদি হতে পারে। যা নভেল কোরোনা ভাইরাস থেকে নিজেকে রক্ষা করতে হলে এমনই নিয়ম মেনে চলা উচিৎ!

যেকোনো ক্ষতিকর ভাইরাসে সতর্ক থাকা:
বিশেষ করে যে-গুলো ছোঁয়াচে রোগ সংক্রমণ, সেই রোগে আক্রান্ত হওয়া রোগীর রোগ পুরোপুরি ভালো না হওয়া পর্যন্ত কারও সঙ্গে হাত মেলানো বা অন্য কোনো সংস্পর্শে যাওয়া উচিত নয়। ছোঁয়ায় এই রোগের ভাইরাস অন্যের শরীরে দ্রুত চালান হয়ে যায়। তাহলে মরণঘাতী নভেল কোরোনা ভাইরাসও দ্রুত ছড়াতে পারে নিশ্চিত!

তথ্য ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করে নিজেরমত করে লেখা।

২৫৩জন ৮৫জন
14 Shares

৩১টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ