১. আশীর্বাদ; হে আমার প্রিয়তমা

দিনকে দিন জমতে থাকে অভিমানের বরফ;

একদিন গলে গেলে ভাসিয়ে নিবে সব

ধ্বংসস্তূপে আমাকে চিনতে পারবে তো

নাকি-আবার মিথ্যা অভিনয়ে উঠে দাঁড়াও!

 

অভিশাপ নয়। ভেসে যাচ্ছি আমি

যাচ্ছে, যাক আমারেই জমানো সর্বস্ব।

 

উঠে দাঁড়াও তুমি..দাঁড়াতে হয় তোমাকে

লালসার বিশ্রামাগারে উদ্ধারকৃত ভুল প্রেমিক

দৈনিক চাহিদার সঞ্চয়; তুমিই সৃষ্টির সফল উদ্যোক্তা।

অভিশাপ নয় আশীর্বাদ তোমাকে হে আমার প্রিয়তমা…

 

২. কাঁদো মেয়ে; তুমি কাঁদো

হাঁসের ছানাগুলো বৃষ্টি মেখে বসে আছে পুকুর পাড়ে।

আজানের ধ্বনিতে সুনসান নিরবতা। ঠিক তখন

বুকফাটা ভারী আর্তনাদ; আমাকে দুঃখ শোনাতে চাও-

: ততটুকুই বললে অপরিণত থেকে পরিণত হই।

 

কষ্ট পুষে ফুঁপিয়ে ফুঁপিয়ে একবার। কিংবা প্রয়োজনে।

শুধু সুখের নিশ্চয়তা; মাথা রেখে বুক ভিজিয়ে কাঁদো-

: কান্নায় তোমার দুঃখ ছাড়া স্পষ্ট হয় না কিছুই।

 

কাঁদো! এখনেই সময়

স্বাবলম্বী হও তোমার সুখে

সমাজবিজ্ঞান উল্টে রেখে- আমার “ভালোবাসা” বীমা করি।

ফিচার ছবি: নিজের। লোকেশন: টাঙ্গুয়ার হাওড়, সুনামগঞ্জ।

১৬৪জন ২০জন
0 Shares

৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ