স্বর্গীয় বিষ

হালিম নজরুল ২৯ জুন ২০২০, সোমবার, ০৮:৪৩:০৯অপরাহ্ন কবিতা ২৮ মন্তব্য
  1. ***(একটি কল্পিত প্রেমকাব্য)***

 

একদা কৃষ্ণ সাজিয়া বিষ্ণু মগন মহান ধ্যানে,
মনে জপে নাম রাম হরিরাম ভগবান শুধু জ্ঞানে।
বনে যত সব পাখি করে রব কানেতে কিছু না ঢোকে,
কাহার সাধ্যি ভাঙে আরাধ্যি কেবা সেবা তার রোখে।

হেনকালে পরি গায়ে মেখে জরি নেমে এলো রাধিকাই,
নেই তার সম অন্তর মম ধরাতে যে কোথাও নাই।
কিযে চমকালো ঝলকানো আলো কি যে অনন্য রূপ,
সারাবন জুড়ে পূর্ণিমা মুড়ে জ্বলিয়া উঠিল ধুপ।
চমকিয়া ওঠে কৃষ্ণের ঠোঁটে জোছনামোড়ানো হাসি,
রাধিকার রূপে পিরিতি স্বরূপে যৌবন যায় ভাসি।
ভাঙে তার ধ্যান,প্রেমে অজ্ঞান সমুখে দাঁড়ায় গিয়ে,
হস্তেতে মালা কঙ্কনবালা “তোমারে করিনু বিয়ে।
তুমি মহারাণী কৃষ্ণঘরনী প্রেমসুধা ঢালো মনে,
রাজদরবার হোক ছারখার পিরিতি জ্বলুক বনে।
যত ফুল পাখি মুদিলেন আঁখি বাজিলো কৃষ্ণবাঁশি,
কি যে মহাসুখে রাধিকার মুখে ফুটিয়া উঠিল হাসি।

  • তোমারে হেরিয়া কেমন করিয়া কাটিবে দিবসরাত,
    এই লহ পানি অন্তরখানি তোমাতেই করি পাত।
    কৃষ্ণের প্রেমে অন্তর ফ্রেমে উথলি উঠিল রাধা,
    খুলিয়া ঘোমটা জ্বালিয়া মোমটা ভাঙিল সকল বাধা।
    রূপে মহাসাজ জলসায় আজ নেচে ওঠে রাধিকায়,
    কোথা গেল লাজ শরম দরাজ রাধা যেন চমকায়!
    খাঁটি প্রেম হাতে সেই মহা প্রাতে নাচিয়া উঠিল যেই,
    দেখে মহারাজ কোনখানে আজ দুঃখের লেশ নেই।
    সতী সে বালিকা গাঁথিয়া মালিকা বলিতেছে মরিমরি,
    কৃষ্ণবাঁশিতে মায়াবী হাসিতে জপে যেন হরিহরি।
    প্রেমসুধা পানে অন্তরখানে বদল হইলা মালা,
    যত দিন যায় পরাণ উতরায় বাড়ে দ্বিগুনের জ্বালা।
    রাধা কহে স্বামী , অন্তর্যামী কি বিষ করিনু পান !
    মনে আছে কেহ ভাঙে মোর দেহ করে যেন খানখান।
    প্রাণ ভরিয়াছি আমি মরিয়াছি বিষেতে হয়েছি নীল, কোথায় আত্মা নাহিকো পাত্তা গেছে নিয়ে কোন চিল।

কৃষ্ণ কহিলো সকলি রহিল পান করো প্রেমমধু,
স্বর্গীয় তুমি উর্বর ভূমি মহিয়সী দেবী বধু।
হেমলোক দাও প্রেমলোক দাও জরজর কর বিষে,
মরনের শেষে স্বর্গের দেশে তুমি আমি রবো মিশে।
এই বিষে মাতো নাহি বিষ তা তো কৃষ্ণবাঁশির শিষ,
সে বিষে জরিলে রাধিকা মরিলে কৃষ্ণরে সাথে নিস।

******

১৯০জন ৫১জন
0 Shares

২৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য