স্বপ্ন – সোনেলা ২

ইঞ্জা ২৭ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার, ০৬:৪৫:১৯অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৩ মন্তব্য

 

ছেলেবেলায় আমার আব্বা আর মেঝো আব্বাকে দেখতাম ব্যবসার কারণে প্রায় দেশের বাইরে যেতেন, তা দেখে ভাবতাম সেইসব দেশ গুলো কেমন, সেইসব দেশের মানুষের চলনবলন কেমন হবে, তারা কি খায়, ভাবতাম তারা শুধু ইংরেজিতেই কথা বলে। 

যখন একটু বড় হলাম, তখন গল্পের বই পড়া শুরু করেছি, যার মধ্যে ভ্রমণ গল্প আমার অন্যতম আকর্ষণ ছিলো, ইবনে বতুতা, কলম্বাস সহ বিভিন্ন জনের ভ্রমণ গল্প পড়তাম, ইতিমধ্যে আমার আম্মা, ছোটো খালাম্মা আব্বার সাথে জাপান, লন্ডন ও ইটালি ঘুরে এসেছে, ছোটো খালাম্মা আমাদেরকে সেই ভ্রমণের গল্প শুনালেন, কোথায় কোথায় গেলেন, কি কি খেলেন, তাদের ব্যবহার কেমন ইত্যাদি ইত্যাদি জানালেন আমাদেরকে, আমি আগ্রহ ভরে শুনি, স্বপ্ন দেখি। 

 

আব্বার ইন্তেকালের পর আমি সকল ব্যবসার হাল ধরলাম, উন্যার চলে যাওয়ার দুই বছর পর বিয়ে করে গিন্নিকে নিয়ে থাইল্যান্ড এবং সিঙ্গাপুর গেলাম হানিমুন কাম বেড়াতে, থাইল্যান্ডের চাইতে সিঙ্গাপুর আমার বেশি ভালো লাগলো, সেখানে সেন্তোসা আইল্যান্ডের ঝর্ণার মিউজিকের তালে তালে নৃত্য আমাকে মোহিত করলো, জুরং বার্ড পার্ক আমাকে পাখিদের ভিড়ে উড়ার স্বপ্ন জোগালো, কাকাতুয়ার মজার সব কথা, মজার আচরণ হাসাতে হাসাতে পেট ব্যাথা করে দিলো, থাইল্যান্ডের ক্রোকোডাইল পার্কে কুমির নিয়ে খেলা আমাকে বিস্মিত করলো। 

 

এরপর কাজের সূত্রে প্রথম গেলাম ইউরোপ, প্রথমে লন্ডন – ইটালি – লন্ডন – প্যারিস – লন্ডন হয়ে ফিরে এলাম, ইটালিতে ফ্লোরেন্স, মিলান, রোম, ভেনিস ঘুরলাম কয়েক দফার ভ্রমণে।

ফিরে এসে বোন জামাইয়ের কিডনি ট্রান্সপ্লান্টের বিষয়ে ভারতের কলকাতা – বেঙ্গলোর গেলাম।

এছাড়া ব্যবসায়িক কারণে ভারতের মুম্বাই, পুনে, হাইদারাবাদ, তামিলনাড়ুর ত্রীভান্ডাম, তেলেঙ্গানা, চেন্নাই, দিল্লি, আগ্রা, পুস্কার সহ বিভিন্ন শহরে যাওয়ার সৌভাগ্য আমার হয়েছে।

 

এছাড়া মালয়েশিয়ার লাঙ্কাবি, কুয়ালালামপুর।

থাইল্যান্ডের পুকেট।

দুবাই।

নিউজিল্যান্ড। 

চিনের চংকিং, সাংহাই, কুনমিং, গুয়াংজু, হুনান, হুবাই সহ বেশ কিছু শহরে যাওয়ার সুযোগ হয়েছে আমার।

পাকিস্থানের করাচি, ইসলামাবাদ, মারি। 

নেপাল সহ বেশ কিছু দেশে যাওয়ার সৌভাগ্য আমার হয়েছে। 

আমার সবচাইতে পছন্দের দেশ হলো ইটালি, এই দেশ আমাকে সবসময় টানে তার শৈল্পিকতার কারণে, রোমানরা এই দেশকে দিয়েছে অনন্য এক শৈল্পিক রূপ। 

 

এই করোনাকাল আমাকেও থমকে দাঁড়াতে বাধ্য করেছে, এখন শুধুই অপেক্ষা আর অপেক্ষা, জানিনা আবার কবে সব ঠিক হবে, আবার কবে আমি উড়াল দেবো ভিন্ন কোনো দেশে।

 

সমাপ্ত।

 

ছবিঃ জিসান ভাইজান।

 

১৯১জন ৫৯জন
0 Shares

২৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য